Logo
ব্রেকিং :
সরকার পরিবর্তন করার একমাত্র পথ নির্বাচন: পরিকল্পনামন্ত্রী সিরাজগঞ্জের তাড়াশে গৃহবধূকে হত্যা শ্বশুড়-শ্বাশুড়ি আটক সিরাজগঞ্জে বহুলীতে মতিয়ার রহমান মিঞা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপন নেত্রকোনায় আর্ন্তজাতিক সিওড দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা নবনিযুক্ত আইজিপি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুনকে ডিআইজির শুভেচ্ছা ঈশ্বরগঞ্জে যুবমহিলা লীগের সমাবেশ অনুষ্ঠিত নড়াইল জেলা পরিষদের সদস্য নির্বাচনে আলোচনার শীর্ষে শেখ সাজ্জাদ হোসেন মুন্না নাগরপুরে ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যদের সাথে এমপি টিটুর মতবিনিময় সভা নগরকান্দায় বাংলাদেশ আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সংগ্রহ সভা অনুষ্ঠিত  চৌহালী উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণে প্রস্তাবিত স্থান পরিদর্শন
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

বেতন ও চাকুরি সরকারিকরণের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি। চরম ভোগান্তিতে পৌরবাসী।

রিপোর্টার / ১০ বার
আপডেট মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট, ২০১৯

আব্দুস সামাদ আজাদ, মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃঃ-০৬ আগস্ট-২০১৯,মঙ্গলবার।

সরকারি কোষাগার থেকে বেতন ও চাকুরি সরকারিকরণের দাবিতে ২৩ দিন ধরে ঢাকায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন কমলগঞ্জ পৌরসভার কর্মচারী-কর্মকর্তারা । এ কর্মসূচি পালন করতে ঢাকায় অবস্থান করার ফলে পৌরবাসী নাগরিক সেবা হযবরল হয়ে পড়েছে। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন জনসাধারণ। তবে নাগরিক সেবা দেওয়া হচ্ছে বলে দাবি করছেন কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র।

পৌরসভার ভুক্তভোগী বাসিন্দারা জানান, পৌরসভায় কর্মকর্তা-কর্মচারী অনুপস্থিত থাকায় প্রতিদিন পৌর নাগরিকরা জাতীয় সনদ, জন্মনিবন্ধন, জন্মসনদ, মৃত্যুসনদ, পৌরকর, ওয়ারিশান সনদসহ বিভিন্ন কাজ করতে এসে ফিরতে হচ্ছে। ২৩ দিন ধরে পৌরসভার কর্মচারী-কর্মকর্তারা তাদের কর্মস্থলে নেই। তারা দাবি-দাওয়া আদায়ের জন্য ঢাকায় অবস্থান করায় ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে পৌরবাসীকে। পৌরসভায় এসে কোনো কাজ হচ্ছে না। তাই পৌর কার্যক্রম অচল হয়ে পড়েছে।

পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলার আনসার শোকরানা মান্না জানান, কর্মকর্তা কর্মচারীদের আন্দোলনের কারণে সকল কার্যক্রম প্রায় বন্ধ। কর্মকর্তা কর্মচারীদের ন্যায়সঙ্গত দাবি মেনে নিয়ে পৌরসভাকে সচল করার দাবি জানান তিনি।

পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী ও ভারপ্রাপ্ত সচিব, কর-নির্ধারক, কর আদায়কারী বলেন, রাষ্ট্রীয় কোষাগার হতে বেতনের দাবি দীঘদিনের। এ দাবি আদায়েই আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো। আশা করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ন্যায্য দাবির প্রতি গুরুত্ব দেবেন।

অফিস সহকারী কাম মুদ্রাক্ষরিক মো. কয়ছর মিয়া বলেন, ‘৫ মাস ধরে বেতন ভাতা না পাওয়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি। মাসের পর মাস কাজ করে বেতন পাই না। মাসিক বেতন যাতে রাজস্ব থেকে পাই এ দাবিতেই আন্দোলন করছি আমরা।’

এ ব্যাপারে কমলগঞ্জের পৌরসভার মেয়র জুয়েল আহমদ কর্মকর্তা কর্মচারীগণের আন্দোলনের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘নাগরিক সেবা থেকে পৌরবাসী কেউ বঞ্চিত হচ্ছে না। কর্মকর্তা কর্মচারী ছাড়াও মাস্টার রোলে নিয়জিত কর্মচারীদের সহায়তায় আমরা পৌরবাসীকে সেবা দিয়ে যাচ্ছি।’

কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি


এ জাতীয় আরো খবর
ThemeCreated By ThemesDealer.Com