পুলিশের লাঠিচার্জ টিকিটের টোকেনের জন্য সৌদি প্রবাসীদের অবরোধ-ভাঙচুর

editor ৩রা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ breaking জাতীয়

কালের কাগজ ডেস্ক:০৪ অক্টোবর-২০২০,রবিাবার।

টিকিটের টোকেনের দাবিতে রোববার হোটেল সোনারগাঁওসংলগ্ন সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ ও ভাঙচুর করেন সৌদি প্রবাসীরা -আমিনুল ইসলাম শাহীন
সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকিটের টোকেনের দাবিতে ফের সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ ও ভাঙচুর করেছেন সৌদি প্রবাসীরা। রোববার সকালে হোটেল সোনারগাঁও সংলগ্ন সড়ক অবরোধ করেন টিকিটপ্রত্যাশীরা। পরে তারা সোনারগাঁও হোটেলের ফটক ভেঙে সৌদি এয়ারলাইন্সের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশ লাঠিচার্জ করলে বেশ কয়েকজন আহত হন।

এদিকে এ পরিস্থিতির জন্য সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের গাফিলতি ও দায়িত্বহীনতাকে দুষছেন প্রবাসীরা। তথ্য প্রদান না করা ও যাদের ভিসার মেয়াদ কম তাদের আগে টিকিট না দেওয়াসহ এয়ারলাইন্সটির কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ করেন তারা।

২৬ সেপ্টেম্বর সৌদি এয়ারলাইন্স ঘোষণা অনুসারে ৪ অক্টোবর পরবর্তী টোকেন দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কতজনকে দেওয়া হবে সে বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানায়নি সংস্থাটি। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, রোববার নতুন টোকেনের জন্য অন্তত ১৫-২০ হাজার মানুষ সোনারগাঁও হোটেলের বাইরে অবস্থান নেন। এক পর্যায়ে হোটেলের গেট ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন তারা। এ সময় মিছিল-স্স্নোগানে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে রাজধানীর এ পাঁচ তারকা হোটেল। বেলা সোয়া ১১টা পর্যন্ত হোটেলে কোনো দর্শনার্থী প্রবেশ করতে পারেননি। কোনো দর্শনার্থী বেরও হতে পারেননি। ফলে কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ এ হোটেলটি।

টোকেন নিতে আসা প্রবাসী

রিয়াজ বলেন, সৌদি এয়ারলাইন্স সঠিক তথ্য দিচ্ছে না। তথ্যের অভাবে আজকের এ জনস্রোত। আরেক প্রবাসী নিয়ামুল হক বলেন, যাদের ভিসার মেয়াদ কম তাদের যদি টিকিট দেওয়া হতো তাহলে এ ভোগান্তি ও এই ধরনের অবস্থার সৃষ্টি হতো না।

এয়ারলাইন্স সূত্র জানায়, লকডাউনের আগে যারা সাউদিয়ার রিটার্ন টিকিট নিয়ে দেশে ফিরেছিলেন শুধুমাত্র তাদেরই টোকেন দেওয়া হবে। টোকেন অনুযায়ী নির্ধারিত তারিখে তারা টিকিট কিনতে পারবে। এদিকে গত ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে টোকেনের মাধ্যমে টিকিট দেওয়া শুরু করে সৌদি এয়ারলাইন্স। সর্বশেষ ১ অক্টোবর ৩০০১ থেকে ৩৩০০ টোকেনধারীকে টিকিট দেয় এ বিমান সংস্থাটি। গত শুক্রবার থেকে তারা কোনো টোকেন ইসু্য করেনি। ছুটিতে দেশে এসে আটকা পড়েন প্রায় ৮০ হাজার প্রবাসীকর্মী। সাত মাস পর কাজে ফিরে যাওয়ার সুযোগ এলেও ফ্লাইটের অভাবে তৈরি হয় অনিশ্চয়তা। বাধ্য হয়ে গত সেপ্টেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেন প্রবাসীরা। টানা তিন দিনের বিক্ষোভের পর ২৩ সেপ্টেম্বর পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলেন, বাংলাদেশের শ্রমিকদের আকামা (সৌদি আরবে কাজের অনুমতি) আরও ২৪ দিন বৈধ থাকবে এবং প্রয়োজনে আরও বাড়ানো হবে। তিনি বলেন, যে সকল বাংলাদেশি তাদের কর্মস্থল সৌদি আরবে ফিরে যেতে চান তাদের ভিসার মেয়াদ বাড়িয়ে দিতে সম্মত হয়েছে সৌদি সরকার।

সম্প্রতি সংবাদ