Logo
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

মাঠ কাপাচ্ছেন টাঙ্গাইল-৬ আসনের প্রার্থীরা

রিপোর্টার / ২৬ বার
আপডেট শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮

মুক্তার হাসান,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ঃ১৫ ডিসেম্বর,শনিবার ।
টাঙ্গাইল-৬ (নাগরপুর-দেলদুয়ার) আসনে প্রতিক বরাদ্দ পেয়েছেন বিএনপি ও আওয়ামী লীগ সহ অন্যান্য দলের প্রার্থীরা। প্রতিক পাবার পর থেকেই মাঠ কাপাতে স্ব স্ব প্রতিক নিয়ে প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। প্রতিক পেয়ে দলীয় প্রার্থীর স্বপক্ষে আনন্দ মিছিল, মিষ্টি বিতরণ ও মাইকের আওয়াজে দলীয় গুণগানে ব্যস্ত নেতাকর্মী ও সমর্থকগণ। চায়ের দোকান গুলোতে চলছে নির্বচনী ঝড়। এ আসনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মাঝে বইছে ভোটের সু-বাতাস।
টাঙ্গাইল-৬ (নাগরপুর-দেলদুয়ার) আসনে এবার ৮জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। এরা হলেন- আওয়ামী লীগ প্রার্থী আহসানুল ইসলাম টিটু (নৌকা), বিএনপির প্রার্থী গৌতম চক্রবর্তী (ধানের শীষ), স্বতন্ত্র ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ব্যারিস্টার আশরাফুল ইসলাম (ট্রাক), আবুল কাশেম (সিংহ), ন্যাশনাল পিপলস পার্টির প্রার্থী মামুনুর রহমান (আম), বিএনএফ প্রার্থী সুলতান মাহমুদ (টেলিভিশন), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর প্রার্থী আখিনুর মিয়া (হাত পাখা), বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের প্রার্থী আনোয়ার হোসেন (ফুলের মালা)।
দলীয় কোন্দল নিরসন করে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইল-৬ আসনটি ধরে রাখতে আহসানুল ইসলাম টিটু। এই আসন থেকে ২০০৮ সালে প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে পরাজিত হন। অপর দিকে ১৯৯৬ ও ২০০১ সালের দুই দুইবার জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট গৌতম চক্রবর্তী ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে এবার ভোট যুদ্ধে অংশ নিয়েছেন। ২০০৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী খন্দকার আবদুল বাতেনের কাছে পরাজিত হন এডভোকেট গৌতম চক্রবর্তী ।
নির্বাচনী প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাইলে আহসানুল ইসলাম টিটু বলেন, নাগরপুর-দেলদুয়ার আওয়ামী লীগ আজ ঐক্যবদ্ধ। ২০০৮ সাল আর ২০১৮ সাল এক কথা নয়। বিগত আওয়ামী লীগ আর বর্তমান আওয়ামী লীগও এক নয়। বাংলাদেশ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ বিশ্বের দরবারে মাথা উচু করে দাঁড়িয়েছে। আমাদের দেশের মানুষ এখন উন্নয়ন বুঝে ও উন্নত জীবন উপভোগ করে। তিনি আরও বলেন, ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নাগরপুর -দেলদুয়ার বাসীর কাছে দোয়া, সমর্থন ও উন্নয়নের প্রতিক নৌকা মার্কায় ভোট চাই। কারণ নৌকা মার্কা উন্নয়নের মার্কা।
সাবেক মন্ত্রী এডভোকেট গৌতম চক্রবর্তী বলেন, টাঙ্গাইল-৬ আসনে বিএনপির কোন কোন্দল নেই। নেতাকর্মীরা এতদিন পর নির্বাচন পেয়ে বেশ উচ্ছাসিত ও প্রাণবন্ত। নাগরপুর-দেলদুয়ার বিএনপির ঘাটি। জনপ্রিয় এ সংগঠন ও আমার প্রতি ভোটারদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে। ভোটারগণ সুষ্ঠ ভাবে ভোট প্রদানের সুযোগ পেলে ধানের শীষের বিজয় সুনিশ্চিত ইনশাআল্লাহ। আমি দেশমাতা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের প্রাণ প্রিয় সংগঠনের জন্য নাগরপুর-দেলদুয়ারের ভোটারগণের কাছে ধানের শীষে ভোট প্রার্থনা করছি।
আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ব্যারিস্টার আশরাফুল ইসলাম জানান, জনগন আমার সাথে ঐক্যবন্ধ হয়ে কাজ করছে। দেলদুয়ার-নাগরপুরে অধিকাংশ মানুষ চায় একজন শান্তিপ্রিয় ও উন্নয়নকামী প্রার্থী। আমি সবদিক থেকেই ভোটারদের বেশ সাড়া পাচ্ছি। কেন্দ্র দখল না হলে ও ভোটাররা নির্বিঘেœ ভোট দিতে পারলে আমি অবশ্যই জয় লাভ করব।

কালের কাগজ/প্রতিনিধি/জা.উ.ভি


এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com