Logo
ব্রেকিং :
বিপিএলের ট্রফি গেল বরিশালে শপথ নিলেন নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রী বেইলি রোডের আগুনে মৃত ৩৮ জনের পরিচয় শনাক্ত, হস্তান্তর ২৯ বেইলি রোডের আগুনে ৪৬ জনের মৃত্যু : আশঙ্কাজনক ১৯ ঘিওরে রাতের আঁধারে বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে ফেললো দুর্বৃত্তরা রাণীশংকৈলে জাতীয় বীমা দিবস পালন উপলক্ষে র‍্যালি ও আলোচনা সভা  নগরকান্দায় কুকুরের কামড়কে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ আহত -১০ বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হমলা লুটপাট গোয়ালন্দে দীর্ঘ দিন পর  শিল্পকলা একাডেমির কার্যক্রম শুরু, চলছে শিক্ষার্থী ভর্তি গোয়ালন্দে পায়াকট বাংলাদেশের  সেফ হোমে ইউএনও’র মানবিক সাহায্য প্রদান নেত্রকোনায় দি হলি চাইল্ড কিন্ডার গার্টেনের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

ঘাট আধুনিকায়নের কাজ ধীরগতি  দৌলতদিয়ায় পদ্মা নদীর ভাঙ্গনে হুমকিতে লঞ্চও ফেরি ঘাট 

