ব্রেকিং নিউজ

পাংশায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত

editor ১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ খেলাধুলা সারাদেশ

মোক্তার হোসেন, পাংশা (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ঃ২৭ ডিসেম্বর-২০২০

রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার সরিষা ইউপির বহলাডাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে শনিবার ২৬ ডিসেম্বর বিকেলে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঐতিহ্যবাহী বি.কে.রূপালী সংঘ ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০২০ আয়োজন করে। খেলায় মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার শ্রীকোল ফুটবল একাদশ পাংশার বি.কে.রূপালী সংঘকে ২-১ গোলে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হয়।
বি.কে.রূপালী সংঘের সভাপতি, সরিষা ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ও বঙ্গবন্ধু কলেজের উপাধ্যক্ষ আব্দুস সোবাহানের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পাংশা উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান, সরিষা ইউপির তিনবার নির্বাচিত সাবেক চেয়ারম্যান, সরিষা বঙ্গবন্ধু কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও রাজবাড়ী জেলা পরিষদের সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আহম্মদ হোসেন।
তিনি বলেন, সরিষা ইউনিয়নকে শিক্ষা, সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড ও খেলাধুলায় অনন্য ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। যেখানে থাকবে না মাদক, থাকবে না সন্ত্রাস। আমরা তরুন প্রজন্মকে লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা আর সৃজনশীল সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত করার সুযোগ সৃষ্টি করতে চাই। কোনো সন্তান যদি মাদক ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ে সে পরিবারের অশান্তির শেষ নেই। তাই সময় থাকতে অভিভাবককে তার পরিবারের প্রতি- সন্তানের প্রতি সুনজর রাখার গুরুত্বারোপ করেন তিনি।
বীর মুক্তিযোদ্ধা আহম্মদ হোসেন বলেন, সন্তান ইয়াবা-ফেন্সিডিল বিক্রি করে অনেক কামাই করে, সন্তানের হাতে অবৈধ অস্ত্র থাকলে লোকে ভয় পায় এমন মনোভাব পরিহার করে ভালো হয়ে যান। সন্তানকে ভালো পথে চলার জন্য বলুন, তা না হলে প্রশাসন কিন্তু ছাড়বে না।
তিনি বলেন, বহলাডাঙ্গায় এত সুন্দর ও এতবড় খেলার মাঠ রয়েছে, যা অন্য কোনো এলাকায় নেই। তরুন-যুবসমাজকে খেলার মাঠে থাকার প্রত্যাশা ব্যক্ত করে আহম্মদ হোসেন বলেন- খেলোয়ারদের যখন যা প্রয়োজন তা প্রদান করা হবে। তিনি বলেন, ১৯৭৪ সাল থেকে এই মাঠে শরৎমেলার আয়োজন করা হতো। লাঠিখেলাসহ বিনোদনমূলক যাত্রা-গানবাজনা হতো। সর্বসাধারণ তা উপভোগ করত। ১৯৬৬ সালে বি.কে.রূপালী সংঘ প্রতিষ্ঠা করা হয়। এ.কে.এম শামসুল্লাহ সভাপতি ছিলেন। এই সংঘের আয়োজনে খেলাধুলা হতো। ফুটবল-ভলিবলের অনেক ভালো প্লেয়ার এখান থেকে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। বি.কে.রূপালী সংঘের অতীত ঐতিহ্য ধরে রাখার আহবান জানান তিনি।
অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু সাঈদ মাস্টার, আনোয়ার হোসেন মুকুল, সিদ্দিকুর রহমান, গোলাম সরোয়ার, আব্দুল আজিজ, মতিয়ার রহমান, আব্দুল আলী মিয়া, বাচ্চু বিশ্বাস, আব্দুল মমিন মোল্লা, বদর উদ্দিন আহমেদ, আব্দুল মান্নান, সাংবাদিক মোক্তার হোসেনসহ স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেণি পেশার বিশিষ্ট ব্যক্তিগণ উপস্থিত ছিলেন।
খেলা পরিচালনা করেন বি.কে.রূপালী সংঘের সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম সফি। তাকে সহযোগীতা করেন বাবু ও বায়জিদ। ভাষ্যকার ছিলেন বি.কে.রূপালী সংঘের আপ্যায়ন সম্পাদক আবুল কালাম।

সম্প্রতি সংবাদ