ব্রেকিং নিউজ

ত্রাণ বিতরণে অনিয়মে এমপি নূর মোহাম্মদের হুঁশিয়ারি

editor ১১ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি:১৪ মে ২০২০,

সরকারি ত্রাণ বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ এনে পদত্যাগকারী এক আওয়ামী লীগ নেতার প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে কঠোর হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন পুলিশের সাবেক আইজিপি ও কিশোরগঞ্জ-২(কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের এমপি নূর মোহাম্মদ।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টা ১৮ মিনিটে তার ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডির টাইমলাইনে ত্রাণ কমিটি থেকে পদত্যাগকারী নেতা পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মোতায়েম হোসেন স্বপনকে উদ্দেশ্ করে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, আজকে যোগাযোগ মাধ্যমে দেখলাম ত্রাণ কমিটির অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে আপনি পদত্যাগ করেছেন। প্রথম সভায় যোগদান করেই আপনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সবার বিরুদ্ধে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

আপনার কথাগুলো অস্পষ্ট। নির্দিষ্ট করে কিছু বলেননি। উল্লেখ করেননি কোন্ ধরনের বা কোন্ মাত্রার অনিয়ম বা দুর্নীতি হয়েছে। প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কে বা কারা জড়িত।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টরা যাচাই-বাছাই করে চূড়ান্ত তালিকা প্রস্তুত করে থাকেন। তবে সংশোধনযোগ্য কিছু ভুল-ত্রুটি থাকতেই পারে।

এখানে কেউ অনিয়ম বা দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত থাকলে তা শোধরানো বা শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ারও সুযোগ আছে। আর আমি ব্যক্তিগতভাবেও অবহিত থাকার চেষ্টা করি।

আপনার কর্তব্য ও দায়িত্ব ছিল অনিয়ম ও দুর্নীতির সুস্পষ্ট প্রমাণ নিয়ে কমিটিতে কথা বলা এবং আমাকে জানানো। কোনো ব্যবস্থা নেয়া না হলে যা মনে হয় করতে পারতেন।

আপনি আমার মনোনীত সদস্য। আমার সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেননি বা জানানোর প্রয়োজন মনে করেননি।

এই দুঃসময়ে আপনি ‘চমক’ দেখানোর চেষ্টা করছেন। নিজেকে জাহির করার সুযোগ নিচ্ছেন। পরিবেশ ঘোলাটে করছেন। ত্রাণ বিতরণের পুরো প্রক্রিয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করছেন।

এ ধরনের সস্তা কাজ করে নেতৃত্ব দেয়া যায় না। নিজের দিকে তাকান আর প্রশ্ন করুন।

পাকুন্দিয়া উপজেলায় কে কত টাকায় বিক্রি হয় তা আমার জানতে বাকি নেই।

আপনার কাছে অনিয়ম বা দুর্নীতির কি প্রমাণ আছে আর এর সঙ্গে জনপ্রতিনিধি বা সরকারি কর্মকর্তা কারা জড়িত তা আপনাকে স্পষ্ট করে বলতে হবে। মো. মোতায়েম হোসেন স্বপন।

উল্লেখ্য, পাকুন্দিয়া উপজেলায় করোনাভাইরাস মোকাবেলায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মোতায়েম হোসেন স্বপন বুধবার উপজেলা ত্রাণ কমিটি থেকে পদত্যাগ করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে জমা দেয়া এ পদত্যাগপত্রে তিনি উল্লেখ করেন, ‘আমি ১০ মে উপজেলার ত্রাণ কমিটির সভায় উপস্থিত হয়ে যতটুকু জ্ঞাত হইতে পারলাম যে, উক্ত কমিটিতে কোনো স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নাই এবং অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে তালিকা প্রণয়ন ও বিতরণ হচ্ছে।

তাই উক্ত কমিটির সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ বাঞ্ছনীয় বিধায় পদত্যাগ করছি। মাননীয় সাংসদের প্রতিনিধি হিসেবে নয়, দলীয় প্রতিনিধি হিসেবে এর প্রতিকার করতে চাই।’

এ ব্যাপারে পাকুন্দিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাহিদ হাসান বলেন, ওই আওয়ামী লীগ নেতা এ ধরনের ভিত্তিহীন ও বিভ্রান্তিমূলক অভিযোগ তুলে কমিটি থেকে পদত্যাগ করেছেন।

অভিযোগের ন্যূনতম ভিত্তি থাকলে তদন্ত করে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া যেত। কোনো প্রমাণ এবং নির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া তিনি কেন পদত্যাগ করলেন সেটি তিনিই ভালো বলতে পারবেন।

নূর মোহাম্মদ বলেন, সম্ভবত তার নিজের কোনো ধান্দা সফল না হওয়ায় তিনি পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন।

সম্প্রতি সংবাদ