Logo
ব্রেকিং :
হস্ত ও কুটির শিল্পকে বিশ্ব বাজারে পৌছে দেয়া হবে—– বানিজ্য প্রতিমন্ত্রী দৌলতপুরে উপজেলা প্রশাসনের বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ উদযাপন নগরকান্দা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ উদযাপন দৌলতপুরে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সাথে সাবেক সাংসদ দূর্জয়ের শুভেচ্ছা বিনিময় নাগরপুরে আ.লীগ নেতাকর্মীদের ঈদ উপহার পৌঁছে দিয়েছেন তারানা হালিম এমপি রাণীশংকৈলে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় বৃদ্ধার মৃত্যু মির্জাপুরে ফিল্মি স্টাইলে অপহরণকারী আটক রাজবাড়ীতে ‘হার পাওয়ার’ প্রকল্পের আওতায় নারীদের মাঝে ল্যাপটপ বিতরণ করেন—–রেলপথ মন্ত্রী মোঃ জিল্লুল হাকিম নাগরপুরে একতা সাংস্কৃতিক উন্নয়ন সংস্থার বস্ত্র বিতর  নাগরপুরে শিল্প উদ্যোক্তা কোমলের উদ্যোগে মুসল্লিদের ঈদ উপহার প্রদান
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

টাঙ্গাইলে আমানত স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভূল চিকিৎসায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন খাদিজাতুল কোবরা\ অভিযোগ স্বামীর

রিপোর্টার / ২০৭ বার
আপডেট বুধবার, ২৫ মে, ২০২২

মুক্তার হাসান,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি :২৫ মে-২০২২,বুধবার।

ডাক্তারের ভুল চিকিৎসা ও ক্লিনিকের অব্যবস্থাপণার কারনে হাসতাপাতাল বেডে শুয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন এক মা। ঘটনাটি ঘটেছে টাঙ্গাইল শহরের পৌর এলাকার সাবালিয়া আমানত স্পেশালাইজড হাসপাতালে। জানা যায়, গত ১৫ই মে পৌর সভার ৯নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর আব্দুর রাজ্জাকের ভাই আরিফুর রহমানের স্ত্রী খাদিজাতুল কোবরা অন্তরা’র (২৪) ডেলিভারী ব্যাথা উঠলে সিজারের অপারেশন এর জন্য আমানত স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তি হন।

এরপর খাদিজাতুল কোবরা’র (২৪)ক্লিনিকালি সকল ধরণের পরীক্ষা -নিরীক্ষা করানো হয়। সব পরিক্ষার রেজাল্ট ঠিক থাকায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সকাল ১০টায় সিজারের সময় বেদে দেয়। তারপর ডাক্তার লিংকু রানী কর এর তত্যাবধানে অপারেশন শেষে বাচ্চাকে পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এবং ১ ঘন্টা পরে বাচ্চার মাকে বেডে দেওয়া হয়। দেওয়ার পর থেকেই খাদিজাতুল কোবরা’র খিঁচুনি আর বমি শুরু হয় বলে জানান তার স্বামী আরিফুর রহমান। উপায়ন্তর না দেখে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কে বিষয়টি অবহিত করা হয়। কর্তৃপক্ষ বলেন সমস্যা নেই ঠিক হয়ে যাবে। এটা হয়েই থাকে! তারা কোনো গুরুত্বই দেয়নি বলে অভিযোগ রোগীর পরিবারের। এভাবে ১ ঘন্টা অতিবাহিত হলে রোগীর অবস্থা ধীরে ধীরে খারাপ হতে থাকে। দেখা যায় তার অপারেশনের সেলাই থেকে রক্ত বের হয়ে বিছানা রক্তে ভিজে গেছে। অস্বাভাবিক রক্তক্ষরণের ফলে রোগী আস্তে আস্তে নিস্তেজ হয়ে পরে।

রোগীর অবস্থা একদম সংকটপূর্ণ হওয়ায় তাকে দ্বিতীয় বারের মতো আবার ওটিতে নিয়ে যাওয়া হয়। শুরু হয় পূনরায় অপারেশন তখনও রক্ত পরা বন্ধ না হওয়ায় তারা সন্ধ্যার দিকে এসে জানায়,আমাদের পক্ষে রোগীর রক্ত বন্ধ করা সম্ভব নয়। তখন রোগীর পরিবার রোগীকে অন্যত্র স্থানান্তর করতে বললে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ না না তালবাহানা শুরু করেন ভুক্তভোগীর পরিবার অনেক অনুরোধ করার পর রাত ৮ টার সময় রোগীকে কুমুদিনী হাসপাতালে স্থানারিত করে দেন। এরপর কুমুদিনী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার রোগীর অবস্থার অবনতি দেখে তাকে রাত ১১.৩০ মিনিটের সময় ঢাকা মেডিক্যাল হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শদেন। এরপর রোগীকে নিয়ে এ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকা মেডিকেলের উদ্যেশ্যে রওনা করা হয়। হতাশা আর না না বিদ চিন্তায় দিশকুল হারিয়ে ফেলে রোগীর পরিবার। রাত্রি ২.৩০ মিনিটে ঢাকা মেডিকেলে পৌছালে সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার তার চিকিৎসা দিতে থাকেন। এতোও যখন রোগীর উন্নতি হচ্ছিলো না। তখন ডাক্তারগণ রোগীকে স্কয়ার হাসপাতালে আইসিউতে রাখার পরামর্শদেন বলে জানান রোগীর স্বামী আরিফুর রহমান।

দেরি না করে “স্কয়ার হাসপাতাল” এর উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে ভোর ৪ টায় স্কয়ার হাসপাতালে পৌঁছায়। তখন সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার রোগীর কন্ডিশন সিরিয়াস দেখে চিকিৎসা দিতে অপারোগতা প্রকাশ করেন। ভুক্তভোগীর পরিবার কর্তৃপক্ষকে অনেক অনুরোধ করার পর রোগীকে আইসিউতে ভর্তি করেন। সেখানে আইসিউতে রেখে চলছে মা’ খাদিজাতুল কোবরা’র চিকিৎসা। তার পরিবারের পক্ষ থেকে সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করছেন। এদিকে খোজ নিয়ে জানা যায় আমানত স্পেশালাইজড হাসপাতালে এর আগেও অনেক রোগীর হয়রানীর স্বীকার হয়েছে। এব্যপারে ডাক্তার লিংকু রানী কর এর সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন আমি এখন ওটিতে ডুকবো। কোন কথা বলতে পারবো না পরে ফোন দিয়েন বলে ফোনটি কেটে দেন। এ বিষয়ে সিভিল সার্জন ও প্রশাসনের সু দৃষ্টি কামনা করেন রোগীর পরিবার। আর যেন কোন মা’ বা কোন রোগী এরকম হয়রানীর স্বীকার না হয়। পাশাপাশি ডাক্তার লিংকু রানীর শাস্তি দাবী করেন ভূক্তভোগী পরিবার। এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।


এ জাতীয় আরো খবর
Tech Support By Nagorikit.Com