‘সন্ত্রাসবাদের হোতা’ তকমা দূর করতে তারেকের নির্দেশে ভারত সফরে যাবে বিএনপি!

editor ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ জাতীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক:২৭ মে-২০১৯,সোমবার।

ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনে বিপুল ব্যবধানে জয়ী ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) সঙ্গে সম্পর্ক ঝালাই করার নতুন মিশনে নেমেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

বিজেপিকে ম্যানেজ করে বেগম জিয়ার মুক্তি, রাজনীতিতে স্পেস আদায় এবং আটক নেতাকর্মীদের মুক্তির জন্য সরকারের কাছে তদবির করাতে চান তারেক। সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু, স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে দায়িত্ব দিয়েছেন তারেক রহমান। যুক্তরাজ্য বিএনপির দু’জন নেতার মারফত তথ্যের সত্যতা সম্পর্কে জানা গেছে।

এ বিষয়ে লন্ডন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমদ জানান, আঞ্চলিক রাজনীতিতে ভারতের গুরুত্ব বিবেচনা করে অতীতের ভুলের রাজনীতির পুনরাবৃত্তি করতে চায় না বিএনপি। দেশের রাজনীতিতে বিএনপির যে অবস্থা, তাতে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের সহায়তা ছাড়া দলের ঘুরে দাঁড়ানো সহজ হবে না। এমন বিবিধ বিষয় বিবেচনা করে ভারত সফরের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, রাজনীতিতে বিএনপির স্পেস দরকার। সেজন্য শক্তিশালী প্রতিবেশি রাষ্ট্রের সহায়তা দরকার। বিজেপি সরকারের মাধ্যমে তাই সরকারকে চাপ দিয়ে বেগম জিয়ার মুক্তি, সকল রাজবন্দীদের মুক্তি আদায় এবং রাজনীতিতে ছাড় পাওয়ার আশায় বিজেপি সরকারের সঙ্গে সম্পর্ক ঝালাই করতে চান তারেক রহমান। সেজন্যই আব্দুল আউয়াল মিন্টু ও আমির খসরুকে এই দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ঈদুল ফিতরের পর তারেক রহমানের নির্দেশনা অনুযায়ী ভারত সফর করবেন এই দুই নেতা।

তারেকের এমন পরিকল্পনা সম্বন্ধে বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, ২৪ মে রাতে মিন্টু ও আমির খসরুকে ফোন করে নতুন ভারতীয় মিশনের ব্যাপারে নিজের সিদ্ধান্ত জানায় তারেক। যদিও জঙ্গিবাদ, আঞ্চলিক সন্ত্রাসবাদ উত্থানের জন্য বিএনপিকে দায়ী মনে করে ভারত। বিএনপি নিজের গায়ের কালিমা দূর করে ভারতকে কাছে পেতে চায়। যার কারণে এই সফর আয়োজন করা হবে। বিএনপির পরিবর্তিত আঞ্চলিক রাজনৈতিক দর্শনের চিত্র তুলে ধরে বিজেপিকে ম্যানেজ করাই হবে এই সফরের মূল উদ্দেশ্য।

সম্প্রতি সংবাদ