Logo
ব্রেকিং :
বঙ্গবন্ধু শুরুর সময়, একটি ডলারও ছিল না- মানিকগঞ্জে গৃহায়ন মন্ত্রী রাণীশংকৈলে প্রাণীসম্পদ প্রদর্শনীর উদ্বোধন উপলক্ষে আলোচনা সভা  নবাবগঞ্জে প্রাণী সম্পদ প্রদর্শনী-২০২৪ উদ্বোধনী /সমাপনী অনুষ্ঠান সমাজসেবার বিশেষ অবদানে সম্মাননা স্মারক পেলেন দৌলতদিয়ার ইউপি চেয়ারম্যান রহমান মন্ডল ভিক্ষা ছেড়ে  বিকল্প কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে বিশেষ চাহিদা সম্পর্ণ রতনদের পাশে প্রশাসন। টাঙ্গাইল শহরে থমথমে অবস্থা ॥ ককটেল বিস্ফোরণ আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ পুলিশি বাঁধায় পন্ড  দৌলতপুরে প্রাণি সম্পদ প্রদর্শণী নাগরপুরে প্রাণীসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনী  অনুষ্ঠিত  ঘুমন্ত স্বামীর গোপণাঙ্গ কেটে সন্তান রেখেই পালালেন স্ত্রী ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস ২০২৪ উদযাপন উপলক্ষে র‍্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

সান্তাহারে কালোবাজারিদের হাতে ট্রেনের টিকিট, দুর্ভোগে যাত্রীরা

রিপোর্টার / ১০৪ বার
আপডেট সোমবার, ১৮ জুলাই, ২০২২

সজীব হাসান, আদমদিঘী( বগুড়া) প্রতিনিধিঃ১৮ জুলাই-২০২২,সোমবার।
টিকিট কালোবাজারি সিন্ডিকেটের বেড়াজালে আবদ্ধ সান্তাহারে রেলওয়ে জংশন স্টেশন। শুধু সান্ত্মাহার রেলওয়ে স্টেশনের টিকিট নয়, এখান থেকেই তারা নিয়ন্ত্রণ করছে পার্বতীপুর, দিনাজপুর, নাটোর, জয়পুরহাট, আক্কেলপুর ও পঞ্চগড় রেলওয়ে স্টেশনের টিকিট। কাউন্টারে টিকিট না মিললেও তিন থেকে চারগুণ দামে মিলছে ঢাকাগামী ট্রেনের টিকিট। এতে বিপাকে পড়েছেন ঈদের পর কর্মস্থলে ঢাকায় ফেরা ট্রেন যাত্রীরা। এ নিয়ে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে সান্ত্মাহারের রেল যাত্রীদের মধ্যে। সান্তাহার রেলওয়ে স্টেশন রোডে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, ঈদের পর কর্মস্থলে ফেরা মানুষের ট্রেনের টিকিট কাউন্টারে না মিললেও কালোবাজারিদের কাছ থেকে পাওয়া যাচ্ছে। ঈদের আগেই বিক্রির কথা বলা হলেও কালোবাজারিদের হাত থেকে তিনগুণ অথবা চারগুণ দামে মিলছে টিকিট। শোভন চেয়ার ৩৬০ টাকার স্থলে ৭০০ টাকায়, এসি চেয়ার ৬৯০ টাকার স্থলে ১৫ শত থেকে ২ হাজার টাকায় মিলছে কালোবাজারিদের কাছ থেকে। এসব কালোবাজারি নিয়ন্ত্রণ করছে রেলওয়ের কিছু অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। সান্ত্মাহার রেলওয়ে স্টেশনে ঢাকাগামী ট্রেনের টিকিট না থাকলেও দিনাজপুর ও পঞ্চগড় রেলওয়ে স্টেশনের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে সান্ত্মাহার রেলওয়ে স্টেশন ও এর আশপাশে অবস্থানরত কালোবাজারিদের কাছ থেকে। ট্রেনযাত্রী ফারুক হোসেন জিকো অভিযোগ করেন, কাউন্টারে গিয়ে ট্রেনের টিকিট না মিললেও বাড়তি টাকা দিয়ে স্টেশনের বাইরে টিকিট পাওয়া যায়। দ্বিগুণ বা তার বেশি দাম দিলে কাউন্টারের সামনেই কালোবাজারিদের হাতে পাওয়া যায় সব শ্রেণীর টিকিট। ফলে বাধ্য হয়েই স্টেশনের বাইরে থেকে বাড়তি টাকা দিয়ে টিকিট কিনতে হয়। স্টেশনে টিকিট কিনতে আসা সাব্বির আহম্মেদ বলেন, কাউন্টারে গেলে টিকিট নেই বলে বিদায় করে দেওয়া হয়। পরে স্টেশনের পাশে এক জনের সঙ্গে কথা বলে পাঁচটি টিকিট অতিরিক্ত দাম দিয়ে তার কাছ থেকে ক্রয় করি।
সাবেক কাউন্সিলর জিআরএম শাহাজাহান বলেন, ট্রেনের টিকিট না পাওয়ার প্রধান কারণ কালোবাজারিদের হাতে টিকিট চলে যাওয়া। মূলত দুই ভাবে ট্রেনের টিকিট কালোবাজারিদের হাতে যাচ্ছে। আমাদের প্রচলিত অনলাইনে টিকিট কাটার নিয়ম যে কেউ প্রতিদিন এনআইডি/ফোন নম্বর ব্যবহার করে টিকিট অনলাইন থেকে কিনতে পারে। এসব টিকিট পরে বেশি দামে বিক্রি করছে তারা। তিনি আরও বলেন, প্রতিদিন সকালে কালোবাজারিদের নিদিষ্ট লোকজন টিকিট কাউন্টারের এসে লাইনে দাঁড়িয়েও কাউন্টারের টিকিট ক্রয় করেন। ফলে অনেক ট্রেন যাত্রী লাইনে দাড়িয়েও টিকিট পায় না।সান্তাহারে ট্রেন যাত্রী আলমগীর হোসেন সাথে টিকিট কাউন্টারের কথা হলে তিনি অভিযোগ করে বলেন, টিকিট কাউন্টারের টিকিট পাওয়া যায় না। সেই টিকিটগুলো অনেক বেশি দামে কাউন্টারের আশেপাশে বিভিন্ন দোকানে পাওয়া যায়। তিনি রংপুরের ট্রেনের এসি সিগ্ধা ১টি টিকিট ১৫ শত টাকায় কিনেছেন। কাউন্টারের ৩ ঘন্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে টিকিট পায়নী। এ বিষয়ে সান্তাহার রেলস্টেশনের স্টেশন মাষ্টার রেজাউল করিম ডালিমের সাথে একাধিক মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার মন্তব্য পাওয়া যায়নি। সান্ত্মাহার রেলওয়ে থানার ওসি সাকিউল আযমের সাথে একাধিক মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার মন্তব্য পাওয়া যায়নি।


এ জাতীয় আরো খবর
Tech Support By Nagorikit.Com