Logo
ব্রেকিং :
বঙ্গবন্ধু কাপ টেনিস টুর্নামেন্ট-২০২৩ এর ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত      পাবিপ্রবির ১৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত টাঙ্গাইলে জ্বীনের বাদশা ও তার সহযোগী গ্রেফতার নগরকান্দায় শশা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের  বার্ষিক ক্রীড়া  প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত  ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ অফিস বার্ষিক পরিদর্শনে রেঞ্জ ডিআইজি আদমদীঘিতে ইউএনও’র কম্বল পেলেন প্রতিবন্ধী জোৎস্না বাগেরহাটে মোরেলগঞ্জে চেতনানাশক খাবারে শিশুসহ ৪ জন হাসাপাতালে লোহাগড়ায় মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ যুবকের লাশ উদ্ধার গোয়ালন্দে মাঠ  দিবস পালিত নাগরপুরে সরকারের উন্নয়নের ধারা প্রচারে ব্যস্ত আওয়ামীলীগ নেতা হিমু
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

গণশুনানির নামে গণতামাশা বিএনপির, শামা ওবায়েদের হাস্যকর কথায় বিব্রত রাজনৈতিক মহল

রিপোর্টার / ২২ বার
আপডেট শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯

কালের কাগজ ডেস্ক:২২ ফেব্রুয়ারী,শুক্রবার।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিভিন্ন অনিয়মের হাস্যকর অভিযোগ তুলে শুক্রবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে আইনজীবীদের মিলনায়তনে গণশুনানির নামে এক ছোটখাটো গণ-তামাশার আয়োজন করে বিএনপি। উক্ত আয়োজনে সাধারণ জনগণের উপস্থিতির পরিবর্তে সর্বসাকুল্যে ৪৮৭ জন বিএনপি’র নেতাকর্মী উপস্থিত হয়।
এ গণশুনানিতে বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব কে এম ওবায়দুর এর কন্যা শামা ওবায়েদ নির্বাচন নিয়ে নানা প্রকারের অভিযোগ তুলেন। যা রীতিমতো হাস্যকর এবং বিব্রতকর ছিলো জানিয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষক এবং টেলিভিশন ব্যক্তিত্বরা বলছেন, অভিযোগের রাজনীতি থেকে এখনো বের হতে পারলো না বিএনপি। তারা অভিযোগ তোলার পূর্বে ভুলে যায় ২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কথা। যে নির্বাচনে বিএনপির সন্ত্রাসী হামলায় আওয়ামী লীগের ২০০ নেতা-কর্মী মারা যান। ২০০১ সালের নির্বাচনের আগে বিএনপি শুরু করে সংখ্যালঘুদের উপর অমানুষিক নির্যাতন। শত শত হিন্দু মেয়েদের ঘর থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়, শুধু মাত্র সংখ্যালঘুরা নৌকায় ভোট দিতে পারে এই কারণে। যার উৎকৃষ্ট উদাহরণ ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত জোটের জয়ের পর সিরাজগঞ্জে ১৩ বছর বয়সী পূর্ণিমা রাণী শীল ধর্ষণের ঘটনা। আর সেই বিএনপি যদি এখন নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ তুলে তা হবে দুঃখজনক।

এদিকে গণশুনানির নামে গণ তামাশায় ৪৮৭ জন কর্মীর উপস্থিতি প্রমাণ করে বিএনপির জনপ্রিয়তা বর্তমানে শূন্যের কোটায়। এমন মন্তব্য করে এক রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, সকল মানুষের একটাই সমস্যা। তারা নিজের দোষ কখনোই খুঁজে পায় না। রুহুল কবির রিজভী একটি মিছিল করার জন্য ৫০ জন লোক খুঁজে পায় না, গণশুনানিতে ৫০০ জন সাধারণ মানুষ হয় না। যা প্রমাণ করে সাধারণ মানুষ তাদের কথা শুনছে না। দেশের জন্য দরদ দিয়ে কাজ করলে দেশের মানুষ ভোটের মাধ্যমে সেই দরদ ফেরত দেয়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ফলাফল প্রমাণ করে দেশের মানুষ কাকে চায়, আর কাকে চায় না। এখন বিএনপি যতোই কান্না কাটি করুক কোনো লাভ নেই। তাদের এই কান্নার শব্দ বিএনপির কিছু কর্মীর কান পর্যন্ত পৌঁছাবে, তবে দেশের জনগণের কাছে কখনোই পৌঁছাবে না।

দলীয় কোন্দলে জর্জরিত বিএনপি খানিকটা বেসামাল অবস্থায় রয়েছে। বর্তমানে তারা বুঝতে পারছে না, তারা কোন পথে এগোবে। আর এই কারণে তারা আবোল তাবোল বলছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তাই ২০২৫ সালের নির্বাচনে একটি শক্তিশালী দল হতে বিএনপিকে অন্যের বদনাম না করে নিজের গঠনতন্ত্র শক্ত ও জনমানুষের রাজনীতি করার পরামর্শ দেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।


এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com