গোয়লন্দে শিশু ধর্ষণকারী তরিকুলের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন

editor ৬ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

আবুল হোসেন,গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) :১৯ এপ্রিল-২০১৯,শুক্রবার।
রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে পঞ্চম শ্রেণির মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণকারী তরিকুল ইসলাম রিমনের ফাঁসির দাবিতে বৃহস্পতিবার বিশাল মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোয়ালন্দ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বেলা ১১-১২টা পর্যন্ত চলা মানববন্ধনে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ অংশ নেয়। ধর্ষক তরিকুল গোয়ালন্দ পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের হাউলি কেউটিল গ্রামের ইউনুছ সরদারের ছেলে।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন গোয়ালন্দ রাবেয়া ইদ্রিস মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল কাদের শেখ, গোয়ালন্দ দাখিল মাদ্রাসার সুপার আশরাফুল আলম, লোটাস কলেজিয়েট স্কুলের অধ্যক্ষ মামুনুর রশিদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এবিএম বাতেন, ছাত্রলীগ নেতা তুহিন দেওয়ান, আলিমুজ্জামান শিমুল, গোয়ালন্দ পৌর ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক রাতুল আহমেদ ও ধর্ষনের শিকার শিশুর বাবা। বক্তারা অভিযুক্ত ধর্ষকের ফাঁসি ও বিভিন্ন স্থানে যৌন হয়রানিকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানান।
মাদ্রাসা ছাত্রীর বাবা তার বক্তব্যে বলেন, আমার মেয়ের পড়া-লেখা, খাওয়া-দাওয়াসহ স্বাভাবিক জীবন নষ্ট হয়ে গেছে। সব সময় আতঙ্কের মধ্যে থাকে। তার মতো আর কোন মেয়ের ক্ষেত্রে যেন এমন জঘন্য ঘটনা আর না ঘটে। এ জন্য আমি ধর্ষক তরিকুলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি মৃত্যু দন্ড দাবী করছি। যাতে করে কোন লম্পট এমন কাজ করতে সাহস না পায়।

জানা যায়, গত ৪ এপ্রিল সন্ধ্যায় গোয়ালন্দ পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের হাউলি কেউটিল গ্রামে গোয়ালন্দ দাখিল মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে বাড়ির পাশ^বর্তী বাঁশ বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে তরিকুল ইসলাম রিমন। এসময় রিমন তাকে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে এ বিষয়টি প্রকাশ করতে নিষেধ করে। গত ১৫ এপ্রিল সন্ধ্যায় রিমন পূণরায় ওই ছাত্রীর বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে ওই ছাত্রী রিমনের হাত থেকে পালিয়ে প্রতিবেশীর বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে ঘটনা খুলে বলে। এ ঘটনায় ১৬ এপ্রিল ওই ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই দিনই অভিযুক্ত তরিকুল ইসলাম রিমনকে (২৮) গ্রেফতার করেছে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ।
অপরদিকে গত ১১ এপ্রিল চর দৌলতদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে স্থানীয় দুলাল মোল্লার ছেলে রানা (২০) ও হায়াত আলীর ছেলে আশরাফুল (১৮) নামের দুই বখাটে তার পথ রোধ করে ঝাপটে ধরে মুখে চুমা দেয়াসহ শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়। এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর মা বাদি হয়ে একই দিন দুই বখাটের বিরুদ্ধে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি এজাজ শফী জানান, ধর্ষণের অভিযোগ পেয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে অভিযুক্ত রিমনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপরদিকে চর দৌলতদিয়া এলকার স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানির ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারে জোড়ালো অভিযান চালানো হচ্ছে।
কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি

সম্প্রতি সংবাদ