ব্রেকিং নিউজ

টেকনাফে মোবাইল নেটওয়ার্ক চরম বিপর্যয় : গ্রাহক বিড়ম্বনা চরমে

editor ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

মুহাম্মদ জুবাইর, টেকনাফ::২৭ অক্টোবর-২০২০,মঙ্গলবার
চরম নেটওয়ার্ক বিপর্যয়ে সীমান্ত ও পর্যটন নগরী টেকনাফের সাধারন গ্রাহকের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। পাশাপাশি সরকার হারাচ্ছে বিপুল রাজস্ব। দীর্ঘদিন যাবৎ টেকনাফ পৌরসভাসহ পুরো উপজেলায় নেটওয়ার্ক বিপর্যয় চরম আকার ধারন করেছে। প্রতিটি মোবাইল কোম্পানী সঠিক ভাবে নেটওয়ার্ক পাওয়াই মুশকিল। কথা বলতে না বলতেই সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। একদিকে কথা বলতে সমস্যা অন্যদিকে হঠাৎ মোবাইলের ব্যালেন্স লাপাত্তা। উভয় সংকটে সীমান্ত উপজেলার গ্রাহক। এদিকে টেকনাফের সরকারি রাজস্ব আদায়কারি প্রতিষ্ঠান সমূহ পড়ছে বিড়ম্বনায়। ব্যাংকের কয়েকজন গ্রাহক জানান, ব্যবসায়ীদের প্রতিনিয়িত ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা লেনদেন করতে হয়। কিন্তু ব্যাংকে গিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করেও নেটওয়ার্ক না পেয়ে কোন কোন সময় ফিরে আসতে হয়। এতে আমাদের ব্যবসায়ীদের ক্ষতির পাশাপাশি সরকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এদিকে মোবাইল ব্যাংকিং কার্যক্রম সম্পূর্ণ নির্ভর করছে মোবাইল নেটওয়ার্কের উপর। কিন্তু মোবাইল নেটওয়ার্ক বিপর্যয়ের কারনে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকা লোকসান গুনতে হচ্ছে বলে মোবাইল ব্যাংকিং কতৃপক্ষ জানান। সুত্রে জানায়, ২০১৭ সালে মিয়ানমারের বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা শরণার্থী আগমনের ফলে প্রতিটি মোবাইল কোম্পানীর গ্রাহক সংখ্যা বেড়ে গেছে। এবং প্রতিনিয়ত বাড়ছে। কিন্তু যে হারে গ্রাহক সংখ্যা বাড়ছে সে অনুপাতে মোবাইল কোম্পানী কর্তৃপক্ষ ফ্রিকুয়েন্সী বাড়ানো হয়নি। ফলে প্রতিনিয়িত বাড়ছে মোবাইল নেটওয়ার্ক বিপর্যয়। স্থানীয় গ্রাহকরা জানান, টেকনাফে সর্বপ্রথম মোবাইল নেটওয়ার্ক চালু হয় সিটিসেল, যা বর্তমানে প্রায় বিলুপ্ত। এরপর পরেই শুরু হয়, একটেল (রবি) এর গ্রাহক সংখ্যা, সবচেয়ে বেশী। এমন কি টেকনাফে দুই তৃতীয়াংশ মোবাইল গ্রাহক রবির। অন্যান্য মোবাইল সীমে গ্রাহক সংখ্যা থাকলেও তুলনা মূলক নগন্য। রবির নেটওয়ার্ক টেকনাফ উপজেলায় অত্যান্ত দূর্বল। এদিকে টেকনাফ স্থল বন্দর ব্যবসায়ীগণ জানিয়েছেন। স্থল বন্দর থেকে সরকার প্রতি মাসে কোটি কোটি টাকার সরকারী রাজস্ব আদায় করে থাকে। কিন্তু মোবাইল নেটওয়ার্ক এখানে নেই বললেও চলে। এতে আমাদের ব্যবসয়ীক কার্যক্রম চালাতে গিয়ে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এভাবে প্রতিটি ক্ষেত্রে মোবাইল নেটওয়ার্ক দূর্বল হওয়ায় সরকার লক্ষ লক্ষ টাকা হতে বঞ্চিত হচ্ছে। এর উত্তোরন অত্যান্ত জরুরী বলে স্থানীয় ভূক্তভোগী মহল জানান। এছাড়া টেকনাফ সদরের বটতলী বাজার সংলগ্ন এলাকা, কেরুনতলী, বড়ইতলী, দমদমিয়া, স্থল বন্দরেও মোবাইলে কথা বলা দূরহ হয়ে উঠে। এ থেকে পরিত্রানের জন্য মোবাইল নেটওয়ার্ক কোম্পানীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন গ্রাহক। এদিকে টেকনাফস্থ মোবাইল কোম্পনীর রবি সেবা কার্যালয়ের কর্তৃপক্ষের সাথে এ ব্যাপারে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

সম্প্রতি সংবাদ