দৌলতপুরে উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নৌকা পেতে দৌড়ঝাঁপ শুরু

editor ৮ই মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

জাহিদ হাসান হৃদয় ঃ ০৯ জানুয়ারী,বুধবার ।
জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষ হতে না হতেই শুরু হয়েছে উপজেলা নির্বাচনের প্রস্তুতি। তৈরি মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগও বিএনপি প্রার্থীরা । আগামী মার্চে ভোট হচ্ছে ধরে নিয়েই তৈরি হচ্ছেন নেতারা। দলীয় নৌকা প্রতীক পেতে দৌড়ঝাপ শুরু করেছে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা । দলীয় মনোনয়ন পেতে স্থানীয় এমপির কাছাকাছি ভিড়তে শুরু করেছেন আওয়ামীলীগ নেতারা । যার যার অনুসারীরা ইতিমধ্যে সামাজিক-গনমাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে প্রার্থী হিসাবে জানান দিচ্ছেন। সংসদ নির্বাচনে হাট বাজার গ্রাম-গঞ্জে, চায়ের দোকানে তেমন একটা জমজমাট না হলেও উপজেলা নির্বাচনে চায়ের দোকানে জমজমাট হবে । প্রার্থীদের কর্মী সমর্থকদের আড্ডায় চায়ের দোকানী দের ধারনা চায়ের কাপে চুমুকে চুমুকে নাকি ঝড় উঠবে ।

এবার প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে হবে উপজেলা নির্বাচন। ফলে এবার ভোট নিয়ে মতাসীন দলে আছে বাড়তি আগ্রহ। যদিও জাতীয় নির্বাচনে হেরে যাওয়া বিএনপির নেতাকর্মীদের আগ্রহে ভাটা পড়েছে। বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিবে কি না সে বিষয়ে এখন পর্যন্ত কেন্দ্রীয় ভাবে সিদ্ধান্ত হয়নি ।

গত ২০১৪ সালের উপজেলা নির্বাচনে মোটে ও ভালো করতে পারেনি আওয়ামী লীগ। দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মো: তোজাম্মেল হক তোজা নির্বাচিত হন । আওয়ামী লীগ-সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী কেন্দ্রীয় সেচ্ছাসেবক লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক নুরুল ইসলাম রাজা পরাজিত হয়েছিলেন। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মো: তোজাম্মেল হক তোজা নাশকতা মামলায় কাশিমপুর কারাগারে রয়েছেন ।

নির্বাচন কমিশন ইতিমধ্যে ঘোষনা করেছেন আগামী র্ফেরুয়ারীতে উপজেলা নির্বাচনের তফশীল ঘোষনা করবেন এই সংবাদ শুনে প্রার্থীরা গণসংযোগ শুরু করেছেন। আওয়ামীলীগে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে যাদের নাম শুনা যাচ্ছে তারা হলেন, কেন্দ্রীয় সেচ্ছাসেবক লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক নুরুল ইসলাম রাজা , তিনি ইতিমধ্যে এলাকায় গণসংযোগ শুরু করেছেন এবং একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর সাথে প্রতিটি এলাকায় সভা সমাবেশে উপস্থিত থেকে কাজ করেছেন । উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাড: এ.কে.এম আজিজুল হক মনোনয়ন চাইবেন । তিনি গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর সাথে প্রতিটি এলাকায় সভা সমাবেশে উপস্থিত থেকে কাজ করেছেন ও এলাকায় গণসংযোগ শুরু করেছেন । জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা সদস্য তিন বারের নির্বাচিত সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও স্বাধীনতার পর থেকে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডা এবং ঘিওর ডিগ্রী কলেজের ছাত্র সংসদের সাবেক জি.এস বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদের আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন চাইবেন বলে শুনা যাচ্ছে । জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক এবং উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস-চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান আওয়ামীলীগ থেকে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে দলীয় মনোনয়ন চাইবেন । জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাবেক সাধারন সম্পাদক ফরিদ আহম্মেদচেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন চাইবেন বলে শোনা যাচ্ছে । তিনি গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর সাথে প্রতিটি এলাকায় সভা সমাবেশে উপস্থিত থেকে কাজ করেছেন। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন চাইবেন উপজেলা সদরের চকমিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের তরুন চেয়ারম্যান ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সাহসিক তরুণ নেতা এস.এম শফিকুল ইসলাম শফিক । তিনি ইউনিয়ন নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে আওয়ামীলীগের প্রার্থীকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন । তার অনুসারীরা ইতিমধ্যে সামাজিক-গনমাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে প্রার্থী হিসাবে জানান দিচ্ছেন । এছাড়া বাচামারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল লতিফ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন চাইবেন বলে শোনা যাচ্ছে। তিনি ইউনিয়ন নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে আওয়ামীলীগের প্রার্থীকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন । এছাড়া উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক সাবেক ছাত্র নেতা হুমায়ন কবির শাওন চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন চাইবেন বলে জানান ।
এদিকে বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে আসবে কিনা কেন্দ্রীয় ভাবে এখন পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত না হলেও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে যাদের নাম শুনা যাচ্ছে তারা হলেন, জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মো: তোজাম্মেল হক তোজা,উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আজিজুল হক মন্টু। বিএনপির এই দুই জন প্রার্থীর নাম শুনা যাচ্ছে ।

এবিষয়ে উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আজিজুল হক মন্টু দৈনিক কালের কাগজকে জানান, জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সরকারের দমন নিপীড়ন হামলা মামলা দিয়ে হয়রানী করেছে । এই অবস্থায় উপজেলা নির্বাচনে বিএনপির নেতাকর্মীদের আগ্রহে ভাটা পড়েছে। বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিবে কিনা সেটা এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত হয়নি, হলে নির্বাচনে অংশ নিবো ।

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড: গোলাম মহীউদ্দীন দৈনিক কালের কাগজকে বলেন, ‘যেকোনো নির্বাচনের জন্য দীর্ঘ দিনের প্রস্তুতি রাখতে হয়। উপজেলা নির্বাচন নিয়েও আমাদের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। উপজেলায় প্রার্থী হতে চান, এমন দলীয় অনেক নেতা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। অবশ্যই যোগ্য প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়ার জন্য আমরা দলের কাছে সুপারিশ করব।

কালের কাগজ/প্রতিবেদক/জা.উ.ভি

সম্প্রতি সংবাদ