কালুখালীর সাওরাইল ইউপিতে বিলে মাছ ধরা নিয়ে দু’পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে আহত- ২৪

editor ৩রা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

 মোক্তার হোসেন, পাংশা (রাজবাড়ী) থেকে :১৭ অক্টোবর-২০২০,শনিবার।

রাজবাড়ী জেলার কালুখালী উপজেলার সাওরাইল ইউপির সাওরাইল গ্রামের সাহেব আলী ও মুক্তার হোসেন চাচাতো দু’ভাইয়ের মধ্যে শনিবার ১৭ অক্টোবর দুপুরে বিলে মাছ ধরা ও বাঁধ দেওয়া নিয়ে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে উভয় গ্রæপের লোকজনের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে মহিলাসহ ২৪ জন কমবেশি আহত হয়েছে। শনিবার দুপুর ২টার দিকে সাওরাইল বিশ্বাসবাড়ী সাতপুকুর মোড় নামক এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই আহতদের পাংশা হাসপাতালের জরুরী বিভাগে চিকিৎসা ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
জানা যায়, সংঘর্ষে গুরুতর আহত ৬জনকে পাংশা হাসপাতালের জরুরী বিভাগে চিকিৎসার পর ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। ফরিদপুরে রেফার করা রোগীদের মধ্যে রয়েছেন ইউনুস (৫৫), আব্দুর রাজ্জাক (৫৫), মজনু (৫২), মুক্তার হোসেন (৩০) ফেরদৌস (১৬) ও ওয়াজেদ আলী (৩৫)।
এছাড়া পাংশা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতরা হলেন, ওবায়দুল (৩২), আব্দুর রশিদ (৫০), নান্নু (৩০), শুকুর আলী (৫০), আল আমীন (২৬), ইমরুল (২০), নুজদার (৪৫), শহিদুল (৪০), রুমান (২১), ইউনুস মন্ডল (৫৫), আব্দুর রাজ্জাক (৫৫), নজরুল ইসলাম (৪০), দাউদ মন্ডল (৩০), আবু দাউদ (৫৫), আলাউদ্দিন (৩০), ডাবলু বিশ্বাস (১৫), সাদিয়া আফরিন (২৩), হাবিব (২০), শহিদুল ইসলাম (৩১) ও পলি বেগম (৩০)। আহতরা সবাই সাওরাইল গ্রামের বাসিন্দা। ধারোলো অস্ত্রের আঘাতে অনেকের হাত, পা, মাথা, বুক, পেট ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কাটা-ফাটা, জখম হয়েছে।
স্থানীয়রা জানায়, সাহেব আলী ও মুক্তার হোসেন আপনচাচাতো দু’ভাই। কিন্তু নিজেদের মধ্যে বিরোধের কারণে তারা পৃথক সমাজভুক্ত হয়ে বসবাস করেন। সাহেব আলী সাওরাইলের আলমগীর বিশ্বাসের সমাজভুক্ত এবং মুক্তার হোসেন একই গ্রামের সাদেক শেখের সমাজভুক্ত। শনিবার দুপুরে চাচাতো দু’ভাইয়ের বিরোধ তাদের সমাজের লোকজনের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে।
খবর পেয়ে সাওরাইল ইউপির চেয়ারম্যান ও ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম (আলী) এবং সাওরাইল ইউপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম সরোয়ার ঠান্ডু পাংশা হাসপাতালে আহতদের চিকিৎসার খোঁজখবর নেন। পাংশা হাসপাতালের জরুরী বিভাগের দায়িত্বরত ডাঃ নিপা নন্দী, এসএসিএমও তিতুমীর বিশ্বাস ও আকাশ রোগীদের চিকিৎসা প্রদান করেন।

সম্প্রতি সংবাদ