ব্রেকিং নিউজ

কালীগঞ্জে পুর্ব শত্রুতার জেরে এ্যাডভোকেট কে কুপিয়ে যজখম, থানায় মামলা দায়ের!

editor ১১ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ জাতীয়

মোঃ লিখন হোসাইন,লালমনিরহাট:১৭ অক্টোবর-২০২০,শনিবার।
লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নে পূর্ব শত্রুতার জেরে এ্যাডভোকেট আহসান হাবিব সবুজ (এপিপি) কে কুপিয়ে জখম করেছেন দুর্বৃত্তরা।
আহত সবুজ উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের উঃ বত্রিশ হাজারির মজির উদ্দিন আহম্মেদ এর ছেলে।
এ ঘটনায় বুধবার (১২ অক্টোবর) সকালে কালীগঞ্জ থানায়  ৫ জনকে আসামি করে বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগীর বাবা। যাহার মামলা নং ১২।
মামলায় আসামিরা হলেন-উপজেলার  বত্রিশ হাজারি এলাকার এ্যাডঃ রাজা মিয়া (৫৩), রাকিব ইসলাম মাসুদ (৩৮), আরিফুল ইসলাম কাজল(৪৫) উভয়ের পিতা মোঃ নুর ইসলাম, আঃ আজিজ গেন্দ্রুর ছেলে মোঃ রেজাউল(৪৫),রংপুর নিশবেতগঞ্জ কেরানীপাড়ার মজিবর রহমানের ছেলে তৌহিদুর রহমান তুয্যু(২৮)।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, বাদীর নাতনির সহিত গত ১১/১২ মাস পুর্বে ৫ নং আসামির সহিত বিবাহ হয়।পরবর্তীতে ঘটনার প্রেক্ষিতে বাদীর নাতনি বাদী হইয়া ৫ নং আসামির বিরুদ্ধে একটি মামলা (মামলা নং১৫,তারিখ ২১/৮/২০২০ইং), দায়ের করিলে ১ নং আসামী রাজা মিয়া বিভিন্নভাবে আসামীদেরকে সহোযোগীতা করে। এক পর্যায়ে উক্ত মামলা মিমাংশার জন্য আসামী রাজা মিয়া তাহার মাধ্যমে প্রস্তাব দেয়। আসামী রাজা মিয়ার সাথে পূর্ব শত্রুতা থাকায় তাহার মাধ্যমে মীমাংসায় রাজি না হয়ে লালমনিরহাট আইনজীবি সমিতির মধ্যস্তততায় বিবাহ-বিচ্ছেদের মাধ্যমে উক্ত মামলা আপোষ-মীমাংশা করে। বাদীর নাতনির দায়েরকৃত মামলা ১ নং আসামী রাজা মিয়ার সলাপরামর্শ না করে আপোষ করার কারণে ১ নং আসামী ক্ষিপ্ত  হয়ে বাদীর নাতনির দায়ের করা মামলার আসামীদের সহিত  ষড়যন্ত্র করে। ২ নং আসামী রাকিব ইসলাম মাসুদ ঘটনার আগের দিন চাপারহাট বিদেশী মার্কেট মোড়ে রাত্রি ১০.৩০ এ ভুক্তভোগীর ভাইকে মারার হুমকি দেয়।  এমতবস্তায় উপরোক্ত আসামীগন ভুক্তভোগী  পরিবারের সদস্যদের ক্ষতি করার জন্য সযোগ খুজতে থাকে। পরবর্তী গত ০৮/১০/২০২০ ইং রোজ বৃহস্পতিবার  অনুমান সন্ধা ৬.৩০ ঘটিকায় পুর্ব শত্রুতার জের ধরে ধারালো অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে অজ্ঞাতনামা ৩/৪ আসামীসহ বেআঈনি জনতায় দলবদ্ধ হয়ে বাদীর বড়পুত্র এপিপি এ্যাড: আহসান হাবিব সবুজ কে ১ নং আসামীর নির্দেশে ২ ও ৩ নং আসামী  হত্যার উদ্দেশে দেশীয় অস্ত্রসহ চাপাতি দিয়ে কোপায় ও মারধর করেন। পরে  নগদ প্রায় ৪ লাখ টাকা নিয়ে যায় তারা।
পরে  আহত সবুজ কে  প্রথমে কালীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়। পরে রংপুর সরকারী  হাসপাতালে ও পরে অবস্থার আশংকাজনক হওয়ায় ঢাকা পঙ্গু  হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে মুমূর্ষ অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।
এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ থানার ওসি(তদন্ত) মোঃ  ফরহাদ মন্ডল বলেন,এই ঘটনায় ভুক্তভোগীর বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। আমরা আসামিকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি।

সম্প্রতি সংবাদ