ছাত্ররাজনীতি বন্ধ না করে বরং শিক্ষকরা পেশাজীবি রাজনীতি বন্ধ করুন —হানিফ

editor ২৯শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ breaking slider-top প্রধান খবর

আব্দুস সামাদ আজাদ, মৌলভীবাজার :১৩ অক্টোবর-২০১৯,রবিবার।

আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মহাবুবুল আলম হানিফ বলেছেন, দলীয় লেজুরবৃত্তির রাজনীতির কারনে ছাত্রদের উপর থেকে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছেন শিক্ষকরা। ছাত্ররা এখন আর শিক্ষকদের সন্মান করে না। আজকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা ভিসি হওয়ার জন্য, বিভিন্ন পদপদবী পাওয়ার জন্য লবিং করেন৷
তিনি বলেন, ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করার জন্য একশ্রেণির লোক উঠেপড়ে লেগেছে। কিন্তু ছাত্র রাজনীতির গৌরবউজ্জল একটা ইতিহাস আছে। দেশের স্বাধীনতা অর্জনে এই ছাত্ররাই সবচেয়ে বড় অবদান রেখেছে। ছাত্ররাজনীতি বন্ধ না করে বরং শিক্ষকরা পেশাজীবি রাজনীতি বন্ধ করুন। শিক্ষকরা পেশাজীবি রাজনীতিতে যুক্ত হওয়ার কারণে ছাত্রদের কাছ থেকে সম্মান হারাচ্ছেন।

রোববার (১৩ অক্টোবর) শ্রীমঙ্গল উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সকালে পুরান বাজার এলাকায় প্রথমে জাতীয় ও পরে দলীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে এ সম্মেলনের প্রথম পর্ব শুরু হয়৷

প্রধান অতিথির মাহবুবুল আলম হানিফ আরও বলেন, এলপিজি গ্যাস আমাদের দেশে তৈরী হয় না। বিদেশ থেকে আমদানী করে এটাকে প্রক্রিয়াজাত করে সিলিন্ডারে করে বিক্রি করা হয়৷ সেই এলপিজি গ্যাস বিদেশ থেকে আমদানি করে প্রক্রিয়াজাত করে সিলিন্ডারে করে ভারতের ত্রিপুরাসহ আশেপাশের রাজ্যগুলোতে আমরা রপ্তানি করবো। সেজন্য আমরা বাংলাদেশে ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট করবো৷ এতে দেশের ক্ষতি হবে না।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের সকল স্তরের নেতা কর্মীদের একজোট হয়ে কাজ করতে হবে। বিএনপি জামায়াত ক্ষমতায় আসলে আমাদের কর্মীদের নির্যাতন করবে তাই সেই সব অপশক্তিকে একাট্টা হয়ে আমাদের রুখতে হবে৷

সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন৷ বিশেষ বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিছবাহুর রহমান।

সম্মেলনের উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহমেদ এমপি। সাধারণ সম্পাদকের প্রতিবেদন পাঠ করেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ মান্নান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অধ্যাপক রফিকুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ এমপি, সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি বদর উদ্দিন কামরান প্রমুখ।

কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি

 

সম্প্রতি সংবাদ