ব্রেকিং নিউজ

বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা যতো দিন ক্ষমতায় আছে একজন মানুষও না খেয়ে মারা যাবে না– পানি সম্পদ সচিব

editor ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ breaking সারাদেশ

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ ১৪ মে-২০২০,বৃহস্পতিবার।
পানি সম্পদ মন্ত্রনালয় সচিব কবির বিন-আনোয়ার বলেছেন, জাতি জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতোদিন ক্ষমতায় আছে একজন মানুষও না খেয়ে মারা যাবে না । বর্তমান সরকার খাদ্যে শয়ংসম্পূর্ন খাদ্য গুদামে ব্যাপক খাদ্য সামগ্রী মজুদ রয়েছে ।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করবেন তিনি যেন চরাঞ্চলের মানুষের দু:খ দুরদর্শায় লাগোবে আপনাদের পাশে থেকে সেবা করতে পারেন । কেউ যদি খাদ্য সামগ্রী না পেয়ে থাকেন তাহলে আমাদের ফোন নাম্বারে ফোন করার সাথে সাথে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে আপনাদের ঘরের দরজায় পৌছে যাবে আমাদের লোকজন। যারা লাইনে দাঁড়িয়ে ত্রাণ নিতে পারেন না মানিকগঞ্জ জেলায় এমন আট হাজার লোকের টেলিফোন পেয়ে তাদের ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়েছে। মানিকগঞ্জ জেলায় এখন পর্যন্ত ১ লাখ ২১ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। আরো ৭শ’ মেট্রিকটন খাদ্য মজুদ রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে জেলায় আরো ৫২ হাজার পরিবারে নগদ আড়াই হাজার টাকা করে দেয়ার প্রস্ততি চলছে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে মানিকগঞ্জ জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব কবির বিন আনোয়ার দৌলতপুর উপজেলার যমুনা নদীর পশ্চিম পাড়ে বাচামারা ইউনিয়নের কল্যানপুর চরে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে ২শ পরিবারের মধ্যে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি তেল,১ কেজি ডাল ও ৬৮ পরিবারের মধ্যে শিশু খাদ্য বিতরন করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন,বাপাউবি মানিকগঞ্জ জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মাঈন উদ্দিন , অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান, দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম রাজা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসলিমা মোস্তারী,উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি)জুয়েল আহমেদ,থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল করিম, উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন আবুল,জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ফরিদ আহম্মেদ, উপজেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহানারা আক্তার জেনী ,উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো: সাইফুল ইসলাম,বাচামারা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ,বাঘুটিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন,চরকাটারী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক মন্ডল, ।
নদী ভাঙ্গনের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সচিব কবির বিন আনোয়ার বলেন, দেশের প্রধান নদী পদ্মা-যমুনার পশ্চিম ও পূর্বতীর রক্ষায় সরকারী ভাবে কাজ চলমান রয়েছে। পশ্চিমের ২৩৭ কিলোমিটার স্থায়ী বাঁধের কাজ শেষ হয়েছে। পূর্বের জামালপুর থেকে টাঙ্গাঈল ও মানিকগঞ্জ জেলার হরিরামপুর চিহ্নিত এলাকায় নদী ভাঙ্গন রোধে দ্রুত কাজ শুরু করা হবে।

সম্প্রতি সংবাদ