ব্রেকিং নিউজ

বগুড়ায় একই দিনে সড়কে প্রাণ গেল ৮ জনের

editor ১৮ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ breaking সারাদেশ

বগুড়া প্রতিনিধি :২৫ মার্চ ২০২০, বুধবার।
বগুড়ার শেরপুরে পৃথক তিনটি সড়ক দুর্ঘটনায় ৮ জন নিহত হয়েছেন। এ সব ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৮ জন।

বুধবার সকালে শেরপুর উপজেলার ঘোগা বটতলা ও মহিপুর জামতলা এবং বিকালে ধনকুন্ডি এলাকায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে দুর্ঘটনাগুলো ঘটে।

আহতদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শেরপুর থানার ওসি হুমায়ুন কবির এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ দিকে নিহতদের মধ্যে ছয়জনের নাম পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার দক্ষিণ কাজীরহাট গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে মো. আলিম, একই গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে রকিব ইসলাম, অপিয়ার রহমানের ছেলে রাজু, জয়নাল আবেদীনের ছেলে সাদ্দাম হোসেন ও মোরশেদ আলীর ছেলে মঞ্জুরুল ইসলাম এবং জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার ছেঁচড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে মৃদুল হোসেন (২২)।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বগুড়া ছেড়ে আসা ঢাকার বাইপাইলগামী লাব্বাইক পরিবহনের একটি বাস বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বগুড়ার শেরপুরের ঘোগা বটতলা এলাকায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে পৌঁছে। এ সময় ঢাকা ছেড়ে আসা বগুড়াগামী লবণ বোঝাই একটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এতে ট্রাকটি মহাসড়কের পাশে খাদে পড়ে গেলে লবণের বস্তার ওপর থাকা চার যাত্রী নিহত এবং ১০ জন আহত হয়। শেরপুর থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা হতাহতদের উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে পাঠায়।

বগুড়ার ছিলিমপুর মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আবদুল আজিজ মণ্ডল জানান, দুপুরে শজিমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দু’জনসহ মোট ছয় ট্রাকযাত্রী মারা গেছেন।

শেরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার মহিপুর জামতলা এলাকায় পাথর ও লবণ বোঝাই দুটি ট্রাকের সংঘর্ষে মৃদুল হোসেন নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

তিনি আরও জানান, বুধবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার ধনকুন্ডি এলাকায় ঢাকাগামী একটি ফাঁকা মাইক্রোবাস শেরপুরের ধনকুন্ডি এলাকায় পৌঁছে। এ সময় বগুড়াগামী একটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মাইক্রোবাসের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে চালক ভেতরে আটকা পড়েন।

শেরপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ছিলিমপুর মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আবদুল আজিজ মণ্ডল জানান, নিহত মাইক্রোবাস চালকের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। লাশ মর্গে রয়েছে।

সম্প্রতি সংবাদ