Logo
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

ঈশ্বরগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধে বশত ঘরে হামলা ভাংচুর

রিপোর্টার / ১৬ বার
আপডেট সোমবার, ৫ আগস্ট, ২০১৯

হাবিবুর রহমান ঈশ্বরগঞ্জ(ময়মনসিংহ):০৫ আগস্ট,২০১৯,সোমবার।
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে জমিসংক্রান্ত বিরোধে কৃষকের বশত ঘরে হামলা ও ভাংচুর চালানোর অভিযোগ প্রতিপক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি নিয়ে কৃষক আল আমিন গতকাল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
জানা যায়, উপজেলার সদর ইউনিয়নের জয়পুর গ্রামের হযরত আলীর ছেলেদের সাথে চাচা শহিদুল ইসলাম মুক্তির সাথে দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। শনিবার ভাতিজা আল আমিনের দখলে থাকা বিরোধপূর্ণ জমিতে চাষ করতে গেলে উভয় পক্ষে বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের চার জন আহত হয়। আহতরা হলো আব্দুল্লাহ আল আমিন (৩০) , আব্দুল্লা আল মামুন (২৪), আব্দুল্লাহ আল মাসুম (২২)। এ ঘটনায় শনিবার আব্দুল্লা আল আমিন বাদি হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
অভিযোগকারী আল আমিন ও বোন হোসনে আরা শিউলী জানায়, আল আমিন ও তাদের ভাইদের সাথে চাচা শহিদুল ইসলাম মুক্তিগংদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। শনিবার সকালে আল আমিন পিতার ক্রয়কৃত পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া জমিতে চাষ করেতে গেলে বাধা দেন চাচাসহ কয়েকজন। এতে উভয়পক্ষ বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে চাচা ও তার লোকজন উত্তেজিত হয়ে ওঠলে আল আমিন আত্মরক্ষার জন্যে বশত ঘরের ভিতর ঢুকে পড়ে। পরে চাচারা ঘরের ভেতর ঢুকে আল আমিন ও তাদের ভাইদের মারধর করে আসবাবপত্র ভাংচুর ও তছনছ করে। ওই সময় আল আমিন ও তার ছোট দুই ভাই মাসুম ও মামুন আঘাত প্রাপ্ত হন।
এবিষয়ে চাচা শহিদুল ইসলাম মুক্তি জানান, অভিযোগ কারী আমার ভাতিজা, জমিসংক্রান্ত বিরোধে ভাতিজারা উত্তেজিত হয়ে আমার ছোট ভাই ফারুককে ওদের চাচা হওয়া সত্বেও মারধর করে। এতে চাচা ভাতিজার মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। বিষয়টি শুনে আমি দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করি। ঘরের ভিতর হামলার বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।
ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি আহমেদ কবির হোসেন জানান, উভয় পক্ষের অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।##


এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com