ব্রেকিং নিউজ

গোয়ালন্দে ভয়াবহ আগ্নিকান্ডে নিঃস্ব ১১ পরিবার

editor ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ সারাদেশ

শরিফুল ইসলাম বাচ্চু, গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি:২৫ এপ্রিল-২০২১,রবিবার।
গোয়ালন্দ উপজেলার উজানচর ও দেবগ্রাম ইউনিয়নে ভয়াবহ দুটি অগ্নিকান্ডের ঘটনায় নিঃস্ব হয়ে গেছে ১১ টি পরিবার।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সন্ধ্যার দিকে উজানচরের দুদুখান পাড়া এবং দেবগ্রামের জটু মিস্ত্রি পাড়ায় এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা দুটি ঘটে। ইফতারির আগে তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে চুলোর আগুন থেকে অসাবধানতাবশত এ আগুনের ঘটনা ঘটে। আগুনে নিঃস্ব হয়ে গেছে ১১টি পরিবার।
দুদুখান পাড়ায় জাহাঙ্গীর মোল্লা এবং জটু মিস্ত্রী পাড়ায় ফারুক শেখের বাড়ির রান্না ঘর হতে আগুনের সূত্রপাত ঘটে বলে স্থানীয়রা জানান।
খবর পেয়ে দুদুখান পাড়ায় গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের একটি দল এবং জটু মিস্ত্রি পাড়ায় রাজবাড়ী ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনা স্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু ততোক্ষণে উভয় এলাকার ১১ টি পরিবারের সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়। পরিবারগুলো এখন খেলা আকাশের নিচে মানবেতর দিন কাটাচ্ছে।
দুদুখান পাড়ায় ক্ষতিগ্রস্থরা হলেন মোজাফফর মোল্লা, জাহাঙ্গীর মোল্লা, মাইনদ্দিন মোল্লা, আবদুল বিশ্বাস, জুলহাস এবং প্রতিবন্ধী মজনু বিশ্বাস।
জটু মিস্ত্রি পাড়ায় ক্ষতিগ্রস্থরা হলেন ফারুক শেখ, মোহাম্মদ আলী শেখ, মমিন শেখ, কাঞ্চন শেখ এবং ময়না বিবি। তারা তাদের বসত ঘরসহ সর্বস্ব হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। এখানে আগুনে পুড়ে মারা গেছে ৫ টি ছাগল।
সরেজমিন রবিবার সকালে দেখা যায়, উজানচর দুদুখান পাড়ার সম্ভ্রান্ত কৃষক মোজাফফর হোসেন। আগুনে তার ৪ টি চারচালা বড় বসত ঘর, দুটি রান্না ঘর, ৭০/৮০ মন কৃষিপণ্য ও বহু আসবাবপত্র, নগদ অর্থ, সকল পোশাক-পরিচ্ছদ ও স্বর্ণের গহনা পুড়ে গেছে। তার ক্ষয়ক্ষতির পরিমান আনুমানিক ২৫/৩০ লাখ টাকা।
মোজাফফর মোল্লার মেজ ছেলে আবু বক্কার মোল্লা বলেন, আমাদের সাজানো-গোছানো বিশাল সংসার ছিল। আগুণে মুহুতের মধ্যে সব শেষ করে দিল। জানি না আমাদের কপালে কি রয়েছে। প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক মজনু একমাত্র থাকার ঘরটি হারিয়ে বৃদ্ধা মা’কে নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। আগুনে সর্বস্ব হারিয়ে অসহায় পরিবারগুলো খোলা আকাশের নিচে আশ্রয় নিয়েছে।
এদিকে দুদুখান পাড়ায় রবিবার দুপুরে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে চাল, ডালসহ বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী বিতরন করেন উজানচর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক পাপ্পু মৃধা।
উজাচরের স্থানীয় ইউপি সদস্য চুন্নু মীর মালত জানান, তারা আগুন নেভানোর চেষ্টা করলেও তা মূহুর্র্তের মধ্যে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। তবে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল আসায় পুরো গ্রাম আগুন থেকে রক্ষা পায়।
গোয়ালন্দ উপজেলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন মাষ্টার আব্দুর রহমান জানান, কাছাকাছি সময়ের মধ্যে দুটি বড় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটলেও আমরা চেষ্টা করেছি দ্রুত সময়ের মধ্যে ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিতে এবং ক্ষয়ক্ষতির পরিমান যতটা সম্ভব কমাতে।

সম্প্রতি সংবাদ