ব্রেকিং নিউজ

কিশোরগঞ্জে ২৫ বছরের পুরাতনমসজিদ ভেঙে দেয়ায় উত্তেজনা

editor ৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

শাহজাহান আলী মনন, নীলফামারী জেলা প্রতিনিধিঃ০১ অক্টোবর-২০২০

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মসজিদ ভেঙে দেয়ায় দুই এলাকাবাসীর মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। সৈয়়দপুর সাকেলের অতিরিক্ত পুুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল ও কিশোরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল আউয়াল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ।

অভিযোগে জানা যায়, সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের নাউয়াপাড়া এলাকার নতুন মসজিদে মুসল্লিরা না যাওয়ায় কিশোরগঞ্জ এলাকার পুরাতন মসজিদ ভেঙে ফেলে। এঘটনায় সোমবার নিতাই ইউনিয়ানের বসুনিয়াপাড়া গ্রামের জামে মসজিদের মুসল্লিরা থানায় অভিযোগ করেছেন।

সরেজমিনে জানা যায়, সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর নাউয়া পাড়া গ্রামের মৃত নছর উদ্দিনের ছেলে মতিয়ার রহমানের সাথে বিরোধ সৃষ্টি হয় পাশের নিতাই বসুনিয়া পাড়া গ্রামের লোকজনের । এ বিরোধের জের ধরে মতিয়ার তাঁর বাড়ির কাছে মসজিদ নিমাণ করেন। তাঁর বাড়ির কাছে নির্মিত নতুন মসজিদে যাওয়ার জন্য মুসল্লিদের চাপ দেন।

কিন্তু নিজ এলাকা ছেড়ে কিশোরগঞ্জ উপজেলার বসুনিয়াপাড়া গ্রামের জামে মসজিদের মুসল্লিগণ ২৬ সেপ্টেম্বর ওই নতুন মসজিদে যেতে অস্বীকৃতি জানান। ওই দিন এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে প্রভাবশালী আ: বারী লাভলু তাঁর বাবা মতিয়ার রহমান, ভাই মোতাহার, আতাবুল, বাবুল হোসেন, আ: সালেক, হাফিজ উদ্দীন, মনোয়ার, আ: রাজ্জাক, যোদ্ধা মামুদ, বাবু,কালা, সফিকুল, জানে আলম, মনারুল আঃ হামিদ, ছাইয়াদুল, নুর হক, আমজাদসহ অজ্ঞাত ৩০/৪০ জন নারী পুরুষ ছোড়া, লোহার রড, চাকু, হাতুড়ি, হ্যামার ও লাঠি-সোটাসহ কতিপয় দুস্কৃতিকারীকে সঙ্গে নিয়ে এসে পুরাতন মসজিদটি ভেঙে দেন। এ সময় মসজিদের ঈট, লোহার রড, দরজা, জানালা ও টিনগুলো রিকশাভ্যানে করে তুলে নিয়ে যান।
এ সময় এলাকার কয়েকজন বাধা দিলে তাদের হুমকি দেওয়া হয় ।

খবর নিয়ে জানা গেছে মতিয়ার রহমান ও তার ছেলে আ: বারী লাভলু এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তি। এ ছাড়া লাভলু ঢাকা বিমানবন্দরে চাকুরী করেন। তার একজন জনপ্রতিনিধির সাথে সুসম্পর্ক। তাই তিনি কোন কিছুই তোয়াককা করেন না।

এলাকাবাসী ওই দিন কিশোরগঞ্জ থানায়় অভিযোগ দিলে পুলিশ এসে হামলাকারীর একজনকে গ্রেফতার করলেও পরে ছেড়ে দেন।
প্রায় ২৫ বছর আগের পুরাতন এ মসজিদটি ভেঙে দেয়ায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় দু’ দলের মধ্যে সংঘর্ষ হতে পারে বলে এলাকাবাসী আশংকা করছে। তবে একটি দল দাবী করছে আগামী শুক্রবার এ নিয়ে বৈঠক হবে বলে জানিয়েছেন। এ নিয়ে এলাকাবাসী নীলফামারী পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত গণপিটিশন দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে মতিয়ার রহমানের সাথে কথা বলার জন্য তাঁর বাড়িতে গেলে ও পাওয়া যায়নি।

কিশোরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল আউয়াল এ ঘটনায় অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। উভয় পক্ষ দ্রুত আপোষ না হলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। (ছবি)