Logo
ব্রেকিং :
নড়াইলে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে কুপিয়ে আহত নাগরপুরে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা পেল নবজাতক সিংড়ায় ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত  নেত্রকোনায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট পূর্বধলায় ডিবির অভিযানে ভারতীয় মদসহ গ্রেপ্তার-২ নেত্রকোনায় ৫২৪টি মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি সম্পন্ন রাণীশংকৈলে নিজ উপজেলায় উষ্ণ সংবর্ধনায় ভাসছেন স্বপ্না ও সোহাগী বিশৃঙ্খলা রোধে, পূজার সময় সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে…. পুলিশ সুপার গোলাম আজাদ খান রায়গঞ্জের পাঙ্গাসীতে ভূমিহীনের  বাড়িঘর ভাংচুরের অভিযোগ  মানিকগঞ্জের ৭টি উপজেলাতে শারদীয় দুর্গোৎসবে সকল প্রস্তুতি শেষ, বাজবে ঢাক-ঢোল-শানাই
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

বাংলাদেশ-মিয়ানমার বর্ডার ট্রেড টেকনাফে ১৪কোটি ৭০ লাখ ১২হাজার টাকা রাজস্ব আদায়

রিপোর্টার / ১২ বার
আপডেট শুক্রবার, ২ আগস্ট, ২০১৯

মুহাম্মদ জুবাইর,টেকনাফ(কক্সবাজার) প্রতিনিধি :০২ আগস্ট-২০১৯,শুক্রবার।
নতুন অর্থ বছরের শুরুতে জুলাই মাসে বাংলাদেশ-মিয়ানমার বর্ডার ট্রেড’র আওতায় ১৪কোটি ৭০ লাখ ১২হাজার টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে।
জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ( এনবিআর) মাসিক টার্গেট এখনো নির্ধারন না করলেও উল্লেখিত রাজস্ব আদায় করে টেকনাফ স্থল বন্দর শুল্ক বিভাগ। জানা যায়, ৩৫৭ টি বিল অব এন্ট্রির মাধ্যমে ৬৮ কোটি ৬৪ লাখ ৩৬ হাজার টাকার পন্য মিয়ানমার হতে আমদানী বাবৎ গেল জুলাই মাসে ১৪ কোটি ৭০ লাখ ১২হাজার টাকা রাজস্ব আয় হয়েছে। অপরদিকে ৩৬টি বিল অব এক্সপোর্টের মাধ্যমে ১ কোটি ২০ লাখ ১০ হাজার টাকার পন্য মিয়ানমারে রপ্তানী হয়েছে।
এছাড়া শাহপরীর দ্বীপ করিডোরে মিয়ানমার থেকে ৬ হাজার ৭৪৪টি গরু, ৩৩৫১ টি মহিষ আমদানি করে ৫০ লাখ সাড়ে ৪৭ হাজার টাকা ক্ষতিপূরন আদায় হয়েছে। প্রসঙ্গত, টেকনাফ স্থল বন্দর দিয়ে মিয়ানমার হতে কাঠ, হিমায়িত মাছ, শুটকি, আচার, মসলা, গবাদি পশু সহ নানা পণ্য আমদানী হয়ে থাকে।
অপরদিকে গার্মেন্টস পণ্য, প্লাস্টিক সামগ্রী, ঔষধ, সিমেন্ট মিয়ানমারে রপ্তানী হয়ে থাকে।
স্থলবন্দরের শুল্ক কর্মকর্তা মো. ময়েজ উদ্দীন জানান, চলতি ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের কোন টার্গেট এখনো নির্ধারিত হয়নি। নতুন অর্থ বছরের শুরতে জুলাই মাসে প্রচুর পরিমান রাজস্ব আয় হয়েছে।
তিনি আরো জানান, অধিকাংশ সময় টেকনাফ স্থল বন্দরে ভালো ব্যবসায়ীক পরিবেশ বিদ্যমান ছিল। ব্যবসায়ীরা পর্যাপ্ত পন্য আমদানী করেছেন। পাশাপাশি শুল্ক বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা শুল্ক বৃদ্ধির জন্য সঠিক ভাবে আমদানী পণ্যের পরীা নিরীার পাশাপাশি আন্তরিক ও কঠোর পরিশ্রম করেছেন। ফলে সকলের আন্তরিক প্রচেষ্টায় রাজস্ব আয় দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।###

কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি


এ জাতীয় আরো খবর
ThemeCreated By ThemesDealer.Com