Logo
ব্রেকিং :
হস্ত ও কুটির শিল্পকে বিশ্ব বাজারে পৌছে দেয়া হবে—– বানিজ্য প্রতিমন্ত্রী দৌলতপুরে উপজেলা প্রশাসনের বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ উদযাপন নগরকান্দা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ উদযাপন দৌলতপুরে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সাথে সাবেক সাংসদ দূর্জয়ের শুভেচ্ছা বিনিময় নাগরপুরে আ.লীগ নেতাকর্মীদের ঈদ উপহার পৌঁছে দিয়েছেন তারানা হালিম এমপি রাণীশংকৈলে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় বৃদ্ধার মৃত্যু মির্জাপুরে ফিল্মি স্টাইলে অপহরণকারী আটক রাজবাড়ীতে ‘হার পাওয়ার’ প্রকল্পের আওতায় নারীদের মাঝে ল্যাপটপ বিতরণ করেন—–রেলপথ মন্ত্রী মোঃ জিল্লুল হাকিম নাগরপুরে একতা সাংস্কৃতিক উন্নয়ন সংস্থার বস্ত্র বিতর  নাগরপুরে শিল্প উদ্যোক্তা কোমলের উদ্যোগে মুসল্লিদের ঈদ উপহার প্রদান
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

৪১ বছর পর ঈদ পুনর্মিলনীতে পাংশা জর্জ হাই স্কুলের এসএসসি ১৯৮১ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা

রিপোর্টার / ৯৯ বার
আপডেট বৃহস্পতিবার, ১৪ জুলাই, ২০২২

মোক্তার হোসেন, পাংশা (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি :১৪ জুলাই-২০২২,বৃহস্পতিবার।

