Logo
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

চৌহালীতে চরসলিমাবাদ উত্তর পাড়া নড়বড়ে কাঠের সাঁকোটি মরণ ফাঁদ

রিপোর্টার / ২৫ বার
আপডেট শনিবার, ১৩ এপ্রিল, ২০১৯

চৌহালী (সিরাজগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ ১৩ এপ্রিল-২০১৯,শনিবার।
সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার চরছলিমাবাদ উত্তর পাড়া গ্রামে খালের উপর নড়বড়ে কাঠের সাঁকোটি মরণ ফাঁদ।
কাঠের সাঁকোটি দিয়ে পয়লা পুর্ব পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহ ৫টি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীর ও গ্রামবাসী প্রতিদিন পারাপার হয়ে থাকে। এলাকা বাসির একমাত্র ভরসা খালের উপর কাঠের সাঁকোটি, শিক্ষার্থীদের পাড়াপাড়ে এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। এলাকা সুত্রে জানা যায়, ৪ বছর আগে নির্মিত প্রায় ৫০ ফুট দৈর্ঘ্যরে কাঠের সাঁকোটি স্থাপন করা হয়। এই কাঠের সাঁকো দিয়ে পয়লা পুর্ব পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ২শতাধিক শিক্ষার্থী ও গ্রামবাসি প্রতিদিন যাতায়াত করে। ভুতেরমোড় বাঘুটিয়া সড়কের খালের পুর্ব পাশে কাঠের সাঁকোটি এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। উপজেলার পয়লা সপ্রাবির শিক্ষার্থীরা বলেন, আমাদের স্কুলে প্রায় ২শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী রয়েছে। প্রতিষ্ঠারে পাশে নড়ভড়ে ভাঙ্গাচুড়া পরিত্যক্ত কাঠের ব্রীজ দিয়ে আমাদের আসা-যাওয়ায় জীবনের ঝুকি নিয়ে পারাপার হতে হয়। ব্রীজটি কর্তৃপক্ষের নজরে থাকলেও কার্যকর ভুমিকা রাখছেন না। শতভাগ শিক্ষা বাস্তবায়নে সরকারের কাছে দ্রুত ব্রীজ নির্মানে আমাদের জোর দাবি করেন। প্রধান শিক্ষক ছানোয়ার হোসেন জানান, পয়লা পুর্ব পাড়া সপ্রাবি সংলগ্ন এ কাঠের সাঁকোটি ৪ বছর আগে নির্মান করা হয়। সাকোটির নির্মান দির্ঘদিনের হওয়ায় এটি এখন নড়বড়ে হয়ে ঝুকি পূর্ণ ও মরণ ফাঁদ হয়ে দাড়িয়েছে। তাই সব সময় এ ব্রিজ দিয়ে প্রতিনিযত চলাচল করতে হয় শিশু শিক্ষার্থীদের। এ খালের ব্রীজ এর নীচে সর্বক্ষন পানি থাকে,তাই বর্ষার মৌসুমে এই ঝুকিপূর্ণ সাকো দিয়ে যাতায়াতে সময় অনেক কোমলমতি শিক্ষার্থী পানিতে পরে দুর্ঘটনা ঘটে। ব্রীজ ব্যবহার অনোপযগী ও জনদুর্ভোগ চরমে, সাকোটি আমাদের যাতায়াতের এক মাত্র ভরসা। জনবহুল এলাকার গুরুত্বপুর্ণ ব্রীজ নির্মান প্রয়োজন । তাই অবিলম্বে এখানে একটি ব্রীজ নির্মানের জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানান। গ্রামীন জনপদের সড়ক ভাঙ্গা ও খালের ওপর ব্রীজই বদলে দিতে পারে এলাকার বাসির ভাগ্য।এ ব্যাপারে বাঘুটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাহহার সিদ্দিকী জানান, ব্রীজ পরিদর্শন করে দেখেছি, উপজেলা প্রকৌশলী ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অধিদপ্তরের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি


এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com