Logo
ব্রেকিং :
বঙ্গবন্ধু কাপ টেনিস টুর্নামেন্ট-২০২৩ এর ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত      পাবিপ্রবির ১৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত টাঙ্গাইলে জ্বীনের বাদশা ও তার সহযোগী গ্রেফতার নগরকান্দায় শশা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের  বার্ষিক ক্রীড়া  প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত  ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ অফিস বার্ষিক পরিদর্শনে রেঞ্জ ডিআইজি আদমদীঘিতে ইউএনও’র কম্বল পেলেন প্রতিবন্ধী জোৎস্না বাগেরহাটে মোরেলগঞ্জে চেতনানাশক খাবারে শিশুসহ ৪ জন হাসাপাতালে লোহাগড়ায় মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ যুবকের লাশ উদ্ধার গোয়ালন্দে মাঠ  দিবস পালিত নাগরপুরে সরকারের উন্নয়নের ধারা প্রচারে ব্যস্ত আওয়ামীলীগ নেতা হিমু
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠ শিবালয়ের জনজীবন

রিপোর্টার / ২৩ বার
আপডেট বুধবার, ১৩ মার্চ, ২০১৯

সুরেশ চন্দ্র রায়,মানিকগঞ্জ থেকে। ১৩মার্চ২০১৯, বুধবার
মানিকগঞ্জের কর্মব্যস্ত একটি উপজেলার নাম শিবালয়। দিনভর কাজ শেষে উপজেলাবাসী নির্বিঘেœ ঘুমাতে চায় রাতের বেলা। কিন্তু মশার যন্ত্রনায় উপজেলাবাসী হয়ে উঠেছে তিক্ত বিরক্ত। দিনে কর্মস্থলে কাজের চাপ আর সন্ধ্যা ঘনিয়ে এলে মশার কামড়Ñএ যেন ফোঁড়ার ওপর বিষফোঁড়া সমতুল্য। স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রীদেরও একই অবস্থা।
স্থানীয় সচেতন মহলের দাবি, অন্যান্য বছরগুলোর তুলনায় এ বছর মশার পরিমান এবং উৎপাত অনেক বেশী। রাতের বেলা মশার কামড়ে ছাত্রছাত্রীরা পড়ালেখা করতে পারছে না, কৃষক কৃষাণী তার হাতের কাজ করতে পারছে না, অবসর সময়ে পরিবারের লোকজন না পারছে একটু বিনোদনের মধ্যে জীবন অতিবাহিত করতে। কারন সব কাজ মশারির মধ্যে সীমাবদ্ধ থেকে সম্পাদন করা সম্ভব নয়।
শিবালয় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিদুজ্জামান তড়িৎ বলেন, গত বছরের তুলনায় এ বছর মশার উৎপাত অনেক বেশি মনে হচ্ছে। দিনের বেলায়ও মাঝে মাঝে মশায় কামড়াচ্ছে। উপজেলায় এখনও এমন অনেক পরিবার আছে যাদের মশারি ও মশার কয়েল ক্রয় করবার সামর্থ নাই। তারা দিনে হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম শেষে রাতে মশার কামড়ে ঘুমাতে পারে না। এ বিষয়ে প্রশাসনের দৃষ্টি দেওয়া প্রয়োজন বলে আমরা মনে করি।
মহাদেবপুর জেলে পাড়া এলাকার নিখিল হালদার বলেন, এ বছর মশার যন্ত্রনায় আমরা রাতে জাল বুনতে পারছি না। সরকার এবং বিত্তবানদের পক্ষ থেকে আমরা অনেক সময় অনেক কিছু পেয়ে থাকি। কিন্তু আজ পর্যন্ত আমরা মশারি পাই নাই। যদি এ বিষয়ে সরকার এবং বিত্তবান ব্যক্তিরা দৃষ্টি দেন-তবে আমরা বিশেষভাবে উপকৃত হবো।
শিবালয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্র এর স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ আরশ্বাদ উল্লাহ বলেন, মশা একটি বিষাক্ত প্রাণী। এর কামড়ে ডেঙ্গু, চিকনগুনিয়া, ম্যালেরিয়াসহ নানাবিধ মশাবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব ঘটতে পারে। মশার কয়েল, মশার স্প্রেসহ নানাবিধ মশা দমন উপকরণ ব্যবহারের মাধ্যমে এর যন্ত্রনা থেকে সাময়িক পরিত্রান পাওয়া সম্ভব। কিন্তু এতে হিতে বিপরীত হওয়ার সম্ভাবনাও কম নয়। কারন এ সকল মশা নিরোধক দ্রব্যের মূল উপাদান এক ধরনের রাসায়নিক পদার্থ। যা মানব দেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। তিনি আরো বলেন, নালা, ডোবা, ইরিগেশন, অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ ইত্যাদি মশা উৎপাদনের সহায়ক পরিবেশ। এ সকল বিষয়ে সকলের সচেতনতার মাধ্যমে মশার বংশ বিস্তার অনেকাংশে রোধ করা সম্ভব।
শিবালয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মেহেদী হাসান জানান, মশা দমনের বিষয়টি আমার চিন্তা ভাবনার মধ্যে রয়েছে। কিন্তু উপজেলায় মশা দমনের কোন মেশিন এবং এ বিষয়ে সরকারী কোন বরাদ্দ না থাকায় জরুরী ভিত্তিতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে মানিকগঞ্জ পৌরসভায় যদি মশার বিষ প্রয়োগের মেশিন থাকে , সেখান থেকে মেশিন সংগ্রহ করে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি


এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com