Logo
ব্রেকিং :
দৌলতপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালিত ভূঞাপুরে পুত্রবধূর বিরুদ্ধে শ্বাশুরিকে হত্যার অভিযোগ সরিষাবাড়ীতে শেখ হাসিনার জন্মদিনে নতুন কাপড় পেলো ২ শতাধিক দুঃস্থ ও এতিম শিশু ভূঞাপুরে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন নাগরপুরে উপজেলা আ.লীগ আয়োজনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র ৭৬ তম জন্মদিন পালিত টাঙ্গাইলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালিত দৌলতদিয়া মডেল হাই স্কুলে অভিভাবক  সভা অনুষ্ঠিত  ঢাবিতে ছাত্রদলের উপর হামলার প্রতিবাদে সৈয়দপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা ঘিওরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালিত নেত্রকোনায় তথ্য অধিকার দিবসের আলোচনা সভা
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে প্রথম সেই হার ও এই হার

রিপোর্টার / ১৭ বার
আপডেট বুধবার, ১৩ মার্চ, ২০১৯

কালের কাগজ ডেস্ক:১৩ মার্চ -২০১৯,বুধবার।

১৭ বছর আগে-পরের দুটি হারকে কী আশ্চর্যজনক ভাবেই না এক বিন্দুতে মিলিয়ে ফেলল বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা! হ্যামিল্টনের পর ওয়েলিংটনের দ্বিতীয় টেস্টেও ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে মাহমুদউল্লাহর বাংলাদেশ। ইনিংস ও ১২ রানের এই হারটি মনে করিয়ে দিয়েছে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশের সেই প্রথম টেস্ট হারটিকে! দুটো হারে কী আশ্চর্যজনক মিল!

২০০১ সালের ডিসেম্বরে নিউজিল্য্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশের প্রথম সেই টেস্ট হারের কথা যাদের মনে আছে, তারা মিল দেখে বিস্মিত না হয়ে পারবেন না। হ্যামিল্টনের সেই টেস্টেও প্রথম দুইদিন খেয়ে ফেলে বৃষ্টি। টস হয়েছিল তৃতীয় দিন সকালে। মানে বৃষ্টি টেস্টটাকে বানিয়ে দিয়েছিল তিন দিনের। কিন্তু হতাশার ষোলকলা পূর্ণ করে তিন দিনে রূপ নেওয়া সেই টেস্টেও বাংলাদেশ হেরেছিল ইনিংস ব্যবধানে।

সোয়া ১৭ বছর পর ওয়েলংটনেও ব্যর্থতার সেই কাব্যই লিখলেন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা। এবারও বৃষ্টি প্রথম দুদিন খেয়ে ফেলায় হলো টস হলো তৃতীয় দিনে। এবারও তিন দিনেই সেই ইনিংস ব্যবধানে হার। পার্থক্য শুধু এতটুকু, ২০০১ সালের সেই হারটা ছিল ইনিংস ও ৫২ রানে। এবারের হারটা ইনিংস ও ১২ রানে।

তিন দিনে তো বলা হচ্ছে। বাস্তবে, এই দুটি টেস্টের একটিতেও বাংলাদেশ পুরো তিন দিন লড়াই করতে পারেনি। ২০০১ সালের সেই হারটা ছিল আসলে সোয়া দুইদিনে। টেস্টের পঞ্চম দিনের মধ্যাহ্ন বিরতিরও আগেই নিভে যায় ম্যাচের আয়ু। এবারের হারটা ঠিক পঞ্চম দিনের (আসলে তৃতীয় দিন) মধ্যাহ্নবিরতির সময়। মানে দুই দিন ও এক সেশনে।

মিল আছে আরও। ২০০১ সালের ওই টেস্টেও নিউজিল্যান্ডের একমাত্র ইনিংসে সেঞ্চুরি করেছিলেন দুজনে। এবারও। তবে এখানে একটু পার্থক্য, এবার দুজনের একজন রস টেলর করেছেন ডাবল সেঞ্চুরি। বিপরীতে সেই টেস্টেও দুই ইনিংস মিলিয়ে বাংলাদেশ হাফসেঞ্চুরি পেয়েছিল দুটি। প্রথম ইনিংসে ৬১ রান করেছিলেন হাবিবুল বাশার সুমন। দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৩ রান করেছিলেন আল শাহরিয়ার রোকন।

এবারও দুই ইনিংস মিলিয়ে বাংলাদেশ হাফসেঞ্চুরি দুটি। প্রথম ইনিংসে তামিম ইকবাল খেলেছেন ৭৪ রানের ইনিংস। দ্বিতীয় ইনিংসে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ করেছেন ৬৭। চাইলে এরকম আরও মিল হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে। তবে সেসব মন খারাপের পাল্টাটাই ভারি করবে।

২০০০ সালে টেস্ট মর্যাদা পাওয়া বাংলাদেশ ২০০১ সালে ছিল একেবারেই নবীন সদস্য। টেস্ট খেলার অভ্যাসটাই ধাতস্ত হয়নি তখনো। ঠিক সেই অনভিজ্ঞতা নিয়ে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট খেলাটা সত্যিই কঠিন চ্যালেঞ্জিং ছিল খালেদ মাসুদ পাইলটের দলের জন্য। বৃষ্টি দুদিন খেয়ে ফেলার পরও বাকি তিন দিনে ইনিংস হারটা তাই তেমন বিস্ময়ের ছিল না।

কিন্তু সেই বাংলাদেশ দল আর এই বাংলাদেশ দলের মধ্যে আকাশ-পাতাল পার্থক্য। এই বাংলাদেশ অনেকটা পথ পেরিয়ে এসেছে। ওয়ানডেতে যথেষ্ট সমীহ জাগানিয়া বাংলাদেশ এখন টেস্টেও অনেকটা ধারাবাহিক। কিন্তু ওয়েলিংটনে সেই সোয়া ১৭ বছরের আগের বাংলাদেশেরই দেখা মিলল। মাঝে প্রায় দেড় যুগের ব্যবধান হলেও ব্যাট হাতের পারফরম্যান্সে আশ্চার্যজনক ধারাবাকিহতা! কবে যে গল্পগুলো উল্টে করে লেখা শুরু হবে!

যাই হোক, ওয়েলিংটনের লজ্জার এই হারের মধ্যদিয়ে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজটাও খোয়া গেছে। প্রথম দুই টেস্টেই ইনিংস ব্যবধানে জিতে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড পকেটে পুরে ফেলেছে সিরিজ। সফরকারী বাংলাদেশের সামনে তাই ওয়ানডে সিরিজের মতো টেস্ট সিরিজেও হোয়াইটওয়াশ হওয়ার শঙ্কা। এই শঙ্কা নিয়েই ১৬ মার্চ থেকে নামতে হচ্ছে ক্রাইস্টচার্চে। সুযোগ থাকলে মাহমুদউল্লাহ’রা সেই টেস্টটা না খেলেই চলে আসতেন!

কালের কাগজ/প্রতিবেদক/জা.উ.ভি


এ জাতীয় আরো খবর
ThemeCreated By ThemesDealer.Com