ব্রেকিং নিউজ

গনতন্ত্র ও দেশ রক্ষার আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে যুবদল

editor ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি:২৯ মে-২০১৯,বুধবার।
ব্যক্তিস্বার্থের উর্ধ্বে উঠে ঐক্যবদ্ধভাবে গনতন্ত্র ও দেশ রক্ষার আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে যুবদলের নেতা-কর্মীরা। মঙ্গলবার মানিকগঞ্জ জেলা শহরের সেওতা এলাকায় জেলা যুবদলের সভাপতি কাজী রায়হান উদ্দিন টুকুর বাসভবনে জাতীয়তাবাদী যুবদল মানিকগঞ্জ জেলা শাখার কার্যনির্বাহী কমিটির সভা ও শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৮তম শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত দোয়া ও ইফতার মাহফিলে এমন অঙ্গিকার ব্যক্ত করলেন দলটির সাবেক ও বর্তমান নেতা-কর্মীরা।

জেলা যুবদলের সভাপতি কাজী রায়হান উদ্দিন টুকুর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক কাজী মোস্তাক হোসেন দীপু ও সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান প্রিন্সের সঞ্চালনায় এই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা যুবদলের প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক ও কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক প্রচার সম্পাদক গোলাম মহীয়ার খান শিপার, জেলা যুবদলের সাবেক আহবায়ক ও জেলা বিএনপি’র আহবায়ক অ্যাডভোকেট জামিলুর রশীদ খান, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি ও জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক আতাউর রহমান আতা, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য, জেলা যুবদলের সাবেক সহ-সভাপতি ও জেলা বিএনপি’র সদস্য-সচিব এস এ জিন্নাহ কবীর, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি ও জেলা বিএনপি’র যুগ্ম-আহবায়ক মাকসুদুর রহমান মুকুল, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি ও জেলা বিএনপি’র যুগ্ম-আহবায়ক মোতালেব হোসেন, জেলা যুবদলের সাবেক সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন আহাম্মেদ যাদু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শরীফ ফেরেদৌস, জেলা শ্রমিক দলের সভাপতি আব্দুল কাদের, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি রিয়াজ মাহমুদ হারেজ, সহ-সাধারন সম্পাদক আরিফ হোসেন, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক গোলাম রব্বানী, যোগাযোগ সম্পাদক মোসলেম আলী, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম সজীব, সাধারণ সম্পাদক নুরশাদ উল ইসলাম জ্যাকি প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, আওয়ামী দুঃশাসনে আজ দেশের মানুষ জর্জরিত। মানুষের বাক-স্বাধীনতা নেই। জানমালের নিরাপত্তা নেই। স্বাভাবিক মৃত্যূর গ্যারান্টি নেই। একজন শহীদ রাষ্ট্রপতির স্ত্রী, তিনবারের প্রধান মন্ত্রী, যিনি কখনো অন্যায়ের সাথে আপোষ করেননি, সেই বিশ^বরেণ্য নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বিনা অপরাধে, মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে কারাগারে আটকে রেখেছেন। হাজার হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা, শত শত নেতা-কর্মীকে গুম-হত্যা করে একদলীয় শাসন ব্যবস্থা কায়েম করছে ফ্যাসীবাদী সরকার। তাদের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছেন না সাধারণ খেটে খাওয়া কৃষক-মজুর। নারী ধর্ষণের রেকর্ড হয়েছে। দেশের শাসন ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। এই জালেমদের হাত থেকে দেশকে রক্ষা ও গণতন্ত্রকে রক্ষার আন্দোলনে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।

তারা বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা এবং স্বাধীনতার ঘোষক। মুক্তিযুদ্ধে তার ছিল অসামান্য অবদান। তিনি বেঁচে থাকলে দেশ আরো এগিয়ে যেত, উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হতো।

তারা আরো বলেন, শহীদ জিয়া আজ আমাদের মাঝে নেই। কিন্তু তার আদর্শ আছে দেশের লাখো মানুষের অন্তরে। শহীদ জিয়ার হাতে গড়া দল বিএনপি’র চালিকাশক্তি হচ্ছে যুবদল। দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে, গনতন্ত্র ও দেশ রক্ষা আন্দোলনে যুবদলকেই অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।

দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি, তারেক রহমানসহ অগণিত নেতাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, সকল রাজবন্দীদের মুক্তির দাবী জানান তারা। আলোচনাসভাশেষে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানটি সাবেক ও বর্তমান যুবদলের নেতা-কর্মীদের মিলন মেলায় পরিনত হয়।

এরআগে, অনুষ্ঠানের শুরুতে দলের প্রয়াত নেতাকর্মীদের স্মরণে এক মিনিট দাড়িয়ে নিরবতা পালন করেন। কাজী রায়হা উদ্দিন প্রয়াত নেতাকমর্েিদর নাম পাঠ করেন। তারা হলেন- সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট নিজাম উদ্দিন খান, সাবেক এমপ ও মন্ত্রী শামসুল ইসলাম নয়া মিয়া, সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট আব্দুল ওয়াহাব খান, সাবেক এমপি ও চফি হুইপ অ্যাডভোকেট খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন, সাবেক এমপি ও মন্ত্রী হারুণার রশীদ খান মুন্নু এবং যুবদলের নেতা হারুনুর রশীদ হারুন, খোরশেদ আলম রানা, কাবুর খান, শাহেদুল ইসলাম পলাশ, নুরে আলম চৌধুরী মান্নান ও আবুল কালাম বিশ^াস।

কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি

সম্প্রতি সংবাদ