ব্রেকিং নিউজ

’নিখোঁজ বিমানে একই পরিবারে পাঁচ সদস্য, গর্ভবতী নারীও ছিলেন

editor ১৩ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ breaking আন্তর্জাতিক

কালের কাগজ আন্তর্জাতিক ডেস্ক,: ১০ জানুয়ারি ২০২১,

শনিবার ইন্দোনেশিয়ার বোয়িং ৭৩৭-৫০০ মডেলের বিমানটি উড্ডয়নের কয়েক মিনিটের মধ্যেই নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ হারায়৷ সুকর্নো-হাত্তা বিমানবন্দর থেকে পশ্চিম কালিমান্তান প্রদেশের রাজধানী পন্টিয়ানাক এর উদ্দেশ্যে প্লেনটি যাত্রা করে৷ ফ্লাইটটিতে মোট ৬২জন আরোহী ছিলেন৷

নিখোঁজ বিমানটির ফ্লাইট রেকর্ডার, কিছু ধ্বংসাবশেষ খুঁজে পেয়েছে উদ্ধারকারীরা৷ বিমানটি জাভা সমুদ্রে বিধ্বস্ত হয়েছে এবং কারও বেঁচে থাকার সম্ভাবনা নেই বলে মনে করছে কর্তৃপক্ষ৷

ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় সার্চ এবং উদ্ধার এজেন্সির টিম নিখোঁজ হওয়া শ্রিভিজয়া বিমানের ৬২ যাত্রীর খোঁজে অপরাশেন কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন। দেশটির পরিবহণ মন্ত্রী জানিয়েছেন, ওই বিমানে ৫০জন যাত্রী ছিলেন। এর মধ্যে ৪৩জন পুর্ণবয়স্ক এবং সাতজন শিশুও ছিল।

বিমানে আরোহীদের পরিবারের সদস্যদের জন্য দুইটি ক্রাইসিস সেন্টার খুলেছে কর্তৃপক্ষ৷ স্বজনদের খবরাখবর জানার জন্য তাদের অনেকেই এয়ারপোর্টে অপেক্ষা করছেন৷ যদিও সময় যত গড়াচ্ছে যাত্রীদের কারো বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ততই ক্ষীণ হয়ে আসছে৷

নিখোঁজ বিমানে পূর্ব সুমাত্রার বাঙ্গা দ্বীপের একই পরিবারের পাঁচ সদস্য ভ্রমণ করছিলেন। তারা সবাই নিহত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ওই পরিবারের ফুফা সম্পর্কীয় একজন সিএনএনকে বলেন, `২৬ বছর বয়সী রিজকী ওহায়দি, তার ২৬ বছর বয়সী স্ত্রী ইনদাহ হালিমাহ এবং তাদের সাত মাস বয়সী ছেলে সন্তান ওই ফ্লাইটে ভ্রমণ করছিল। ফ্লাইটে ওহায়দির মা এবং চাচাতো ভাইও ছিলেন। ওহায়দি তিন বছর ধরে পশ্চিম কালিমানতানের কেতাপাঙ্গের ফরেন কমিশনে চাকরি করতেন।

পাঁচ পরিবারের সদস্যরা বাঙ্গাকা দ্বীপে ভ্রমণ করছিলেন এবং জাকার্তা হয়ে পশ্চিম কালিমানতানের উদ্দেশে যাত্রা করছিলেন। রবিবার ওহায়দির চাচা তাদের খুঁজে পাওয়ার জন্য ডিএনএ জমা দিয়েছেন।

বিমানে ছিলেন চার মাসের সন্তানসম্ভাবা রাতি জিনদানিয়া তার দুই বছর বয়সী মেয়ে ইয়ামনা, আট বছর বয়সী ভাগ্নি আতাহার রিজকি রিয়াজান। শনিবার যাত্রা শুরু হবার পূর্বে ইন্সটাগ্রামে তিনি স্টোরি শেয়ার করেন। জাকার্তায় অবস্থান করা আত্মীয়দের উদ্দেশ্যে তিনি বিদায় জানিয়েছিলেন। কিন্তু কে জানতো এটা হবে তার শেষ `গুড বাই‘ বলা। মেয়ে ও ভাগ্নির সঙ্গে তিনি একটি সেল্ফিও শেয়ার করেন।

এদিকে দুর্ঘটনার কারণ জানতে তদন্ত শুরু করেছে শ্রিভিজয়া৷ সাংবাদিক সম্মেলনে তাদের প্রেসিডেন্ট ডিরেক্টর জেফারস আরউইন জানিয়েছেন, মেইনটেন্যান্স বা রক্ষণাবেক্ষণ প্রতিবেদন অনুযায়ী বিমানটির সবকিছু স্বাভাবিক ও চলাচল উপযোগী ছিল৷ একইদিনে সেটি অভ্যন্তরীন আরো দুইটি রুটে চলাচল করেছে বলেও জানান তিনি৷ তবে আবহাওয়া খারাপ থাকায় পন্টিয়ানাক এর উদ্দেশ্যে যাত্রার সময় উড্ডয়নে দেরি হয়েছিল৷

এক বছরেরও কম সময়ের মধ্যে এনিয়ে বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের দুইটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে৷ যদিও শনিবারের দুর্ঘটনাকবলিত বিমানটি ২৭ বছরের পুরানো এবং বর্তমান প্রজন্মের ৭৩৭ ম্যাক্স-এর ত্রুটিপূর্ণ এমসিএএস সিস্টেম এতে ব্যবহার হয়নি।

সম্প্রতি সংবাদ