বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে রণক্ষেত্র পশ্চিমবঙ্গ, নিহত ৫

editor ৭ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ আন্তর্জাতিক

কালের কাগজ  ডেস্ক :০৯ জুন -২০১৯,রবিবার।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগণায় বিজেপি এবং তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের সংঘর্ষে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে ও আরও চারজন নিখোঁজ রয়েছেন। দলীয় পতাকা সরানোকে কেন্দ্র করে সন্দেশখালির নাইজাটে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। শনিবার (০৮ জুন) স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় জেলাটির সন্দেশখালী এলাকার ন্যাজাটে পার্টি অফিসে দলীয় পতাকা সরানোকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষের পর ওই এলাকায় বিপুল পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি ভয়াবহ হওয়ায় স্থানীয় অনেকেই এলাকা থেকে অন্য জায়গায় সরে যাচ্ছেন।

পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগণায় বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষে দুই পক্ষের অন্তত পাঁচজন নিহত হওয়ার দাবি করা হয়েছে। বিজেপির দাবি, তৃণমূল কংগ্রেসের হামলায় তাদের চার কর্মীকে প্রাণ হারাতে হয়েছে। আর তৃণমূলের দাবি, বিজেপিই তাদের ওপর হামলা চালায় এবং এক কর্মী নিহত হয়। প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী ধরে চলা সংঘর্ষে ওই এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। নিহতরা সবাই গুলিবিদ্ধ হয়েছে মারা গেছে বলে নিশ্চিত করেছে দেশটির পুলিশ। ঘটনার পর এলাকায় টহল জোরদার করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, শনিবার সন্ধ্যায় সন্দেশখালীতে বুথ কমিটির বৈঠক হচ্ছিল। এসময় পার্টি অফিসে লাগানো পতাকা সরানোকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। যে পার্টি অফিসে বুথ কমিটির বৈঠক হচ্ছিল, সেখানে কয়েকদিন আগে বিজেপি তাদের দলীয় পতাকা লাগিয়ে দেয়। শনিবার সে পতাকা নামিয়ে নিজেদেরটা লাগাতে চান তৃণমূলের কর্মীরা। এতে বাধা দেয় বিজেপি। পরে শুরু হয়ে যায় পাল্টাপাল্টি আক্রমণ।

রাজ্যের বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু দাবি করেছেন, সংঘর্ষে তাদের দলের পাঁচ কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি বলেন, পাঁচ বিজেপি কর্মীর মৃত্যু হয়েছে এবং এদের মধ্যে সুজিত মণ্ডল, তপন মণ্ডল ও সুকান্ত মণ্ডল নামে তিনজনের মরদেহ পাওয়া গেছে। বাকি দু’জনের মরদেহ পুলিশ সরিয়ে ফেলেছে বলে আমাদের কাছে খবর এসেছে।

অন্যদিকে, তৃণমূল নেতা জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, আমাদের এক তৃণমূল কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। বিজেপির কর্মীরা তাকে মেরে ফেলেছে। তার মাথায় গুলি করা হয়েছে। বিজেপি যদি মারার রাজনীতি শুরু করে আমরাও ছাড়ব না।

এই ঘটনায় সরাসরি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। পাশাপাশি পুরো বিষয়টি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে জানানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বিজেপির দীর্ঘদিনের অভিযোগ, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করে তাদের কর্মীদের ভয় দেখানোর চেষ্টা করছে তৃণমূল কংগ্রেস। গত ৬ বছরে রাজনৈতিক সংঘর্ষে তাদের ৫৪ জন কর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে বিজেপি।

সম্প্রতি সংবাদ