ব্রেকিং নিউজ

নওগাঁর মান্দায় আদালতের রায় কার্যকরের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

editor ১২ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

এম,এ রাজ্জাক রাজশাহী ব্যুরো:০২ ডিসেম্বর-২০২০,বুধবার।

নওগাঁর মান্দায় আদালতের রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ এবং দ্রুত কার্যকরের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে এক অসহায় নারী। বুধবার সকাল ১০ টায় উপজেলার ৯নং তেঁতুলিয়া ইউপি’র রুয়াই গ্রামের ভূক্তোভূগী ওই নারীর নিজ বাড়িতে এ সংবাদ সম্মেলনের অায়োজন করেন। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে ভূক্তোভূগী এবং তাদের পরিবারের লোকজন দাবি করেন যে, ২০১৬ সালে নওগাঁয় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল ১ নং অাদালতে দায়েরকৃৃত ৩৬১/২০২০ মামলার পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৪ নভেম্বর ২০২০ সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ অাদালতের বিচারক শহীদুল ইসলাম অাজাদী স্বাক্ষরিত যে রায় প্রদান করা হয়েছে তাতে অামরা সন্তুষ্ট অাছি। তবে অামাদের শংসয় যেনো কোন ভাবেই অপরাধী উচ্চ অাদালতে ওই রায়ের বিরুদ্ধে অাপিল করা বা রিট পিটিশন করার সুযোগ না পায়। কেননা, বিবাদীরা প্রভাবশালী হওয়ায় রায় পরিবর্তন করার জন্য বিভিন্নভাবে পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছেন। এমতাবস্থায় এ রায় বলবৎ না থাকলে অথবা যথাসময়ে কার্যকর না হলে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হবেন বলে দাবি করেন ভূক্তোভূগীরা। তাদের দাবি যে মামলার অাসামী রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার বাকশৈল গ্রামের হাজী অাব্দুল জলিলের ছেলে দু:চরিত্র অাব্দুল হাই অাল হাদী একাধিক পরকিয়া প্রেমে অাসক্ত। পেশায় যিনি একজন নিকাহ রেজিষ্টার বা কাজী। স্ত্রীর প্রতি নির্যাতন তার নিত্য দিনের কাজ। বর্তমানে তার সংসারে একাধিক স্ত্রী রয়েছে। তার অত্যাচার নির্যাতনে অতিষ্ট হয়ে ভূক্তোভূগী মান্দা উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউপি’র রুয়াই গ্রামের মমতাজের মেয়ে দিলরুবা খাতুন মামলাটি দায়ের করেন। ২০০৬ সালে তিনি বিবাহ বন্ধনে অাবদ্ধ হন। বিবাহের পর থেকেই স্বামীর নির্যাতনের স্বীকার হন তিনি। ভূক্তভোগীর পরিবারে ১০ বছর বয়সের একটি মেয়ে রয়েছে। অনেক নির্যাতনের একপর্যায়ে বাধ্য হয়ে ২০১৬ সালে একাধিক মামলা দায়ের করেন তিনি। ভূক্তোভূগী এবং তার পরিবারের লোকজনের দাবি যে তার মতো যেনো অার কোন নারীকে অার কখনো নির্যাতনের স্বীকার হতে না হয়। সেইসাথে মামলার দায় দ্রুত বাস্তবায়নের দাবিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি অাকর্ষণ করা হয়। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী, অাইনমন্ত্রী এবং স্ব-রাষ্ট্রমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানানো হয়। একইসাথে মামলার রায়ে উল্লেখিত নারী শিশু নির্যাতন দমন অাইন,২০০০ এর ১১(গ) ধারায় অাসামী দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় তার (১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড) শাস্তির দাবিসহ মামলার ক্ষতিগ্রস্ত বাদি’র ক্ষতিপূরণ বাবদ রায়ে উল্লেখিত ৭ লক্ষ টাকা’র (অর্থদণ্ড)দাবি করেন তারা। এসময় বক্তব্য প্রদান করেন দিলরুবা খাতুন,মোহাম্মদ অালী,ফরিদা বেগম,মিঠু,বাবু এবং অাবু বক্কর সিদ্দিক প্রমূখ।

সম্প্রতি সংবাদ