Logo
ব্রেকিং :
দৌলতপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালিত ভূঞাপুরে পুত্রবধূর বিরুদ্ধে শ্বাশুরিকে হত্যার অভিযোগ সরিষাবাড়ীতে শেখ হাসিনার জন্মদিনে নতুন কাপড় পেলো ২ শতাধিক দুঃস্থ ও এতিম শিশু ভূঞাপুরে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন নাগরপুরে উপজেলা আ.লীগ আয়োজনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র ৭৬ তম জন্মদিন পালিত টাঙ্গাইলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালিত দৌলতদিয়া মডেল হাই স্কুলে অভিভাবক  সভা অনুষ্ঠিত  ঢাবিতে ছাত্রদলের উপর হামলার প্রতিবাদে সৈয়দপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা ঘিওরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালিত নেত্রকোনায় তথ্য অধিকার দিবসের আলোচনা সভা
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

মানিকগঞ্জের শিবালয়ে কে হবে নৌকার মাঝি

রিপোর্টার / ৩০ বার
আপডেট বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯

কামরুল হাসান,মানিকগঞ্জ :২০ ফেব্রুয়ারী,বুধবার।

আসন্ন ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কে হচ্ছেন মানিকগঞ্জের শিবালয়ে আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার মাঝি তা নিয়ে জনমনে চলছে নানা গুঞ্জন। এদিকে,সরকারের চলতি মেয়াদে এ অঞ্চলে শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম,বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল,হাইট্রিক পার্ক,দ্বিতীয় পদ্মা সেতু,সোলার প্লান্ট,রেললাইনসহ রয়েছে একাধিক বৃহত্তর প্রকল্প বাস্তবায়নের পরিকল্পনা। এসব উন্নয়নমূলক প্রকল্প বাস্তবায়নে চেয়ারম্যান হিসেবে শিক্ষাগত যোগ্যতা,ব্যক্তিস্বত্তা এবং বিগত সময়ে দলীয় কর্মকান্ডে অংশগ্রহনসহ কে কতটা গ্রহনযোগ্য তা দলীয় নীতি-নির্ধারক পর্যায়ে চলছে বিচার-বিশ্লেষন। ৭টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এ উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী আকবর এলাকায় সৎ,নিষ্ঠাবান ও ক্লিন ইমেজের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে পরিচিত। সম্ভ্রান্ত পরিবারে বেড়ে ওঠা উচ্চ শিক্ষায় -শিক্ষিত এই ব্যক্তি ব্যবসায়ীকভাবে পর পর ৫ বার জেলার শ্রেষ্ঠ করদাতার পদকেও ভূষিত হয়েছেন।

রাজনৈতিক অঙ্গনেও রয়েছে তার জনপ্রিয়তা।বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তার ভূমিকাও ছিল চোখে পড়ার মত।বিগত ৫ বছরে জননেত্রী শেখ হাসিনার আদলে ও স্থানীয় সংসদ সদস্য এএম নাঈমুর রহমান দুর্জয় এমপি’র প্রচেষ্টায় এলাকার উন্নয়নে রেখেছেন তিনি সহায়ক ভূমিকা। অপরদিকে ২০১৪ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন পেয়েও এএম নাঈমুর রহমান দুর্জয় এমপিকে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করায় দলীয় প্রধানের নির্দেশে তার মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। গত ২০১৪ সালের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে  মোহাম্মদ আলী আকবর তৎকালীন চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম খানকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। মোহাম্মদ আলী আকবর  চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর  আনুষ্ঠানিক ভাবে আওয়ামীলীগে যোগদান করেন ।

এদিকে  জেলা আওয়ামী লীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম খান ২০০৯ সালে জেলা জাকের পার্টির সভাপতি থাকাবস্থায় শিবালয় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। নির্বাচনের কয়েক মাস পর দলীয় নীতিমালা ভঙ্গ,অবৈধ উপায়ে অর্থ উপার্জন ও অনৈতিক কাজে জড়িত থাকার কারনে জেলা জাকের পার্টির পদ থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়।

