ঘন কুয়াশায় দুই নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ

editor ৬ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ breaking সারাদেশ

মানিকগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: ০৮ ডিসেম্বর ২০২০,

ঘন কুয়াশার কারণে দক্ষিণাঞ্চলগামী মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া এবং শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। কুয়াশা না কাটা পর্যন্ত ফেরি চলাচল বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এতে কয়েকশ পণ্য ও যাত্রীবাহী যানবাহন আটকা পড়েছে দুই ঘাটে।

মঙ্গলবার রাত পৌনে ১০টা থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রেখেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) কর্তৃপক্ষ।

বিআইডব্লিউটিসি আরিচা কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মহিউদ্দিন রাসেল জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকেই নদীতে ঘন কুয়াশা পড়তে থাকে। কুয়াশার তীব্রতা বেড়ে গেলে দুর্ঘটনার আশঙ্কায় ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

তিনি আরও জানান, ঘাটে পাড়ের অপেক্ষায় আটকে আছে তিন শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক ও কিছু যাত্রীবাহী বাস। এই রুটে বর্তমানে ছোট বড় ১৬টি ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার হচ্ছে। সকালে কুয়াশা কেটে গেলে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হলে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস ও ছোট গাড়ি পার করা হবে বলে জানান তিনি।

এদিকে পদ্মা নদীতে ঘন কুয়াশার কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরিসহ সবধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ করেছে বিআইডাব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার রাতের প্রথমভাগেই নদীতে ঘন কুয়াশায় সৃষ্টি হলে রাত ১০টা ২৫ মিনিটে নৌরুটটিতে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় বিআইডাব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাট কর্তৃপক্ষ। এতে নদী পারপাররত তিনটি ফেরি মাঝনদীতে আটকা পড়েছে।

বিআইডব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) ফয়সাল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে  জানান, কুয়াশার ঘনত্ব বেড়ে যাওয়ায় ফেরির মার্কিং বাতির আলো অস্পষ্ট হয়ে আসায় দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। মাঝ নদীতে তিনটি ফেরি আটকা পড়েছে।

এদিকে ফেরি বন্ধ হওয়ায় শিমুলিয়া ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় আটকা পড়েছে কয়েকশ যাত্রী ও পণ্যবাহী যানবাহন। ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ মানুষ ও পরিবহন শ্রমিক। কুয়াশা কেটে গেলে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হবে বলে জানিয়েছে ঘাট কর্তৃপক্ষ।

সম্প্রতি সংবাদ