Logo
ব্রেকিং :
দৌলতপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালিত ভূঞাপুরে পুত্রবধূর বিরুদ্ধে শ্বাশুরিকে হত্যার অভিযোগ সরিষাবাড়ীতে শেখ হাসিনার জন্মদিনে নতুন কাপড় পেলো ২ শতাধিক দুঃস্থ ও এতিম শিশু ভূঞাপুরে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন নাগরপুরে উপজেলা আ.লীগ আয়োজনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র ৭৬ তম জন্মদিন পালিত টাঙ্গাইলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালিত দৌলতদিয়া মডেল হাই স্কুলে অভিভাবক  সভা অনুষ্ঠিত  ঢাবিতে ছাত্রদলের উপর হামলার প্রতিবাদে সৈয়দপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা ঘিওরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালিত নেত্রকোনায় তথ্য অধিকার দিবসের আলোচনা সভা
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

ঘরের মাঠে টানা দ্বিতীয় হার চিটাগংয়ের

রিপোর্টার / ১৩ বার
আপডেট শনিবার, ২৬ জানুয়ারী, ২০১৯

কালের কাগজ ডেস্ক:২৬ জানুয়ারী,শনিবার।

ঘরের মাঠে টানা দ্বিতীয় হারের মুখ দেখল টেবিলের শীর্ষ দল চিটাগং ভাইকিংস। শনিবার দিনের দ্বিতীয় খেলায় রাজশাহী কিংসের কাছে ৭ রানে হেরেছে মুশফিকুর রহীমের দল।

এদিন প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৯৮ রান করে মেহেদী হাসান মিরাজের রাজশাহী। জবাবে ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৯১ পর্যন্ত করতে পারে চিটাগং। ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান।

রাজশাহীর দেওয়া পাহড় সামন লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ছক্কা মেরেই নিজেদের ইনিংস শুরু করেন মোহাম্মদ শেহজাদ। যদিও অপরপ্রান্তে ক্যামেরন ডেলপোর্ট এদিন ব্যক্তিগত ৭ রানে সাজঘরে ফিরে যান। তাতে অবশ্য রানের গতি কমেনি চিটাগংয়ের।

তিন নম্বরে নেমে শেহজাদের সাথে সমান তালে ঝড়ো ব্যাটিং চালিয়ে যান ইয়াসির আলী। দুই জনের মারমুখী ব্যাটিংয়ে ৮ ওভারের মধ্যে ৭৯ রান তুলে ফেলে চিটাগং। শেহজাদকে ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন মিরাজ। তার আগে অবশ্য ২২ রানে ৪৯ রানের এক বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন শেহজাদ। ৫টি ছক্কা ও ৩টি চার মেরেছেন তিনি।

শেহজাদের বিদায়ের পর মুশফিক এসে যোগ দেন ইয়াসিরের সাথে। ইয়াসির যতক্ষণ ক্রিজে ছিলেন মুশফিক ততক্ষণ একটু রয়ে সয়ে খেলেন। কিন্তু তাতে বাধ সাধেন আরাফাত সানি। দুর্দান্ত খেলতে থাকা ইয়ারিকে বোল্ড করে ম্যাচের গতিমুখ নিজেদের দিকে ফিরিয়ে আনেন তিনি। ২টি ছক্কা ও ৭ চারে সাজিয়ে ৩৮ বলে ৫৮ রান করেন ইয়াসির।

এরপরই হাত খোলেন চিটাগংয়ের অধিনায়ক। তবে নিজের ইনিংসটা খুব বেশি দীর্ঘ করতে পরেননি তিনি। ব্যক্তিগত ২২ রানেই সাজঘরে ফেরেন মুশফিক। আর তাতেই চিটাগংয়ের অবশিষ্ট আশা নিভে যায়।

অবশ্য সিকান্দার রাজা কিছুটা চেষ্টা করেছিলেন দলকে উদ্ধার করতে। কিন্তু মোস্তাফিজের কৃপণ বোলিংয়ের কারণে তার ১৫ বলে ২৯ রানের ইনিংসটি কোন কাজে লাগেনি।

শেষ ৩ ওভারে চিটাগংয়ের প্রয়োজন ছিল ২৭ রানের। ১৮তম ওভারে বল করতে এসে ৬ রান দেন মোস্তাফিজ। ১৯তম ওভারে এসে ৮ রান দেন কামরুল ইসলাম রাব্বি। ফলে শেষ ওভারে চিটাগংয়ের দরকার হয় ১৩ রানের। কিন্তু কৃপণ মোস্তাফিজ এই ওভারের এসে ৫ রানের বেশি দেননি।

কালের কাগজ/প্রতিবেদক/জা.উ.ভি


এ জাতীয় আরো খবর
ThemeCreated By ThemesDealer.Com