শিবালয়ে কান্তাইবতি নদী খনন প্রকল্পের নামে চলছে অবৈধ ড্রেজার ব্যবসার অভিযোগ উঠেছে

editor ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

শিবালয় (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি: ১১মে.-২০১৯ শনিবার।
মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের উথুলী নামক এলাকার মাঝ খান দিয়ে বয়ে গেছে কান্তাইবতি নদী। উথুলী ইউনিয়নের উথলী থেকে জাফরগঞ্জ পযন্ত বয়ে যাওয়া ঐ কান্তাইবতি নদী খননের নামে বাসাইল এলাকায় অবৈধ ভাবে ড্রেজারের মাধ্যমে মাটি উত্তোলন করে বানিজ্যিক ভাবে বিক্রয়ের অভিযোগ উঠেছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ও স্থানীয় এক প্রভাবশালী বিরুদ্ধে ।
জানা গেছে,বিগত এক মাস পূর্বে উক্ত নদীটি পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক ১,১১,১৯০৩০ টাকার বরাদ্দের মাধ্যমে নদী খনন প্রকল্পের কাজ শুরু করে । কাজটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের নাম মো: ইউনুস এন্ড ব্রাদার্স (প্রা) লিঃ, এ এস টাওয়ার 8ম তলা,রোড 1,হিলভিউ আবাসিক এলাকা চট্রগ্রাম । এরই পরিপেক্ষিতে কাজের সিডিউলের বাইরে ঠিকাদার নিজে এবং স্থানীয় প্রভাবশালী মোহন মিয়ার সহযোগিতায় কান্তাইবতি নদীতে বাসাইল এলাকায় অবৈধ ড্রেজার স্থাপন করে পার্শবর্তি এলাকায় মাটি বিক্রয়ের রমরমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে ।

শনিবার বিকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ঝুকিতে রয়েছে নদীর পাশের তিন ফসলি কয়েক শত বিঘা জমি এবং উথলী থেকে জাফরগঞ্জ গামী পাকা রাস্তা, দুইটি বাজার।
স্থানীয় কৃষক ও এলাকা বাসী জানান, এভাবে ড্রেজার দিয়ে মাটি উত্তোলন করতে থাকলে এলাকার রাস্তা ঘাট ও কয়েক শত বিঘা ফসলি জমি ধসে পরবে।

ঠিকাদারের ম্যানেজার মোঃ আসাদুল হক এর কাছে এই বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন , ভেকু দিয়ে মাটি কাটতে না পারার কারণে আমার ড্রেজার স্থাপন করেছি এবং এলাকার মানুষ টাকা দিয়ে মাটি কিনে নিচ্ছে। তিনি আরও বলেন স্থানীয় প্রভাবশালী মোহন মিয়ার সহযোগিতায় আমরা ড্রেজারের মাধ্যমে মাটির বিক্রি করছি ।

এ বিষয়ে শিবালয় উপজেলার নির্বাহী অফিসার ফিরোজ মাহমুদ এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন এই ড্রেজার চালানোর বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান চলমান রয়েছে। ####

কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি

সম্প্রতি সংবাদ