ব্রেকিং নিউজ

সৈয়দপুরে সংঘর্ষের ঘটনায় এবারআ’লীগ-জাপার পাল্টা পাল্টি মামলা

editor ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

শাহজাহান আলী মনন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ২২ ফেরুয়ারী-২০২১,সোমবার।

নীলফামারীর সৈয়দপুরে পৌর নির্বাচন নিয়ে লাঙল ও নৌকার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে। সৈয়দপুর থানায় ২২ ফেব্রুয়ারী সোমবার পৃথক পৃথকভাবে দুটি মামলা করেছে উভয়পক্ষ। ইতোপূর্বে রবিবার আওয়ামীলীগ বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদে সভা এবং জাতীয় পার্টি সংবাদ সম্মেলন করে পরস্পরকে
জাতীয় পার্টির পক্ষে মামলা করেছেন দলটির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ফয়সাল দিদার দিপু। তিনি ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা হিটলার চৌধুরী ভলুসহ অঅজ্ঞাতনামা ৫০/৬০ জনকে আসামী করেছেন।
অপরদিকে  আওয়ামীলীগের পক্ষে মামলা করেছেন সৈয়দপুর পৌর কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাবু। তিনি জাতীয় পার্টির সৈয়দপুর পৌর কমিটির সদস্য সচিব আলতাফ হোসেন সহ ৯ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে ২০/২৫ জনকে আসামী করেছেন।
ফয়সাল দিদার দিপু তার মামলার এজাহারে অভিযোগ করেছেন যে, গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাত ১১ টায় পৌরসভার  ২ নং ওয়ার্ডের গোলাহাট ২নং উর্দুভাষী ক্যাম্পের নির্বাচনী পথসভা চলাকালে পূর্ব পরিকল্পিত ও অতর্কিতভাবে বেআইনি জনতায় দলবদ্ধ হয়ে লাঠিসোটা, রড, চেইন, ধারালো অস্ত্র সস্ত্র সহ ইট পাথর নিয়ে ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা হিটলার চৌধুরী ভলুর নেতৃত্বে আরও ৫০/৬০ জন লোক লাঙল মার্কার নেতাকর্মী সমর্থকদের উপর এলোপাথাড়ি হামলা চালায়। এতে আমাদের লেকজন হতচকিত হয়ে এদিক সেদিক ছুটাছুটি শুরু করে। হিটলার চৌধুরী ও তার কিছু পাতি নেতা এ অপকর্ম করার উৎসাহ দেয়। তাদের নির্দেশে আমাদের নেতাকর্মীর প্রায় ২০/৩০ টি মোটর সাইকেল ভাঙ্চুর করে।
হিটলার চৌধুরী নিজে লাঙল মার্কার প্রার্থী আলহাজ্ব সিদ্দিকুল আলম সিদ্দিকের ছেলের মোটর সাইকেলে আগুন লাগায় এবং অন্যরা দলের এক কর্মীর আরেকটি মোটর সাইকেল পুড়িয়ে দেয়। হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত ১৪ টি মোটর সাইকেল থানায় পুলিশের হেফাজতে আছে। কিন্তু ২ টি মোটর সাইকেল নিখোঁজ রয়েছে। এসময় প্রতিপক্ষের আক্রমণে ২৫/৩০ জন নেতাকর্মী আহত হয়ে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রয়েছেন।
লাঙল মার্কার বিজয়ের পথ দেখে তারা ঈর্ষান্বিত হয়ে আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে জঘন্য এ অপকর্ম করেছে। বিষয়টি এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি করলে গোলাহাটের প্রধান সড়কটি রণক্ষেত্রে পরিনত হয়। ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এরপরও তারা শহরজুড়ে লাঙল মার্কার পোষ্টার, ব্যানার ছিড়ে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে।
এজাহারে আরও বলা হয়েছে যে, আসামী হিটলার চৌধুরী দূর্দান্ত প্রকৃতির আইন অমান্যকারী ও এলাকায় ত্রাস সৃষ্টিকারী দাগী সন্ত্রাসী। তার নামে একাধিক মামলা আছে। তার এরুপ গুন্ডাগিরি সন্ত্রাসী কায়দায় হামলার মত অপরাধ বিষয়ে লিখিতভাবে নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসারকে জানানো হয়েছে।
রফিকুল ইসলাম বাবু এজাহারে অভিযোগ করেছেন যে, শনিবার গোলাহাট ক্যাম্পে পথসভা করে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী সিদ্দিকুল আলম। ওই সভায় জাপা নেতা আলতাফ হোসেন ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগ সভাপতি হিটলার চৌধুরী ভলুর বিরুদ্ধে সমালোচনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন। এতে স্থানীয় লোকজন বাধা দিলে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে হিটলার চৌধুরীর বাড়িতে ঢুকে জীপগাড়ি,  আসবাবপত্র ও বঙ্গবন্ধুর ছবিযুক্ত দলীয় সাইনবোর্ড ভাঙ্চুর করে।
সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল হাসনাত খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, উভয়ের লিখিত এজাহার পেয়েছি। তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উল্লেখ্য, গত ২০ ফেব্রুয়ারি শনিবার রাত ১১ টায় নৌকা ও লাঙল মার্কার কর্মী সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ, মোটর সাইকেল ভাঙ্চুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে।
২১ ফেব্রুয়ারি এ নিয়ে আওয়ামীলীগ বঙ্গবন্ধুর ছবি অবমাননার অভিযোগে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। আর জাতীয় পার্টির উপজেলা আহ্বায়ক ও মেয়র প্রার্থী ইকু গ্রুপের এমডি আলহাজ্ব সিদ্দিকুল আলম সিদ্দিক হামলায় জড়িতদের গ্রেফতারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেন। নয়তো নির্বাচন বর্জনের হুমকি দেন। আজ উভয়পক্ষ পাল্টা পাল্টি মামলা করলো। এতে এলাকায় চরম উত্তেজনা ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। ভোট সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেছেন সৈয়দপুরবাসী। (ছবি আছে)

সম্প্রতি সংবাদ