Logo
ব্রেকিং :
মানিকগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন সভাপতি আমিনুল, সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান ভোট চোররা ভোট চুরি করতেই জানে: শেখ হাসিনা নেত্রকোনায় মহিলা পরিষদের সাংবাদিক সম্মেলন নগরকান্দায় কৃষকের মাঝে পেঁয়াজের বীজ বিতরণ  যশোরে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা হতে চুরি যাওয়া মূল্যবান ১২ টি মোবাইল ফোন গোয়ালন্দে উদ্ধার  সৈয়দপুরে ভোর রাতে ৫ দোকানের  ২০ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই সৈয়দপুরে বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদ্বোধন হলো কাউন্সিলর গোল্ডকাপ ফুটবল টূর্ণামেন্ট  আগামী জুনে শুভ উদ্বোধন করা হবে  সিরাজগঞ্জ বিসিক শিল্প পার্ক  ……… শিল্প মন্ত্রী নূরুল মজিদ নাগরপুরে খেজুর রস আহরণে ব্যস্ত গাছিরা টাঙ্গাইলে আশ্রয়ণের ঘরে ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল, দিশেহারা ৪০ পরিবার
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

অবশেষে বিভক্তির পথে ঐক্যফ্রন্ট!

রিপোর্টার / ১৯ বার
আপডেট মঙ্গলবার, ২৯ জানুয়ারী, ২০১৯

কালের কাগজ ডেস্ক:২৯জানুয়ারী,মঙ্গলবার।
সংসদ সদস্যদের শপথ গ্রহণের বিষয়ে বিএনপির দলীয় সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হলেও ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে এ নিয়ে বিভক্তি অনেকটা প্রকাশ্যে এসেছে। ইতোমধ্যেই জোটের শরিক দল গণফোরামের দুই নির্বাচিত সংসদ সদস্য শপথ নেবেন বলে গণমাধ্যমকে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন। তাদের মতে, সংসদের বাইরে শুধু নয়, সংসদের ভেতরে থেকেও সরকারের সমালোচনা করা প্রয়োজন। এই যুক্তিতে শপথ নিতে চান তারা।
সূত্র বলছে, নীতিগতভাবে শপথ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত দিয়েছে জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। শপথ গ্রহণের বিষয়ে বিএনপির সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছেন ঐক্যফ্রন্ট নেতা ড. কামাল হোসেনও। তাই জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আর বেশিদিন আনুষ্ঠানিকভাবে টিকে থাকছে না বলেই জানা গেছে।
শপথ গ্রহণের প্রসঙ্গ টেনে সিলেট-২ আসনে নির্বাচিত প্রার্থী মোকাব্বির খান বলেন, আমি আমার নির্বাচনী এলাকার জনগণের মতামত সংগ্রহ করেছি। তারা আমাকে তাদের সিদ্ধান্ত এবং পরামর্শ জানিয়েছে। সাধারণ জনগণ তাদের উন্নয়নের স্বার্থে আমাকে সংসদে যাবার পরামর্শ দিয়েছেন। অতএব একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমি তাদের মতকে অস্বীকার করতে পারি না। তাই শপথ নিতে আমি বাধ্য।
এদিকে শপথ নেওয়ার চাপ রয়েছে মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া) আসনে জয়ী গণফোরামের প্রার্থী সুলতান মনসুরের উপরেও। কুলাউড়া উপজেলা গণফোরামের আহ্বায়ক মতাহির আলম চৌধুরী বলেন, এলাকার মানুষের প্রত্যাশা পূরণে সুলতান মনসুরের এমপি হিসেবে শপথ নেয়া উচিত। মানুষ ভোট দিয়ে তাকে নির্বাচিত করেছেন। তাদের আমানত রক্ষার দায়িত্ব নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির। এমপি হিসেবে শান্তি-শৃঙ্খলা ও উন্নয়নের দায়িত্ব তার উপর।
এ প্রসঙ্গে সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ বলেন, জনপ্রতিনিধি হিসেবে প্রথম ও প্রধান লক্ষ্য মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষার বাস্তবায়ন। নির্বাচিত হয়েও শপথ না নিলে নেতাকর্মী ও সমর্থকরা হতাশ হয়ে পড়তে পারেন। এতে ভবিষ্যতে মাঠ ধরে রাখা কঠিন হয়ে যাবে। তাই আমি শপথ নিব বলেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
গণফোরামের দুই প্রার্থী শপথ নেওয়ার পক্ষে হলেও দলীয় সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় বিএনপির নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা। বগুড়া-৪ আসনে বিএনপি থেকে নির্বাচিত মোশাররফ হোসেন বলেন, `আমি দল থেকে এখনও কোন সিদ্ধান্ত পাইনি। তবে শপথ নেয়ার পক্ষে-ই আমার অবস্থান রয়েছে। এ বিষয়ে আমি আমার মতামত মহাসচিবের কাছে জানিয়েছি।`

উল্লেখ্য, সংসদ সদস্যদের শপথ গ্রহণের বিষয়ে ঐক্যফ্রন্টে মতের ভিন্নতা অনেকদিন ধরেই বিরাজ করছিল। ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিত প্রার্থীদের বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা তারেক রহমানের নির্দেশে শপথগ্রহণ থেকে হুমকি দিয়ে বিরত রেখেছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। ঐক্যফ্রন্টের অধিকাংশ নির্বাচিত প্রার্থী শপথ নিতে আগ্রহী বলে মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া) আসনে জয়ী গণফোরামের প্রার্থী সুলতান মনসুর গণমাধ্যমের কাছে তার অবস্থান স্পষ্ট করার পর থেকেই ক্রমেই ঐক্যফ্রন্টের বিভক্তি স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।

কালের কাগজ/প্রতিবেদক/জা.উ.ভি


এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com