Logo
ব্রেকিং :
নাগরপুরে মহাসড়কের পাশে অবকাঠামো নির্মাণে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা জারি প্রভাবশালীর অত্যাচারে জীবনের ভয়ে  ছয় মাস থেকে বাড়ি ছাড়া ২টি পরিবার দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে ইট ভাটায় অভিযান, জরিমানা আদায় কেন্দ্রীয় যুবদল নেতা নূরুল ইসলাম নয়ন জামিনে মুক্ত নেত্রকোনা জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যনির্বাহী পরিষদের সভা নেত্রকোনায় অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচীর কর্মশালা নেত্রকোনা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পুরস্কার বিতরনী নড়াইলে জামায়াতের ১১ নেতাকর্মী গ্রেফতার ভোলার শশীভূষণে স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং সভা ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত কালিয়ায় নিখোঁজ ব্যবসায়ী ইসহাক মোল্যার লাশ উদ্ধার
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

নাগরপুরে চাঁদাদাবির মামলার আসামি জামিনে এসেই বাদীকে হুমকি

রিপোর্টার / ১৯ বার
আপডেট বুধবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯

আবু বকর সিদ্দিকী নাগরপু(টাঙ্গাইল) থেকে ঃ০৬ ফেব্রুয়ারী,বুধবার ।
টাঙ্গাইলের নাগরপুরে চাঁদাদাবির অভিযোগে দায়ের করা মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামীরা জামিনে এসেই মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদীকে হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জামিনে বের হয়েই বেপরোয়া হয়ে উঠেছে আসামিরা। তারা ফের কবরাস্থানের জমি দখলে নেয়ার জন্য পায়তারা করছে বলে অভিযোগে জানা গেছে। নাগরপুর থানায় দায়ের করা চাদাদাবির মামলার বাদী মো. সোনা মিয়া জানান, উপজেলার গয়হাটা ইউনিয়নের শ্যামপুর মৌজায় ৭২ শতক জায়গার উপরে প্রায় শত বছরের একটি কবরস্থান রয়েছে। কবরাস্থানটির পাশেই মসজিদ ,মাদ্রাসা ও এতিমখানা নির্মানের উদ্দেশ্যে মাটি ভরাটের কাজ শুরু করা হয়। গত ৭ জানুয়ারী পুগলী গ্রামের বারেকের ছেলে বরকত,মঙ্গলের ছেলে জিন্নত, আবু তাহেরের ছেলে মিজানুর , সুজায়েত, মহরের ছেলে মোসলেম ও গিয়াসের ছেলে ফটিকের নেতৃত্বে এরা দলবদ্ধ হয়ে দুই লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে আসামীগন আমার পকেট থেকে জোর করে ২৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। বাকী ১লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা ৭ দিনের মধ্যে দেয়ার জন্য হুমকি দেয়। এ ঘটনায় আমি ভীত হয়ে চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারী ওই ছয় জনের নাম উল্লেখ করে নাগরপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করি। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেয়ে চাদাদাবির মামলা হিসেবে রেকর্ড করে। এর মধ্যে আসামিরা জামিনে এসে মামলা তুলে নেয়ার জন্য প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে। আসামীগন মসজিদ মাদ্রাসা নির্মান কাজে বাধা দিয়ে জায়গাটি দখলে নেয়ারও পায়তারা করছে। এমতাবস্থায় আমি এবং আমার পরিবারের লোকজন চরম নিরাপত্তা হীনতায় রয়েছি।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নাগরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. শাহজাহান জানান, মামলা নথিভূক্ত হওয়ার পর একজন আসামীকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরন করি। সকল আসামীরা বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জামিনে আসে। হুমকির বিষয়টি আমার জানা নেই। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি


এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com