মাানিকগঞ্জে বিএনপির থেকে গন পদত্যাগের আভাস এক উপজেলার একযোগে ২৭ সদস্যের ২৩ জনের পদত্যাগ

editor ৬ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ breaking সারাদেশ

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ ১৬ সেপ্টেম্বর-২০১৯,সোমবার।

মানিকগঞ্জ জেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটি কর্তৃক সদ্যঘোষিত সাতটি উপজেলা এবং দুইটি পৌরসভার আহবায়ক কমিটি বাতিলের দাবীতে সংবাদ সম্মেলনের পর এবার গন পদত্যাগ শুরু হয়েছে। গতকাল সোমবার শিবালয় উপজেলার ২৭ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির ২৩জনই এক যোগে পদত্যাগ করেছেন।

এই গনপদত্যাগের বিষয়ে জেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির অন্যতম যুগ্ম-আহবায়ক তোজাম্মেল হক তোজা জানালেন, যোগ্য ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে কমিটি গঠন করায় সাতটি উপজেলার মধ্যে ৬টি উপজেলাসহ মানিকগঞ্জ পৌর আহবায়ক কমিটির প্রায় সকল সদস্যই পর্যায়ক্রমে পদত্যাগ করার সম্ভবনার রয়েছে।

জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির আহবায়কের বরাবরে লেখা শিবালয় উপজেলার নবগঠিত আহবায়ক কমিটির পদত্যাগী নেতারা তাদের পদত্যাগে উল্লেখ্য করেছেন,দলের ত্যাগী,পরীক্ষিত,জেলা খাটা মামলার শিকার নেতাদের বঞ্চিত ও অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। এছাড়া গঠিত উপজেলা আহবায়ক কমিটিতে এছাড়া তারা আরো উল্লেখ্য করেছেন গত সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকে সীল দেওয়া ব্যক্তিদেরও কমিটিতে স্থান দেওয়া হয়েছে। এছাড়া কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে জৈষ্ঠতা লংঘন করার অভিযোগ করা হয়।

এপ্রসঙ্গে পদত্যাগী শিবালয় উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির এক নম্বর যুগ্ম আহবায়ক সত্যেনকান্ত পন্ডিত ভজন জানালেন, উপজেলা পর্যায়ে যে আহবায়ক কমিটি করা হয়েছে তাতে দলের গতি ফিরে আসবেনা। উল্টো দলের অভ্যন্তরে হ-য-ব-র-ল পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে। তিনি সহ তার ২৭ সদস্যেও ২৩ জন একযোগে পদত্যাগ পত্রে স্বাক্ষর দিয়েছেন।

এরআগে গত ১৪ সেপ্টম্বর দুপুরে বিএনপির নবগঠিত সাতটি উপজেলা ও দুটি পৌর কমিটির আহবায়ক কমিটিকে পকেট কমিটি আখ্যা দিয়ে বিএনপির একাংশ মানিকগঞ্জ প্রেসকাবে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। ওই সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির যুগ্ম-আহবায়ক অ্যাডভোকেট আজাদ হোসেন খান, আব্দুল কুদ্দুস খান মজলিশ মাখন ও তোজাম্মেল হক তোজা, সদস্য আব্দুল বাতেন, নাসির উদ্দিন আহাম্মেদ যাদু, এস এম এম ইকবাল হোসেন, অ্যডভোকেট মেজবাউল হক মেজবা, অ্যাডভোকেট আরিফ হোসেন লিটন, অ্যাডভোকেট গোলাম মোস্তফা, আব্দুল কাদের, গোলাম রফি অপুসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ওই সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা অভিযোগ করেন, স্বয়ং জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির আহবায়ক অ্যাডভোকেট জামিলুর রশীদ খান, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আতাউর রহমান আতা, যুগ্ম-আহবায়ক মোতালেব হোসেন এবং সদস্য-সচিব এস এ কবীর জিন্নাহ স্বেচ্ছাচারী কায়দায় দলের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাদের বাদ দিয়ে নিজেদের পছন্দের ব্যক্তি দিয়ে সাতটি উপজেলা এবং দুইটি পৌরসভা কমিটি করেছে। এই কমিটিকে পকেট কমিটি উল্লেখ করে সেগুলি বাতিল করে ত্যাগী নেতাদের দিয়ে কমিটি গঠনের দাবী জানান।
সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, বিভিন্ন উপজেলা ও পৌরসভার কমিটিতে এমনও ব্যক্তির নাম রয়েছে যারা গত এক যুগের বেশী সময়ের ধরে দলের সাথে কোন সম্পৃক্ততা নেই। এছাড়া সরকারি চাকুরী জীবী, মাদকাসক্ত ব্যক্তিকেও রাখা হয়েছে ।
উল্লেখ্য, চলতি বছরের পহেলা মে জেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটি গঠন হয়। এই কমিটির আহবায়ক অ্যাডভোকেট জামিলুর রশীদ খান, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আতাউর রহমান আতা এবং সদস্য-সচিব এস এ কবীর জিন্নাহ ১১ সেপ্টেম্বর ২৭ সদস্যবিশিষ্ট ৭টি উপজেলা এবং ২টি পৌর কমিটির অনুমোদন করেন।

জেলা আহবায়ক অ্যাডভোকেট জামিলুর রশীদ জানান যারা সংবাদ সম্মেলন করেছেন মুলত তারাই দলের ষড়যন্ত্রকারী। তারা চায়না ঝিমিয়ে থাকা বিএনপি গতিশীল হোক। তারা সরকার দলীয় নেতাদের বিশেষ সুবিধা দিতে সংবাদ সম্মেলন করেছিলো। এছাড়া তিনি আরো জানালেন, ইতিমধ্যে যারা পদত্যাগ করেছেন তাদেরকে দলের ষড়যন্ত্রকারীরা পদত্যাগে বাধ্য করেছেন।

সম্প্রতি সংবাদ