দেশে ফেরার ১০ ঘণ্টা পর প্রবাসী স্বামীকে হত্যার অভিযোগ, স্ত্রীসহ আটক ৩

editor ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

বেনাপোল প্রতিনিধি:১৫ মে, ২০১৯,বুধবার।
বেনাপোলে পরকীয়া প্রেম টিকিয়ে রাখতে স্ত্রী আয়েশা বেগম বিদেশ থেকে ফিরে আসা স্বামী জামাল হোসেনকে (৩৬) প্রেমিকের সহযোগিতায় কুপিয়ে হত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। দেশে ফেরার ১০ ঘণ্টা পর এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। বুধবার নিজ বাড়ির বেডরুমে স্ত্রী আয়েশা তার স্বামীকে প্রেমিক ও নিজ মায়ের সহযোগিতায় হত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক পুলিশ আয়েশা ও তার মা-বাবাকে আটক করেছে। নিহত জামাল হোসেন বেনাপোল পোর্ট থানার ধান্যখোলা গ্রামের হবিবর রহমানের ছেলে।

আটককৃতরা হলো- নিহত জামালের স্ত্রী আয়েশা বেগম, শ্বশুর রিয়াজুল ইসলাম টুকু ও শাশুড়ি ফুলবুড়ী।

নিহত জামাল হোসেনের বাবা হবিবার রহমান অভিযোগ করে বলেন, ‌‘আমার ছেলে প্রায় ১৫ বছর যাবৎ মালয়েশিয়ায় থাকে। একই গ্রামের রিয়াজুলের মেয়ে আয়েশার সঙ্গে তার বিয়ে হয় প্রায় ১৫ বছর আগে। আর এই ১৫ বছরে তার ছেলে মালয়েশিয়া থেকে মাত্র ৩ বার বাড়িতে এসেছে। তার বাড়ি না থাকার কারণে স্ত্রী আয়েশা এলাকার বিভিন্ন ছেলের সঙ্গে প্রেম করত। প্রায় কারো না কারো সঙ্গে সে মোটরসাইকেলে বাড়ি থেকে বের হয়ে দুই তিন দিন পর বাড়ি ফিরত। আমার ছেলে আলাদা করে বিল্ডিং তৈরি করেছে, সেই বাড়িতে আয়েশা ও তার মা-বাবা বসবাস করত।’

নিহত জামাল মঙ্গলবার বেলা ২ টার দিকে মালয়েশিয়া থেকে বাড়ি ফিরে আসেন। আর রাত ১২ টায় তার বুকে পেটে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে আয়েশা তার মা ফুলবুড়ি ও ভাড়াটিয়া লোকজন। তবে কার সঙ্গে তার পরকিয়া ছিল- সেটা তিনি জানাতে পারেননি।

নিহত জামালের মায়ের অভিযোগ, তার ছেলেকে বউ আয়েশা ও শাশুড়ি ফুলবুড়ি পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। তাদের দুইজনকে উপযুক্ত শাস্তিসহ ফাঁসির দাবি করেন তিনি।

বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি (তদন্ত ) আলমগীর হোসেন বলেন, লাশ উদ্ধার করে যশোর মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যার তদন্তের জন্য নিহত জামালের স্ত্রী আয়েশা,শাশুড়ি ফুলবুড়ি ও শ্বশুর রিয়াজুল ইসলাম টুকুকে আটক করা হয়েছে। এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আর কারা জড়িত রয়েছে তা তদন্ত করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি মামলা হয়েছে।

কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি

সম্প্রতি সংবাদ