ব্রেকিং নিউজ

সৈয়দপুরে পৌর মেয়র পদে বিএনপি প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল

editor ২০শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

শাহজাহান আলী মনন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি :০২ফেরুয়ারী-২০২১,মঙ্গলবার।
নীলফামারীর প্রথম শ্রেনীর সৈয়দপুর পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ্ব রশিদুল হক সরকার মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। ২ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার বিকাল পৌনে ৫ টায় তিনি দলীয় লোকজনসহ উপজেলা নির্বাচন অফিসে এ মনোনয়নপত্র জমা দেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক এমপি আলহাজ্ব শওকত চৌধুরী, জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ও জয়পুরহাট জেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম বিদ্যুৎ, সৈয়দপুর জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব শাহিন আকতার শাহিন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এস এম ওবায়দুর রহমান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এরশাদ হোসেন পাপ্পু, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক তারিক আজিজ, পৌর বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক শওকত হায়াৎ শাহ, উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক ও কামারপুকুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম লোকমান, পৌর বিএনপি’র আহ্বায়ক শেখ বাবলু, জামায়াতে ইসলামীর শহর আমীর শরফুদ্দিন খান, সাবেক পৌর আমীর মাওলানা আব্দুস সামাদ আজাদ প্রমুখ।
মনোনয়ন জমা দিয়ে আলহাজ্ব রশিদুল হক সরকার বলেন, আমার বড় ভাই ৪ বারের মেয়র ও সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকার ছিলেন সৈয়দপুরবাসীর প্রাণের নেতা। তার মুত্যুতে গত ১৬ জানুয়ারীর নির্বাচন বাতিল হয়েছে। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারী সৈয়দপুরবাসী তার প্রতি ভালবাসার প্রমাণ স্বরুপ তাদের ভোট দিয়ে আমাকে নির্বাচিত করবে বলেই বিএনপি আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে। সৈয়দপুর রাজনৈতিক জেলা বিএনপি’র সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা আজ তাদের প্রিয় নেতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে আমার সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন।
এমনকি জেলা বিএনপি’র দীর্ঘ ১৭ বছর নেতৃত্ব দানকারী সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক জাপা এমপি আলহাজ্ব শওকত চৌধুরী সদ্য বিএনপিতে যোগদান করে আমাকেই মেয়র পদে সমর্থন দিয়েছেন এবং নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছেন। তাই আমরা আশাবাদি আমার ভাইয়ের মতই সৈয়দপুরবাসী তাদের মনের মনিকোঠায় আমাকে স্থান দিয়ে বিএনপি’র হাতকে আরও শক্তিশালী করবেন।
সাবেক জাপা এমপি আলহাজ্ব শওকত চৌধুরী বলেন, আমাদের প্রয়াত নেতা আমজাদ হোসেন সরকারের ভোট ভাই আমাদের দলের মেয়র প্রার্থী হয়েছেন। আমরা সৈয়দপুর জেলা বিএনপি’র সর্বস্তরের নেতাকর্মী তার জন্য কাজ করে বিএনপি’র ঘাটি সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র পদ আমাদের জন্য অক্ষুন্ন রাখতে বদ্ধ পরিকর। আমরা নব উদ্যোমে ধানের শীষের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাবো। বিজয় আমাদেরই হবে ইনশা আল্লাহ।
পরে নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে মিছিল করে শহর প্রদক্ষিণ করে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রশিদুল হক সরকার।
নীলফামারী জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সৈয়দপুর পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার মোঃ ফজলুল করিম বলেন, আগের তফশিলে ১৬ জানুয়ারী নির্বাচন নেয়ার কথা ছিল। কিন্তু ভোটের দুইদিন আগে ১৪ জানুয়ারী স্বতন্র মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার মারা যাওয়ায় ভোট গ্রহন স্থগিত করা হয়। এর আগে একজন কাউন্সিলর প্রার্থীর মৃত্যুতে ১২ নং ওয়ার্ডের ভোটও স্থগিত হয়েছিল। পরে  আবারও তফশিল ঘোষনা করে ২৮ ফেব্রুয়ারি নতুন ভোট গ্রহনের তারিখ নির্ধারন করা হয়েছে। এতে মেয়র এবং ১২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে নতুন করে মনোনয়ন দাখিলের সুযোগ সৃষ্টি হয়। আজ ২ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে শুধুমাত্র মেয়র পদে ২ জন প্রার্থী মনোনয়পত্র জমা দিয়েছেন। একজন বিএনপি’র প্রার্থী রশিদুল হক সরকার আর অপরজন স্বতন্ত্র প্রার্থী এ্যাড. কামরুল হাসান। ১২ নং ওয়ার্ড থেকে নতুন করে কেউ মনোনয়ন জমা দেয়নি। এর মাধ্যমে সৈয়দপুর পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হলেন ৬ জন। অন্যরা হলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আখতার হোসেন বাদলের স্ত্রী রাফিকা আকতার জাহান বেবী (নৌকা), পৌর জাতীয় পার্টির আহবায়ক আলহাজ্ব সিদ্দিকুল আলম (লাঙল), ইসলামী আন্দোলনের উপজেলা সাধারন সম্পাদক হাফেজ নুরুল হুদা (হাতপাখা) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সমাজসেবক ও পরিবহণ ব্যবসায়ী রবিউল আউয়াল রবি (মোবাইল ফোন)।
এছাড়াও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ২১ জন এবং ১৫ টি ওয়ার্ডের সাধারন কাউন্সিলর পদে ৮৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে।

সম্প্রতি সংবাদ