চিকিৎসা করাতে পারছে না মণিরামপুরে ভ্যান চালক সালামের

editor ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি :২৪ মার্চ-২০২০,মঙ্গলবার।

গত ১মাস ধরে চিকিৎসা করানোর পর এখন অর্থভারে চিকিৎসা করাতে পারছে না মণিরামপুরের ভ্যান চালক আব্দুল সালামের। উপজেলার নেহালপুর গ্রামের জয়নাল আলীর ছেলে আব্দুল সালাম এখন ঢাকা সলিমুল্যাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে শুয়ে কাতরাচ্ছেন। ভ্যান চালক আব্দুল সালামের স্ত্রী আকলিমা বেগম জানান, পরিবারের একমাত্র কর্মক্ষম স্বামীর চিকিৎসা ব্যয়তো দূরের কথা। পরিবারের ৬ সদস্যের দু’বেলা দু’মুঠো খাবার তুলে দিতে বাধ্য হয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে এখন ঘুরে বেড়াচ্ছি। তবুও স্বামী আব্দুল সালামকে চিকিৎসা নিয়ে বাঁচতে চাই।
জানা যায়, ভ্যান চালক সালাম চলতি বছরের ২৩ ফেব্রয়ারী অভয়নগর উপজেলার রাজঘাট নামক স্থানে খুলনাগামী দ্রুত পরিবহনের আঘাতে মারাত্মকভাবে আহত হয়। আহত সালামকে তাৎক্ষনিকভাবে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকগন তাৎক্ষনিকভাবে খুলনা ২৫০ শষ্যা হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখান থেকে ২৪ ফেব্রয়ারী ইউনিহেলথ স্পেলাইজড হাসপাতাল। গত ৩ মার্চ মস্তিষ্কে আঘাত জনিত কারনে অবস্থার অবনতি হলে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার স্থানন্তর করা হয় ঢাকা সলিমুল্যাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। বর্তমানে ওই হাসপাতালের আই.সি.ইউ-তে ভর্তি রয়েছে আব্দুল সালাম। বর্তমানে সালাম একপ্রকার মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। অদ্যাবদি তার জ্ঞান এখন ফেরেনি।
তার স্ত্রী আকলিমা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে জানান, ইতিমধ্যে স্বামীর চিকিৎসা জনিত কারনে ৫ লক্ষাধিক টাকা ব্যয় হয়ে গেছে। এখন তার চিকিৎসার জন্য বিক্রয়যোগ্য কোন সম্পদ তাদের অবশিষ্ট নেই। মেয়েদের নিয়ে না খেয়ে দিন যাপন করছি। আমার স্বামী একজন গরিব ভ্যান চালক ছিলেন। আমাদের দুইটি কন্যা সন্তান রয়েছে। সে ভ্যান চালিয়ে ছেলেমেয়ে নিয়ে ৬ সদস্যর সংসার জীবন পরিচালনা করে আসছিল। এখন আমার স্বামীর চিকিৎসার জন্য মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছি। পরিবারের একমাত্র কর্মক্ষম ব্যক্তিকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবান, দানশীলদের সহযোগিতা কামনা করেছেন স্বজনরা ও তার স্ত্রী। আর্থিক সাহায্য প্রদান করতে চাইলে ইসলামী ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং, নেহালপুর কালিবাড়ী বাজার শাখা হিসাব নং ২০৫০৭৭৭০২৩৬২৩২৯১৫ অথবা বিকাশ নং ০১৭১৩-৯২১১০২ যোগায়োগ করলে উপকৃত হবো।

মোঃ আবু বক্কার সিদ্দীক

সম্প্রতি সংবাদ