২০১৪ সালের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভূমিদস্যুতা,নারী কেলেঙ্কারী,,মসজিদে তালা ঝুলানোসহ নানাবিধ অপকর্মে জড়িত থাকার অভিযোগে ব্যাপক ভোটের ব্যবধানে বর্তমান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী আকবর এর নিকট পরাজয় বরন করেন।তিনি গত ২০১৬ সালের পহেলা সেপ্টেম্বর জেলা আওয়ামী লীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক পদে মনোনীত হন।

সম্প্রতিকালে সংখ্যালঘু নির্যাতন,মন্দির ভাংচুর, সরকারী জায়গা দখল করে হাসপাতাল নির্মান ও তার ব্যক্তিগত কার্যালয়ে “”জাতির জনক ও শেখ হাসিনার ছবি নেই” ও মন্দিরের সামনে জাকের পার্টির গরু রাখার ক্যাম্প স্থাপন করে ধর্মীয় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির কারনে “রহিম খানের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর নিকট লিখিত অভিযোগ” শিরোনামে বিভিন্ন গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় এবং জেলা জাকের পার্টির কর্মি প্রধান হিসেবে মহাসড়কে তোরণ নির্মান, ব্যানার টানানোর কারনে এলাকায় ব্যাপক সমালোচিত হয়েছেন তিনি। জাতীয় নির্বাচনেও রয়েছে তার ভূমিকা। মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে এলাকায় সভা-সমাবেশ করছেন তিনি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউর রহমান খান জানু এলাকায় জনপ্রিয়তার দিক থেকেও পিছিয়ে নেই।   শিবালয়ের প্রতিটি গ্রামে মিটিং মিছিলের মাধ্যমে গণসংযোগ করছেন তিনি । জাতীয় সংসদ  নির্বাচনে দলীয় প্রাথীর   পক্ষে   সক্রিয় ভুমিকা ছিল। ১৯৭১ সালে ঢাকা দক্ষিন পশ্চিম অঞ্চলের সাব-সেক্টর-২ এর মুক্তিযুদ্ধকালীন কমান্ডার ছিলেন । শিবালয় উপজেলার মধ্যে একমাত্র পরিবারের সবাই মুক্তিযোদ্ধা ও রাজনৈতিক পরিবার হিসাবে ঐতিহ্য রয়েছে। তিনি ১৯৯১ সালে মানিকগঞ্জ-২ শিবালয়- হরিরামপুর আসনে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী হিসেবে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে পরাজিত হন । পরে ২০০৩সালে সরকারী দেবেন্দ্র কলেজ মাঠে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতে নৌকার প্রতীক দিয়ে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। তিনি বর্তমানে  উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার হিসাবে  দায়িত্ব পালন করছেন

এদিকে  গত ২৮ জানুয়ারী তৃনমূলের ভোটে বর্তমান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী আকবর,উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউর রহমান খান জানু ও জেলা আওয়ামী লীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রহিম খান নির্বাচিত হন। তৃণমূলের ভোটে নির্বাচিত প্রার্থীগন দলীয় প্রার্থীতা নিশ্চিত করতে ও দলীয় নীতি নির্ধারকদের নজর কাড়তে যার যার অবস্হান থেকে নানাবিধ প্রক্রিয়ায় ভোটারদের মন জয়সহ কেন্দ্রীয়ভাবে জোড় লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন। দলে একাধিক প্রার্থী থাকায় দলীয় সাংগঠনিক কাঠামো আরো মজবুত হওয়ার সম্ভাবনাই বেশী বলে মনে করছেন বিশিষ্টজনেরা। তবে দলের নীতির্নিধারকরা মনে করছেন, দলে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী থাকলেও এদের মাঠ গোছানোর প্রক্রিয়াটাও একটু ভিন্ন ধরনের।

বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেয়ার ব্যাপারে এখন পর্যন্ত সুষ্পষ্ট ঘোষণা না দিলেও গোপনে মাঠ গোছানোর কাজে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন নেতাকর্মীরা। বিজয়ে বিশ্বাসী এই ৩ নেতার দৌড় কত দুর যাবে তা নিয়ে জল্পনা-কল্পনায় জেলা আওয়ামীলীগ ও তৃনমূল পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সাধারন ভোটারগন।


এ জাতীয় আরো খবর
ThemeCreated By ThemesDealer.Com