ব্রেকিং নিউজ

করোনার ‘দ্বিতীয় ঢেউয়ে’ লকডাউনের কথা ভাবছে না সরকার

editor ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ breaking slider-top প্রধান খবর

কালের কাগজ ডেস্ক: ০২ নভেম্বর ২০২০,
আসন্ন শীতে করোনার ‘দ্বিতীয় ঢেউ’ নিয়ে শঙ্কা থাকলেও এখনো পর্যন্ত সরকার লকডাউনের কথা ভাবছে না বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। সচিব বলেন, ‘এই ভাইরাস থেকে সুরক্ষায় মাস্ক ব্যবহারের ওপরই জোর দিচ্ছে সরকার। মাস্ক ছাড়া সরকারি-বেসরকারি কোনো সেবাই দেয়া হবে না বলে সরকারের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।’

সোমবার মন্ত্রিসভা বৈঠকের (ভার্চুয়াল) পর সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, ‘করোনার বর্তমান পরিস্থিতিতে ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’ ব্যাপকভাবে বাস্তবায়নে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।’

ভার্চুয়্যাল মন্ত্রিসভা বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে এবং মন্ত্রিপরিষদের অন্য সদস্যরা সচিবালয় থেকে অংশ নেন।

করোনা ভাইরাস বৈশ্বিক মহামারির প্রাদুর্ভাবজনিত বিপর্যয় থেকে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় বিভিন্ন প্রণোদনা প্যাকেজ প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন-অগ্রগতির বিষয়ে মন্ত্রিসভাকে অবহিত করা হয়।

সরকার কি আবারো মুভমেন্টের ওপর কোনো রেস্ট্রিকশন (লকডাউন) আনার চিন্তা-ভাবনা করছে? এমন প্রশ্নে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘এখন পর্যন্ত না। আমাদের আল্লাহর রহমতে তেমন অবস্থা নেই। আমাদের যে অবস্থা সবাই মাস্ক ব্যবহার করলে আমরা কমফরটেবল জোনে থাকতে পারবো। এটা আজ প্রধানমন্ত্রীও বলছিলেন।’

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘এটা আমরা এনশিওর করে দিচ্ছি, কোনোভাবেই মাস্ক ছাড়া সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে যেন সার্ভিস না দেয়া হয়। আমরা সব অফিসে সেই নির্দেশনা পাঠিয়ে দিয়েছি। যেকোনো পাবলিক প্লেসেই মাস্কের বিষয়ে এই কঠোর নির্দেশনা থাকব।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘আজও কোভিডের সেকেন্ড ওয়েভ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। যেহেতু আমেরিকা ও ইউরোপের অবস্থা খুবই খারাপ। ইউরোপে ম্যাক্সিমাম দেশ লকডাউনে চলে গেছে। ইংল্যান্ড ও ফ্রান্স লকডাউন দিয়ে দিয়েছে। ফ্রান্সে অলরেডি ঘোষণা দেয়া হয়েছে কেউ অনুমতি ছাড়া বাসা থেকে বের হতে পারবে না। বের হতে হলে আগে পারমিশন নিতে হবে, তাও অনুমতি পাবে এক ঘণ্টার জন্য। এক কিলোমিটার বাইরে কেউ যেতে পারবে না। সব লোক প্যারিস ছেড়ে দিচ্ছে, প্রায় ৭০০ কিলোমিটার জ্যাম হয়ে গেছে। এসব বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী বিশেষভাবে নির্দেশনা দিয়েছেন যে, আমরা যেভাবে আছি সেটা কমফরটেবল, কিন্তু এতে সন্তুষ্টির কোনো কারণ নেই। সবাইকে কেয়ারফুল থাকতে হবে। বিশেষ করে ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’- এটাকে ব্যাপকভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে। সামাজিক আন্দোলন, ক্যাম্পেইন বা লিগ্যাল যেভাবেই হোক এটাকে এনশিওর করতে হবে।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘গতকাল মসজিদে বলে দিয়েছি, মাস্ক ছাড়া মসজিদে কাউকে ঢুকতে দেয়া হবে না। বায়তুল মোকাররমের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে আমি সারপ্রাইজড হয়েছি। কেউ তিন ফুটের গ্যাপ মানছেন না, নিয়ম মেনে চলছেন না।’

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে সোমবার পর্যন্ত দেশে পাঁচ হাজার ৯৬৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে চার লাখ ১০ হাজার ৯৮৮ জনে। এ অবস্থায় শীতে এ ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ার সমূহ আশঙ্কা রয়েছে। যেটিকে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

সম্প্রতি সংবাদ