ব্রেকিং নিউজ

দৌলতপুরে সমিতির নামে প্রতারনা প্রায় দুই কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। দুই জন আটক

editor ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ ২৪ এপ্রিল-২০১৯,বুধবার।
মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলা খলসী ইউনিয়নের ভররা নিউ সমিতির নির্বাহী পরিচালক মো: শাহিনুর ইসলাম দরজী(৩৫) নিরহ লোকজনকে উচ্চ সুদের লোভ দেখিয়ে প্রতারনা করে প্রায় দুই কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে । সমিতির  সদস্য প্রায় শতাধিক  পরিবার নি:স্ব হয়ে পড়েছে।

মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল আসল ও সুদের টাকা না পাওয়ায় প্রতারনার শিকার সমিতির সদস্যগন দৌলতপুর উপজেলা ভররা গ্রামে নিউ সমিতির নির্বাহী পরিচালক শাহিনুর ইসলাম দরজী ও সহযোগি সাইদুর রহমানের বাড়ি ঘেরাও করে । পরে দৌলতপুর থানা পুলিশ খবর পেয়ে দুই প্রতারককে আটক করে থানা নিয়ে আসে । শাহিনুর ইসলাম দরজী ভররা গ্রামের আরজত আলীর ছেলে ও সাইদুর রহমান একই গ্রামের আতোয়ার রহমানের ছেলে  ।

প্রতারনার শিকার ভররা গ্রামের জুলু মল্লিকের ছেলে জামাল মল্লিক জানান, প্রতি মাসে এক লাখে ৫০ হাজার সুদ এই লোভে পরে আমি মাসেই ভররা নিউ সমিতির সদস্য হই। প্রথমে ১ লক্ষ ৬০ হাজার জমা করি । পরে আমার ভাইদের নিকট থেকে টাকা নিয়ে ৪ লক্ষ ৩০ হাজারসহ বিভিন্ন সময় রিসিভের মাধ্যমে পর্যায় ক্রমে ১১ লক্ষ ৮০ টাকা জমা করি। আমি এখন পর্যন্ত কোন সুদের টাকা পাই নাই। আমার মতো শত শত মানুষ প্রতারিত হয়ে নি:স্ব।

প্রতারনার শিকার ভররা গ্রামের আব্দুস ছালামের ছেলে আলতাফ হোসেন জানান, আমার বাড়ি পাশের এক জন ঐ নিউ সমিতিতে সদস্য হয়ে এক লাখে মাসে ৫০ হাজার টাকা লাভ পেয়েছে । আমিও তার কথা শুনে ভর্তি হয়ে প্রথমে এক লাখ জমা করি । পরে পর্যায় ক্রমে ৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা জমা করি । আসল ও সুদের টাকা নিয়ে গড়িমশি করলে সদস্যরা সবাই মিলিত হয়ে শাহিনুর ইসলাম দরজী বাড়ি ঘেরাও করে ।

প্রতারনার শিকার ভররা গ্রামের নকীমুদ্দিনের ছেলে কাপড় ব্যবসায়ী নুর ইসলাম জানান,আমি উচ্চ সুদের কথা শুনে ৩ লক্ষ টাকা রিসিভের মাধ্যমে জমা করি । আমাকেও প্রতি মাসে লাখে ৫০ হাজার টাকা হারে সুদ দিয়েছে ।
প্রতি মাসে যে টাকা পেয়েছি সেই টাকা বাদ দিলে আরো ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা পাই ।

প্রতারনার শিকার ভররা গ্রামের আশোদ আলীর মেয়ে নাসিনা বেগম জানান,আমি চলতি মাসে উচ্চ সুদের আশায় ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করে ভররা নিউ সমিতিতে ৪ লক্ষ টাকা রিসিভের মাধ্যমে জমা দিয়েছি । আসল ও সুদের টাকা নিয়ে গড়িমশি করলে সদস্যরা সবাই মিলিত হয়ে শাহিনুর ইসলাম দরজীর বাড়ি ঘেরাও করে ।

আটক ভররা নিউ সমিতির নির্বাহী পরিচালক মো: শাহিনুর ইসলাম দরজী ও সহযোগি সাইদুর রহমান জানান,গত ৮/৯ মাস পূর্বে ভররা নিউ সমিতি নাম দিয়ে একটি এন.জি.ও করেছি । প্রায় ৫০ জন সদস্য নিয়ে সমিতির কার্যক্রম পরিচালনা করছি ।সদস্যদের কাছ থেকে টাকা আদায় করে এক সদস্যর টাকা আরেক সদস্যদের মাঝে সুদের টাকা হিসাবে দিতাম। সদস্যদের কাছ থেকে প্রায় দুই কোটি টাকা আদায় করা হয়েছিল । কিছু টাকা সদস্যদের ফেরৎ দেওয়া হয়েছে ।আমাকে পুলিশের ভয় দেখিয়ে ভররা গ্রামের জামাই রবংগাইলের মানু মিয়া এক বস্তায় ১৮ লাখ টাকা নিয়ে গেছে।সোমবার রাতে আরো ৯০ লাখ টাকা ছালার বস্তায় ভরে বাড়ির পাশে পুকুরে পানির নিচে লুকিয়ে রাখি । লুকিয়ে রাখা সেই টাকা কথা আমার সমিতির ম্যানেজার আব্বাস মিয়া জানতো । পরের দিন ( ২৩ এপ্রিল) পুকুরে রাখা সেই টাকা নিয়ে আব্বাস উধাও হয়ে গেছে বলে জানান নিউ সমিতির নির্বাহী পরিচালক মো: শাহিনুর ইসলাম দরজী ।
এবিষয়ে দৌলতপুর থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) সুনীল কুমার কর্মকার জানান, ভররা গ্রামে নিউ সমিতির নির্বাহী পরিচালক শাহিনুর ইসলাম দরজী ও সাইদুর রহমানকে সমিতির সদস্যরা পাওনা টাকার দাবিতে তাকে বাড়িতে অবরুদ্ধ করে রেখেছে খবর  পাই । পরে ভররা এলাকায় ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর প্রতারনার শিকার সমিতির সদস্যদের অভিযোগ শুনে প্রতারক দুই জনকে তাৎক্ষনিক আটক করা হয়। প্রতারনার শিকার ভররা গ্রামের জুলু মল্লিকের ছেলে জামাল মল্লিক বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছে । দৌলতপুর থানার মামলা নং-২৩।তারিখ-২৪/০৪/২০১৯ ইং । এ ঘটনায় জড়িত অন্যদের গ্রেফতারের চেস্টা চলছে ।

কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি

সম্প্রতি সংবাদ