সৈয়দপুরে মৃতকে জীবিত দেখিয়ে ভাতা উত্তোলনের অভিযোগ তদন্তে কমিটি গঠন

editor ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

শাহজাহান আলী মনন , নীলফামারী প্রতিনিধিঃ২৮ জুলাই-২০২০
নীলফামারীর সৈয়দপুরে পৌরসভার মহিলা কাউন্সিলর ও উপজেলা পরিষদের সদস্য কনিকা রানী সরকারের বিরুদ্ধে ‘মৃত ব্যক্তিকে জীবিত দেখিয়ে ভাতা উত্তোলনের অভিযোগ’ তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়েছে। ২৭ জুলাই সোমবার সৈয়দপুর পৌর পরিষদের এক জরুরি সভায় এ কমিটি গঠিত হয়েছে। পৌর মেয়র অধ্যক্ষ মোঃ আমজাদ হোসেন সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সৈয়দ মঞ্জুর আলমকে প্রধান করে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়। অন্য ২ জন হলেন সদস্য সচিব পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী ও ভারপ্রাপ্ত সচিব আইয়ুব আলী এবং সদস্য ১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবিদ হোসেন লাড্ডান। এই কমিটি ৩ কার্যদিবসের তথা ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন প্রদান করবে।
উল্লেখ্য, গত ২৩ জুলাই বৃহস্পতিবার “দৈনিক তিস্তা সংবাদ” সহ বেশ কয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে ” সৈয়দপুরে মৃত ব্যক্তিকে জীবিত দেখিয়ে ভাতা উত্তোলন, ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে বিচার দাবী ” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এতে পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ডের বিমানবন্দরে নীচু কলোনির চৌধুরীপাড়া এলাকার মৃত মনির উদ্দিনের ছেলে খুরশিদ আলম অভিযোগ করেন যে, তার মা খুকী বেগমের নামে বয়স্কভাতা কার্ড ছিল। গত ২০১৯ সলের ২৪ ডিসেম্বর তিনি মারা গেলে তাঁর কার্ডটি জমা দেয়ার জন্য ওয়ার্ড কাউন্সিলর আল মামুন সরকারের মাধ্যমে প্রসেস করে নেন। পরের দিন সমাজ সেবা অফিসে যাওয়ার সময় ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর কনিকা রানী সরকার পথে খুরশিদ কে আটকিয়ে তাকে ১ হাজার ৫শ’ টাকা দিয়ে কার্ডটি নিজে জমা দিবেন বলে নিয়ে নেন। কিন্তু তারপর তিনি তা সমাজ সেবা অফিসে বা ব্যাংকে কোথাও জমা দেননি। একারনে দীর্ঘ ৭ মাস পরও খুকী বেগমের নাম ভাতাপ্রাপ্তদের তালিকায় বিদ্যমান এবং সেই কার্ড দিয়ে ভাতা উত্তোলন করা হচ্ছে। কাউন্সিলর কনিকা রানীই এ টাকা তুলে খাচ্ছেন বলে অভিযোগ তুলে তার বিচার দাবী করে খুরশিদ। এ সংবাদের প্রেক্ষিতে পৌর পরিষদ অভিযোগটি তদন্তের জন্য এ কমিটি গঠন করেছে

সম্প্রতি সংবাদ