রিপোর্টার / ১২৬ বার
আপডেট বুধবার, ১৮ মে, ২০২২

আবুল হোসেন,রাজবাড়ী প্রতিনিধি  :
রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়ায়  পদ্মা নদীর পানি বাড়তে  শুরু করেছে। পদ্মার  পানির সাথে পাল্লা দিয়ে ভাঙ্গছে  নদী। নদী ভাঙ্গনে ফলে হুমকিতে রয়েছে শতাধীক গ্রাম এবং  লঞ্চ ও কয়েকটি ফেরি ঘাট।
বর্ষা মৌসুমের আগেই  দৌলতদিয়া-  পাটুরিয়া  ঘাটকে  আধুনিক নৌ বন্দরে  উন্নয়ন ও স্থায়ী নদী শাসনের  কাজ শুরু হওয়ার  কথা থাকলেও  এখন পর্ষন্ত   সেই  কাজ দৃশ্যমান কিছুই  দেখা যাচ্ছে না। জমি অধিগ্রহণ ও বুয়েটে নকশা অনুমোদন না হওয়ায় বর্ষা মৌসুমের আগে বন্দরের কাজ শুরু করা নিয়ে অনিশ্চয়তা  দেখা দিয়েছে। ।
সরেজমিনে দেখা যায়, ১৮ মার্চ বুধবার  দৌলতদিয়া ইউনিয়নের ১,২ এবং ৩ ওয়ার্ডের বেশ কয়েকটি গ্রাম গত বছরে  নদী ভাঙ্গনে  বিলিন হয়ে গেছে। নদী ভাঙ্গনের শিকার অনেক পরিবার এখনও  তাদের নিজস্ব জায়গা জমি না থাকায় নদীর পাড়, স্কুলের মাঠে অস্থায়ী ভাবে ঘর কামড়ি দিয়ে  কোন রকম জীবন যাপন করছে।  এছাড়া নদী ভাঙ্গনের কবলে ১ ও ২ নং ফেরী ঘাটের সংযোগ সড়ক  বিলিন হয়ে যায়।  ফেরি ঘাট দুইটি এখন পর্ষন্ত বন্ধ রয়েছে।
এ বছর নতুন করে লঞ্চ ঘাটের বিপরীত  দিকে  লালু মন্ডল পাড়া থেকে নদীর তীরবতী দেবগ্রাম ইউনিয়নের অন্তর মোড় পর্যন্ত প্রায় ৭ কিলোমিটার। ফেরি ঘাট এলাকার ছিদ্দিক কাজীর পাড়া  এলাকায়  নদী ভাঙন দেখা দিয়েছে। গত এক মাস ধরে পদ্মা নদীর তীরবতী অঞ্চলে ভাঙনে প্রায় অর্ধশতাধিক  পরিবার ভিটা মাটি ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছে। নদীতে বিলিন হওয়ার ঝুকিতে  রয়েছে কয়েক শত বিঘা কৃষি জমি। আরো ভাঙন ঝুুঁকিতে রয়েছে  দৌলতদিয়া লঞ্চ ঘাট, ১ থেকে ৪ নং ফেরি ঘাট,( ৪ টি ফেরি ঘাট)।  বাস টার্মিনাল, বাজার, স্কুল, মাদ্রাসা  খানকা শরীফ সহ প্রায় কয়েক হাজার পরিবার।
রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ড ও বিআইডাব্লিউটিএ এর সূত্রে জানা গেছে, বন্দর  আধুনিকায়নের সাথে  দৌলতদিয়া ঘাটে ৬ কিলোমিটার  এবং পাটুরিয়া  ঘাটে ২ কিলোমিটার  স্থায়ীভাবে নদী শাসনের কাজ করা হবে। গত বছর  ৬৮০ কোটি টাকার  প্রকল্প একনেকে অনুমোদন হয়েছে। কাজটি বাস্তবায়নের  জন্য রাজবাড়ী পাউবোকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। নিদিষ্ট  সময়ে বন্দরের  কাজ শুরু করতে না পারায় নির্মাণ সামগ্রীর দাম বেড়ে যাওয়ার কারনে এ কাজের বর্তমান ব্যয় হবে ১ হাজার কোটি টাকা থেকে  ১২’শ কোটি টাকা পর্যন্ত।
দৌলতদিয়া লালু মন্ডল পাড়ার নদী ভাঙ্গনের শিকার মনোয়ারা বেগম(৫৫) বলেন, আমার বসত বাড়ী সহ ৪ বিঘা কৃষি  জমি ছিলো। বসত বাড়ীসহ জমি নদীতে বিলীন হয়ে গেছে।  অন্যত্র নিজের জমি না থাকায় ঘর টি মডেল হাই স্কুলের মাঠের এক পাশে জমা করে রেখেছি। ছাপড়া ঘর তুলে নদীর পাড়ে বসবাস করছি। তিনি আরো বলেন, গত বছর বন্যার সময়  নদী শাসনের জন্য যে সকল  জিও ব্যাগ নদীতে ফেলা হয়েছিলো সে গুলো শুকনো মৌসুমে ফেললে এতোটা নদীতে ভাঙ্গতো না।
৩নং ওয়ার্ড় শাহাজদ্দিন বেপারী পাড়ার মো. জব্বার শেখ( ৬০) বলেন,  নদীর পানি বাড়ার সাথে সাথে নদী ভাঙ্গন শুরু হয়েছে।  আমরা ত্রান চাই না, নদী শাসন চাই।
রাজবাড়ী পাউবো উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো.আরিফুর রহমান  অংকুর বলেন, আমরা নকশা করে বিআইডাব্লিউটিএ’র  নিকট দিয়েছি। তারা সেই নকশাটি ঠিক আছে কি না দেখার জন্য বুয়েটে পাঠিয়েছে। সেখান থেকে নকশাটি আমাদের নিকট আসলে আমরা  নদী শাসনের কাজ শুরু করবো।
নিদিষ্ট সময়ে কাজ না করায়, কাজের বর্তমান ব্যয় বেড়ে  হবে ১ হাজার কোটি টাকা থেকে  ১২’শ কোটি টাকা পর্যন্ত।
দৌলতদিয়া – পাটুরিয়া নৌ বন্দর আধুনিকায়ন প্রকল্পের পরিচালক  ও বিআইডাব্লিউটিএ’র তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী  মোহাম্মদ তারিকুল হাসান বলেন, বুয়েট থেকে নকশা  অনুমোদন এবং জমি অধিগ্রহন  সম্পুর্ন হয়নি। এসকল কাজ সম্পর্ণ হলে বন্দর  আধুনিকায়ন ও স্থায়ী নদী শাসনের কাজ শুরু করা হবে।


এ জাতীয় আরো খবর
Tech Support By Nagorikit.Com