ব্রেকিং নিউজ

বন্ধ হলো মোহনপুরের সেই বাড়ি নির্মাণের কাজ

editor ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

এম,এ রাজ্জাক রাজশাহী ব্যুরো ;০৩ নভেম্বর-২০২০
  রাজশাহীর   মোহনপুরে আদালতের নিষেধজ্ঞা অমান্য করে বাড়ির নির্মাণ কাজ চালিয়ে বাড়ির মালিক আলমাস হোসেন। দৈনিক সোনালী সংবাদ পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের মোহনপুর থানার পুলিশ গিয়ে বাড়ি নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেন। সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, মোহনপুর উপজেলার মতিহার গ্রামের আলমাস মন্ডলের সাথে বসতবাড়ির সীমানার জমি নিয়ে প্রতিবেশি ইসমাইল হোসেন ও ইমাম হোসেনের বিরোধ চলে আসছিল। ওই জমি নিয়ে ইসমাইল হোসেন ও ইমাম হোসেন বাদী আলমাস মণ্ডলসহ তার লোকজনকে আসামি করে আদালতে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। ইসমাইল হোসেনের মামলায় আদালত আসামিদেরকে ৭ দিনের কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করে। আসামিরা ২০১৯ সালের ১ ডিসেম্বর আদালতে হাজির হয়ে সময়ের আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন। তবে আদালতে মামলা বিচারাধীন থাকার পরেও আলমাস মণ্ডল নালিশি ১২ শতক সম্পত্তির মধ্যে সোয়া এক শতক দখল করে ফ্লাট বাড়ি নির্মাণ কাজ শুরু করে। ওই সময় ইসমাইল হোসেন নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন।২০২০ সালের ২ জানুয়ারি আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। তারপর থেকে বাড়ি নির্মাণ কাজ বন্ধ ছিল। হঠাৎ করে গত ১৬ অক্টোবর সকাল ১০ টার সময় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে লাঠি, ধারলো হাঁসুয়া, ফালা নিয়ে আলমাস মন্ডল ও তার পুনরায় বাড়ির নির্মাণ কাজ শুরু করে। গত ১৯ অক্টোবর ইসমাইল হোসেন আবারও নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালত মামলা দায়ের করেন। আদালত নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। পুলিশের প্রতিবেদন না পাঠানো পযন্ত কোন পক্ষ যেন জমিতে কাজ করতে না পারে সেজন্য গত ২৭ অক্টোবর মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নিদেশ দেন আদালত। এছাড়াও গত ২২ অক্টোবর আদালতের মাধ্যমে আলমাস মণ্ডলকে নিষেধাজ্ঞার নোটিশ হয়। কিন্তু নোটিশ পাওয়ার পরেও আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বাড়ি নির্মাণের কাজ চালিয়ে যাচ্ছিল। সোমবার (২ নভেম্বর) দৈনিক সোনালী সংবাদ অনলাইনে ভার্সনে সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় পর মোহনপুর থানার এসআই আব্দুর রাজ্জাক ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ বন্ধ করে দেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা মোহনপুর থানার এসআই আব্দুর রাজ্জাক বলেন, কাজ বন্ধ করা হয়েছে, তদন্ত শেষ করে দ্রত প্রতিবেদন আদালতে পাঠানো হবে।

সম্প্রতি সংবাদ