দীর্ঘ ৪১ বছর পর ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মিলিত হয়ে স্মৃতিচারণে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন পাংশা জর্জ হাই স্কুলের এসএসসি ১৯৮১ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার ১২ জুলাই স্থানীয় বিশ্বাস কমিউনিটি সেন্টারে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে পাংশা সরকারী জর্জ পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি ১৯৮১ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। ঈদ পুনর্মিলনীর বিভিন্ন কর্মসূটির মূল আকর্ষণে ছিলেন নাট্য ও চলচ্চিত্র জগতের গুণী অভিনেতা শহীদুল আলম সাচ্চু।
জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের কর্মসূচি শুরু করা হয়। পবিত্র কুরআন পাঠ, গীতা পাঠ, পাংশা সরকারী জর্জ পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের বিভিন্ন সময়ে মৃত্যুবরণকারী শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের স্মরণে ১ মিনিটি নিরবতা পালন ও তাদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত, কেককাটা, স্মৃতিচারণ, অতিথিবৃন্দের বক্তব্য, র‌্যাফেল ড্র, আলোচনা, পুরস্কার বিতরণ, প্রীতিভোজসহ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে পাংশা সরকারী জর্জ পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ইংরেজী শিক্ষক দেবাশীষ ঘোষ ও ক্রীড়া শিক্ষক শচীনন্দন দাস, পাংশা সরকারী কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ মাহমুদুল হক রোজেন ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ফজলে আলী ফারুক উপস্থিত ছিলেন।
পাংশা সরকারী জর্জ পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি ১৯৮১ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন- পাংশা সরকারী কলেজের সাবেক ভিপি হাবিবুর রহমান রাজা, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভ‚ষিত নাট্য ও চলচ্চিত্র অভিনেতা শহীদুল আলম সাচ্চু, আমেরিকা প্রবাসী এনায়েত আকবর মিলন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সাধন কুমার দে, পাংশা পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর শেখ আজিজ, অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কনস্টেবল আমির খান লিপু, সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের পাংশা উপজেলা কমপ্লেক্স শাখার সিনিয়র অফিসার বিমল কুমার মজুমদার, পাংশার বিদ্যুৎ দপ্তরে কর্মরত শ্যামসুন্দর গোস্বামী, মৃগী শহীদ দিয়ানত ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক তাপস কুমার দে, ফয়জুল ইসলাম ফয়েজ, আনিসুর রহমান, অপু সরোয়ার, আক্তারুজ্জামান টিপু ও যশাই ইউপির প্রাক্তন ইউপি সদস্য খোন্দকার হাসিবুন্নবী সাচ্চু প্রমূখ।
স্মৃতিচারণ করার সময় অনেকেই আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। তারা বলেন, দীর্ঘ ৪১ বছর পর আজকে আমরা একটি জায়গায় মিলিত হতে পরেছি। এই মিলনের ক্ষেত্রে যারা উদ্যোগী হয়ে ঈদ পুনর্মিলনীর আয়োজন করেছে তাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য মহত। আমরা পরস্পর প্রত্যেকের বয়সের ছাপ লক্ষ্য করছি। কিন্তু আজকের এই মিলনে মনে ও চোখে শৈশব কৈশোরের নানা স্মৃতি। বয়সের ছাপ পড়লেও অনুষ্ঠানে এসে মনে শক্তি সাহস সঞ্চার হচ্ছে। বারবার মিলনের আশা জাগছে। শ্যাম সুন্দর গোস্বামী রবীন্দ্রসঙ্গীতের “পুরানো সেই দিনের কথা ভুলবি কি রে হায়, ও সেই চোখের দেখা প্রাণের কথা সে কি ভোলা যায়” সুর টেনে স্মৃতিচারণ করেন।
অনুষ্ঠানের উপস্থাপক ছিলেন পাংশা সরকারী কলেজের গণিত বিভাগের প্রভাষক বিমল কুমার কর্মকার। তিনি বলেন, আমরা বিকালের সূর্য্যরে মতো হেলে আছি। কিছুদিন পরেই সন্ধ্যা নামবে। জীবনবেলা অস্তমিত হয়ে যাবে। তাই যে যেখানে আছি সেখান থেকেই সমাজের জন্য দেশের জন্য ভালো কিছু করার চেষ্টা করি। বন্ধুদের মধ্যে যারা অসচ্ছল ও নানা সমস্যায় ভুগছে অসংকোচে তাদের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতার হাত প্রসারিত করতে পারলে সেটাই হবে বন্ধুত্বের আসল পরিচয়। তিনি বলেন, পৃথিবীতে আবার বলতে কিছু নাই। এই যে যথার্থ সময় যথার্থ স্থান এটাকেই যথার্থভাবে কাজে লাগাতে হবে।
অনুষ্ঠানে নাট্যকার, পরিচালক ও অভিনেতা লিটু করিম, কেএম ফজলুল হক বাবু, আইয়ুব আলী, আব্দুর রহমান, আব্দুল বাতেন মিয়া, আব্দুস সামাদ সরদার, আব্দুস সামাদ মন্ডল, জসীম উদ্দিন মোল্লা, লোকমান হোসেন, দেব প্রসাদ দত্ত (কোপা), আবু আনছার মন্ডল, আব্দুল লতিফ, আক্কাস আলী, নজরুল ইসলাম, উত্তম মিত্র ও মাসুদ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে নাট্য ও চলচ্চিত্র অভিনেতা শহীদুল আলম সাচ্চুকে হাবাসপুর থিয়েটারের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা প্রদান করা হয়। পাংশা সরকারী জর্জ উচ্চ বিদ্যালয় এসএসসি ১৯৮১ ব্যাচের পক্ষ থেকে অতিথিবৃন্দ ও অভিনেতা শহীদুল আলম সাচ্চুকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও উপহার প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে পাংশা সরকারী জর্জ উচ্চ বিদ্যালয় এসএসসি ১৯৮১ ব্যাচের উপস্থিত সকলকে রজনী গন্ধা ফুলের স্টিকার দিয়ে বরণ করা হয়। অতিথিবৃন্দসহ প্রত্যেকের টি-শাট ও ক্যাপ প্রদান করা হয়।
ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান আয়োজনে মূখ্য ভ‚মিকা পালন করেন হাবিবুর রহমান রাজা, আমির খান লিপু ও বিমল কর্মকার। তারা বন্ধুত্বের বন্ধন বজায় রেখে প্রতিবছর ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান এবং সামাজিক উন্নয়ন ও জনকল্যাণমূলক কাজ করার অভিমত ব্যক্ত করেন।
নাট্যকার, পরিচালক ও অভিনেতা লিটু করিম বলেন, নাট্য ও চলচ্চিত্র অভিনেতা শহীদুল আলম সাচ্চুর শৈশব কৈশোর জীবন কেটেছে পাংশার মাটিতে। তিনিও পাংশা সরকারী জর্জ পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৮১ সালে কৃতিত্বের সাথে এসএসসি পাস করেন। ৭ম শ্রেণি থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত এ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেন তিনি। পাংশা কলেজেও লেখাপড়া করেন শহীদুল আলম সাচ্চু। উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত এ কলেজে লেখাপড়া করেন তিনি। পরবর্তীতে তিনি ঢাকায় চলে যান। শহীদুল আলম সাচ্চুর জন্ম মাগুড়া জেলার পুকুরিয়া গ্রামে। বর্তমানে তিনি ঢাকায় বসবাস করছেন। তার বড়ভাই মনজুরুল আলম ওই সময়ে পাংশা কৃষি ফার্সের ফার্ম সুপার ছিলেন। সেই সুবাদে তার পাংশায় অবস্থান ও বেড়ে ওঠা। পাংশায় অবস্থানকালীন সময়ে শহীদুল আলম সাচ্চু পাংশার তৎকালীন আর্তনাদ থিয়েটারের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন।
লিটু করিম আরও বলেন, দেশ বিদেশে গুণী অভিনেতা শহীদুল আলম সাচ্চুর প্রশংসা। মঞ্চ নাটকের মাধ্যমে তার অভিনয়ের যাত্রা শুরু হয়। পরে তিনি নাটক ও চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র মেঘলা আকাশ। এই চলচ্চিত্রের জন্য তিনি প্রথমবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভ‚ষিত হন। বৃত্তের বাইরে চলচ্চিত্রে অভিনয় করে তিনি দ্বিতীয়বারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভ‚ষিত হন। অসংখ্য নাটক ও চলচ্চিত্রে অভিনয় করে দর্শক শ্রোতার ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছেন তিনি।
অভিনেতা শহীদুল আলম সাচ্চু বলেন, সাধারণ মানুষের ভালোবাসা শ্রদ্ধায় আমি মুগ্ধ। গুণী শিক্ষক, পিতামাতা, সহকর্মী, বন্ধু বান্ধবদের দোয়া ও আশির্বাদের জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি। শৈশব কৈশোরের বন্ধুদের ভালোবাসার টানে শত ব্যস্ততার মাঝেও পাংশায় আড্ডায় মিলিত হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন তিনি।

 

 


এ জাতীয় আরো খবর
Tech Support By Nagorikit.Com