ব্রেকিং নিউজ

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌ পথ নাব্যতা সংকটে ড্রেজার দিয়ে চলছে চ্যানেল তৈরীর কাজ

editor ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ breaking সারাদেশ

আবুল হোসেন, রাজবাড়ী প্রতিনিধি:০৬ সেপ্টেম্বর -২০২০,রবিবার।

রাজবাডী জেলার গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ও মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া নৌ পথে পাটুরিয়া প্রান্তে দেখা দিয়েছে ডুবোচর। যমুনা নদীর পানি কমতে থাকায় নাব্যতা সংকট সৃষ্টি হয়েছে। ফেরি চলাচল সচল রাখতে ড্রেজিং করে পলি ও বালু মাটি অপসারণ করে নতুন করে চ্যানেল তৈরী করছে বি আই ডাবিøউ টি এ কতৃপক্ষ।
ঘাট সূত্রে জানাযায়, বর্ষার ¯্রােতে উজান থেকে পলিমাটি আসার ফলে ও নদীর পানি অব্যাহত ভাবে কমতে থাকায়, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌ পথের পাটুরিয়া প্রান্তে যমুনা নদীতে ফেরি চলাচলে নাব্যতা দেখা দিয়েছে। প্রয়োজনীয় নদীর গভীরতা না থাকায় রো রো (বড়ফেরি) গুলো মারাতœক ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে। সরাসরি ফেরি ঘাটে ভিড়তে পাড়ছে না। প্রায় ২ কিলোমিটার পথ ভাটিতে গিয়ে পুনরায় উজান বেয়ে ফেরি গুলোকে ঘাটে ভিড়তে হচ্ছে। নাব্যতা সংকটের মধ্যে ফেরি চলাচল করায় বালুর ঘর্ষনে ফেরির বুশ ক্ষয় হয়ে মারাতœক ক্ষতি হচ্ছে। যার ফলে বড় ফেরি গুলোর যান্ত্রিক ত্রæুটি হচ্ছে। চ্যানেল সরু হওয়ার কারনে পাশাপাশি দুই টি ফেরি এক সাথে চলাচল করতে পারছে না। একটি চ্যানেল দিয়ে ফেরি প্রবেশ করছে অন্য চ্যানেল দিয়ে আরেক টি ফেরি বাহির হচ্ছে। ২ কিলোমিটার পথ ঘুরে ফেরি ঘাটে ভিড়তে সময় বেশি লাগছে এবং জ্বালানি খরচ বৃদ্ধি পেয়েছে। আশংকা রয়েছে যে কোন সময় রো রো (বড় ফেরি) ডুবো চরে আটকে যেতে পারে। ফেরি চলাচল সচল রাখতে নদীর নাব্যতা সংকট মোকাবেলায় ৪ টি ড্রেজার দিয়ে খনন করে ফেরি জন্য পৃথক দুই টি চ্যানেল তৈরী করা হচ্ছে।
দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌ পথে ফেরির সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও ঘাটের সল্পতা রয়েছে, দৌলতদিয়া ৬ টি ফেরি ঘাট থাকলেও গত বছর বন্যায় ১ ও ২ নং ফেরি ঘাটের সংযোগ সড়ক নদী ভাঙ্গনে কিছু অংশ বিলিন হয়ে যায়। এ বছর ঘাট দুই টি জোড়া তালি দিয়ে মেরামত করলেও এখানে এখনও ফেরি লোড আনলোড করা হয় না। দুই টি ঘাট পরিত্যাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। বাকি ৪ টি ঘাট সচল রয়েছে। বিকল্প ঘাট হিসাবে নতুন ৭ নাম্বার ফেরি ঘাট টি নির্মাণের কাজ চলছে ধীর গতিতে। ঘাট সল্পতার কারনে অনেক সময় ফেরি আনলোড করতে আরেক টি ফেরির পিছনে অপেক্ষা করতে হচ্ছে। পূর্বের ফেরি টি লোড আনলোড করার পর পিছনে ঝুলে থাকা ফেরি টি ঘাটে লোড আনলোডের সুযোগ পাচ্ছে।
বিআইডাবিøউটিসি’র দৌলতদিয়া ঘাট শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক মো.মাহাবুব আলী বলেন, রো রো ফেরি গুলো চলাচল করতে নদীতে কমপক্ষে ৮ ফিট পানির প্রযোজন হয়। পাটুরিয়া প্রান্তে পানির গভীরতা না থাকায় ড্রেজিং করে নদীর গভীরতা সৃষ্টি করা হচ্ছে। তবে ফেরি গুলো ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে। যে কোন সময় ডুবো চরে ফেরি আটকে যাওয়ার আশংকা রয়েছে।
মো.আবুল হোসেন
রাজবাড়ী

সম্প্রতি সংবাদ