ব্রেকিং নিউজ

দৌলতদিয়া পতিতালয়ে চাঁদাবাজি মালামাল লুট, গ্রেফতার ২

editor ১১ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

আবুল হোসেন, রাজবাড়ী প্রতিনিধি: ২৪ আগস্ট

রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে ২৩ আগষ্ট রবিবার ভোররাত ৫ ঘটিকার সময় মোছা. নাজমা বেগম ( ৫০) এর বাড়ীতে জোড় পূর্বক চাঁদা দাবি ও মালামাল লুট হওয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সন্ত্রাসীদের হামলায় বাড়ীর দারোয়ান গুরুতর আহত মুক্তার হোসেন (৪০) নামে একজনকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
সন্ত্রাসীরা নগদ ১ লক্ষ টাকা, মোবাইল, স্বর্ণের গহনা সহ প্রায় ২ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ছিনিয়ে নেয়। এ সময় বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে বাড়ীওয়ালী নাজমা বেগম (৫০), রোকন (৪২), সাগর চৌধুরী (২৫), সুজন চৌধুরী (১৩) হামলায় আহত হন। তাদেরকে স্থানীয় চিকিৎসক দ্বারা চিকিৎসা করা হয়। চাঁদাবাজ চক্রটি স্থানীয় প্রভাবশালদের নেতৃত্বে যৌন পল্লীর মধ্যে বিভিন্ন সময় ডাকাতি , ছিনতাই, চাঁদাবাজি করে ত্রাস সৃষ্টি করে । এদের অনেকের বিরুদ্ধে হত্যা সহ একাধিক মামলা রয়েছে । কেও কেও এলাকায় পেশাদার সন্ত্রাসী হিসাবে চিহ্নিত ।
এ ঘটনায় বাড়ীওয়ালী নাজমা বেগম ২৪ আগষ্ট সোমবার সকালে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন। এতে তিনি উল্লেখ করেন, রবিবার ভোর রাত ৫ টার দিকে স্থানীয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী নুরু কাজী, আরিফ, পিঞ্জয়, টুটুল, জসিম, লিটন, হিরো, রাজিবসহ অজ্ঞাতনামা আরোও ১০/১২ জনের একটি দল অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে যৌন পল্লীতে তার বাড়ীতে প্রবেশ করে। তারা আমাদেরকে মারধোর করে নগদ ১ লক্ষ টাকা, মোবাইল, স্বর্ণের গহনাসহ ২ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ছিনিয়ে নেয়। চাঁদাবাজ এ চক্রটি গত ৮.৬.২০ ইং তারিখে আমার কাছ থেকে জোর করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা আদায় করে। পূনরায় আজ চাঁদা নিতে আসলে,তাদের কে চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তারা আমাকে হত্যার হুমকি দেয় এবং নগদ টাকা সহ মালামাল লুট করে নেয় ।
এ বিষয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি তদন্ত মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর বলেন,এ বিষয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় নাজমা বেগম বাদী হয়ে চাঁদাবাজি ,চাঁদা দাবী ,চুরির অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেছেন । এজাহার ভুক্ত ২ জন আসামী কে গ্রেফতার করা হয়েছে , বাকি আসামীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে ।

 

সম্প্রতি সংবাদ