Logo
ব্রেকিং :
সরকার পরিবর্তন করার একমাত্র পথ নির্বাচন: পরিকল্পনামন্ত্রী সিরাজগঞ্জের তাড়াশে গৃহবধূকে হত্যা শ্বশুড়-শ্বাশুড়ি আটক সিরাজগঞ্জে বহুলীতে মতিয়ার রহমান মিঞা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপন নেত্রকোনায় আর্ন্তজাতিক সিওড দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা নবনিযুক্ত আইজিপি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুনকে ডিআইজির শুভেচ্ছা ঈশ্বরগঞ্জে যুবমহিলা লীগের সমাবেশ অনুষ্ঠিত নড়াইল জেলা পরিষদের সদস্য নির্বাচনে আলোচনার শীর্ষে শেখ সাজ্জাদ হোসেন মুন্না নাগরপুরে ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যদের সাথে এমপি টিটুর মতবিনিময় সভা নগরকান্দায় বাংলাদেশ আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সংগ্রহ সভা অনুষ্ঠিত  চৌহালী উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণে প্রস্তাবিত স্থান পরিদর্শন
নোটিসঃ
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয়

বিএনপির গণশুনানিতে সবাই ছিলেন গণঘুমে: তথ্যমন্ত্রী

রিপোর্টার / ১১ বার
আপডেট মঙ্গলবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯

কালের কাগজ ডেস্ক:২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,মঙ্গলবার।

নির্বাচন নিয়ে বিএনপি যে গণশুনানি করেছে সেখানে সবাই গণঘুমে ব্যস্ত ছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেঞ্জ রিপোর্টার্স ফোরামের (সিজিআরএফ) সঙ্গে মতবিনিময়কালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ ক্লাইমেটচেঞ্জ রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি কাউসার রহমানের সভাপতিত্বে ‘জলবায়ু পরিবর্তন ঝুঁকি মোকাবিলায় গণমাধ্যম’ শীর্ষক এ মতবিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসউদুল হক, সিনিয়র সাংবাদিক সন্তোষ শর্মা, নির্বাহী সদস্য মনিরুজ্জমান উজ্জ্বল, সদস্য শামীম আহমেদ, শাহাদৎ স্বপন, শাহাদাত হোসেন রাকিব, ইসমাইল হোসেন রাসেল প্রমুখ।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, গণশুনানিতে কিন্তু সবাই গণঘুমে ব্যস্ত ছিলেন। আমি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে যেটা দেখলাম। গণশুনানির সময় তারা সবাই ঘুমাচ্ছিলেন। গণশুনানির নামে এটি আসলে জনগণের চোখে ধুলা দেয়ার জন্য একটি নাটক মঞ্চায়ন করা হয়েছে। এর কোনো আবেদন তারা জনগণের কাছে তৈরি করতে পারেনি।

মন্ত্রী বলেন, তাদের দলের একজন নেতা বলেছেন, গণশুনানির পাশাপাশি তাদের নেতাদের শুনানি করা প্রয়োজন, কার কী ভূমিকা ছিল সে বিষয়ে। আমিও মনে করি তাদের নেতাদের শুনানি করার প্রয়োজন, কার কী ভূমিকা ছিল এবং আছে।

এক প্রশ্নের জবাবে ড. হাছান বলেন, গতকাল ড. কামাল হোসেন, মির্জা ফখরুল ইসলামসহ তাদের একটি প্রতিনিধিদল ইউএস রাষ্ট্রদূতসহ কয়েকজন কূটনীতিকের সঙ্গে দেখা করেছেন। প্রকৃতপক্ষে দেশের জনগণই হচ্ছে ক্ষমতার মালিক। জনগণের বাইরে অন্য কেউ ক্ষমতার মালিক নয়। বিএনপি কিংবা ঐক্যফ্রন্ট ঘন ঘন বিদেশিদের সঙ্গে দেখা করার মাধ্যমে তাদের রাজনৈতিক দেউলিয়াত্ব প্রকাশ পায়।

দেশে কিছু হলেই তারা বিদেশিদের কাছে ধরনা দেয় বলে মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এর দ্বারা একটি দেশকে শুধু অপমানিত করা হয় তা নয়, নিজেদেরকেও অপমানিত করা হয়। তাদের দলকেও অপমানিত করে। আমি মনে করি তাদের ধরনা দেয়া উচিত জনগণের কাছে। বিদেশিদের কাছে নয়।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে সাবেক এই পরিবেশ মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার হলেও ঝুঁকি মোকাবেলায় করণীয় কী, সে সম্পর্কে বাংলাদেশই পৃথিবীকে পথ দেখিয়েছে। অনেক ক্ষেত্রে পথপ্রদর্শকের ভূমিকা পালন করেছে। বাংলাদেশ বিশ্বের সর্বোচ্চ সোলার প্যানেল ব্যবহারকারী দেশ। বর্তমানে দেশে ৫০ লাখ সোলার প্যানেল ব্যবহৃত হচ্ছে যা চীন, ভারত কিংবা পৃথিবীর বড় কোনো দেশে নেই। এ কারণেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থ পুরস্কারে ভূষিত করা হয়। এটি পরিবেশ ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ পদক।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার, এর জন্য দায়ী উন্নত দেশগুলো। এর ঝুঁকি মোকাবেলায় সবাইকে একযোগে কাজ করা প্রয়োজন। দুঃখজনক হলেও সত্যি যে বিশ্ব সম্প্রদায় প্যারিস চুক্তির আলোকে যে ধরনের পদক্ষেপ নেয়ার কথা ছিল এখনও সে ধরনের পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে। কার্বন নিঃসরণ কমানোর জন্য এখনও পর্যন্ত যে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে তা কার্যকর হলে তাপমাত্রা শিল্প বিপ্লবের আগের তুলনায় আরও সাড়ে তিন ডিগ্রি বাড়বে।

গণমাধ্যমকর্মীরা জাতির যেকোনো প্রয়োজনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ভাষা আন্দোলন, স্বাধীকার আদায়, স্বাধীনতা সংগ্রাম ও স্বাধীনতা সংগ্রামের পরবর্তী প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তাদের ভূমিকা অপরিসীম। জলাবায়ু পরিবর্তন ও বিশ্বের উন্নয়ন একটি বৈশ্বিক দুর্যোগ।

তিনি বলেন, এ দুর্যোগ মোকাবেলায়ও শুধু ক্লাইমেন্ট চেঞ্জ জার্নালিস্ট ফোরামই নয়, সব গণমাধ্যমকর্মীরা ভূমিকা পালন করতে পারে। পিআইবির মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়া পিআইডিতে জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় করণীয় যে প্রচার প্রচারণা রয়েছে, সেগুলোতে গণমাধ্যমকর্মীদের কীভাবে অন্তর্ভুক্ত করা যায় তা ভেবে দেখা হবে।

কালের কাগজ/প্রতিবেদক/জা.উ.ভি


এ জাতীয় আরো খবর
ThemeCreated By ThemesDealer.Com