হাসপাতালে কাটছে খালেদা জিয়ার নিঃসঙ্গ ঈদ

editor ৩রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ breaking slider-top প্রধান খবর

কালের কাগজ ডেস্ক: ১৪ মে, ২০২১ ,শুক্রবার।

আজ পবিত্র ঈদুল ফিতর। যদিও বিশ্বময় মহামারি করোনার ফলে সবাই এক বিশেষ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে সময় পার করছে, তারপরও বিশ্বমুসলিম উম্মাহ অত্যন্ত ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে ঈদুল ফিতর উদযাপন করছেন। এদিকে এবার হাসপাতালে ঈদ কাটছে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার

গত ২৭ এপ্রিল থেকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ৩ মে থেকে তিনি হাসপাতালে করোনারি কেয়ার ইউনিটে ভর্তি রয়েছেন। ইতোমধ্যে তিনি কোভিড নেগেটিভ হলেও বেশকিছু জটিলতা রয়েছে। ফলে এবারের ঈদে তিনি হাসপাতালে থাকছেন।

দলীয় সূত্রে আরও জানা গেছে, ঈদের দিন খালেদা জিয়ার সঙ্গে হাসপাতালে তার ভাই শামীম ইস্কান্দার। এছাড়া বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম ঈদের দিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়াকে দেখার পর দলের স্থায়ী কমিটির অল্প কয়েকজন নেতাকে নিয়ে শেরেবাংলা নগরে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত করবেন।

বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয় ও তাঁর চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এর আগে ২০১৯ সালেও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) ঈদের দিন কাটিয়েছেন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ঈদ কাটানোর বিষয়ে বিএনপির চেয়ারপারসনের গণমাধ্যম শাখার কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান গণমাধ্যমকে বলেন, ২০১৮ সালে মিথ্যা মামলায় খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেওয়ার পর থেকেই আমাদের ঈদের আনন্দ হারিয়ে গেছে। এবার সেটা আরও নেই। কারণ বাংলাদেশের মানুষের প্রাণের প্রিয় নেত্রী খালেদা জিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আর অন্যদিকে করোনার থাবা, সব মিলিয়ে ঈদের আনন্দ এখন আর দলের কোনো নেতাকর্মীকে স্পর্শ করে না।’

প্রতি বছর রমজান মাসজুড়ে চলে ‘ইফতার রাজনীতি’। সেটার পূর্ণতা পায় ঈদের দিন। এদিন রাজনৈতিক নেতারা নির্বাচনী এলাকায় গিয়ে ঈদের নামাজের পর তৃণমূলের নেতাকর্মী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের সঙ্গে কোলাকুলি করতেন। সারাবছর নেতাকর্মীদের খোঁজ না নিলেও ঈদের দিন তাদের সুখ-দুঃখের কথা শুনতেন। ঈদের সালামিও দিতেন। কিন্তু মহামারি করোনার কারণে গত বছর থেকে তা বন্ধ আছে।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি গত ১১ এপ্রিল দলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়। এরপর গুলশানে নিজের ভাড়া বাসা ‘ফিরোজা’য় চিকিৎসা নেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী। তবে ১৫ দিন পর করোনা পরীক্ষায় রিপোর্ট ফের পজিটিভ হলে ২৭ এপ্রিল খালেদা জিয়াকে নেওয়া হয় এভারকেয়ার হাসপাতালে।

গত ৩ মে সকালে খালেদা জিয়ার শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তাঁকে সিসিইইতে নেওয়া হয়। তখন থেকে তিনি সিসিইইতেই চিকিৎসাধীন। তবে এখন পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে বলে দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এর মাঝে তাঁর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে।সুত্র:ইত্তেফাক

সম্প্রতি সংবাদ