বিয়ের প্রলোভনে ৩দিন আটকে রেখে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ

editor ১১ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ ৪ জানুয়ারী,শুক্রবার ।
মানিকগঞ্জের এক নারী (২৫)কে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধামরাই এলাকায় ৩দিন বাসায় আটকে রেখে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষিত ওই নারী অভিযোগ করেছেন, ধামরাই উপজেলার শ্রীরামপুর এলাকায় পাল পেপার মিলে নিরাপত্তাকর্মী প্রেমিক রাশেদ বিয়ের কথা বলে তাকে কয়েক দফা ধর্ষন করে। শুক্রবার সকালে প্রেমিক রাশেদ তাকে বিয়ে না করায় ওই ভুক্তভোগী নারী আত্মহত্যার জন্য ঘুমের ওষুধ খায়। এর পর ওই নারীকে অসুস্থ্য অবস্থায় মানিকগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
ভুক্তভোগী ওই নারী জানায়, তার বাড়ি মানিকগঞ্জের পাচুরিয়া গ্রামে । ২ বছর ধরে হরিরামপুর উপজেলার হাসেম ব্যাপারীর পুত্র রাশেদের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত বুধবার বিকালে ওই নারীকে বিয়ের কথা বলে তার পিতার বাড়ি থেকে রাশেদ তার ভাড়া বাসা ধামরাই উপজেলার শ্রীরামপুর নিয়ে যায়। সে বাসায় ৩দিন আটকে রেখে একাধিকবার ধর্ষণ করে রাশেদ। পরে তাকে বিয়ে করবে না বলে জানান রাশেদ। শুক্রবার সকালে সে ঘুমের ওষুধ খেয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। এর পর রাশেদ তাকে মানিকগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে তাকে ভর্তি করে। পরে ওষুধ আনার কথা বলে রাশেদ হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়।
মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ভুক্তভোগী ওই নারীর মা জানান, স্বামী পরিত্যাক্ত তার মেয়ের সাথে বিয়ে নামে রাশেদ ধর্ষন করেছে। তিনি রাশেদের শাস্তি দাবি করেন। আর এব্যাপারের আইনের আশ্রয় নিবেন বলে জানান।

মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ লুৎফর রহমান জানান, নির্যাতনের শিকার ওই নারীকে সঠিকভাবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তবে সে এখন পর্যন্ত কথা বলতে পারছে না। মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করে ভুক্তভোগীর অভিযোগের তদন্ত করা হবে বলে জানান তিনি।
এব্যাপারে মানিকগঞ্জ সদর থানার ওসি (তদন্ত) হানিফ সরকারের সাথে কথা হলে তিনি ঘটনাটি সম্পর্কে অবহিত নন বলে জানান। তিনি জানান, যেহেতু ঘটনাস্থল ধামরাই থানা এলাকায় সে কারনে ওই নারী সংশ্লিষ্ট থানায় অভিযোগ করতে হবে বলে জানান।###
কালের কাগজ/প্রতিবেদক/জা.উ.ভি

সম্প্রতি সংবাদ